দেশ 

UGC NET Exam: নেটের প্রশ্নপত্র দুদিন আগেই ফাঁস হয়ে যায়, ৬ লাখ টাকায় বিক্রি হয় প্রশ্নপত্র সিবিআই তদন্তে এই রহস্য সামনে এলো!

শেয়ার করুন

বাংলার জনরব ডেস্ক : উচ্চশিক্ষার এক যুগান্তকারী দ্বার তার হলো গবেষণার জন্য প্রবেশিকা পরীক্ষা নেট পরীক্ষা। ঈদুল আযহার পরের দিন অর্থাৎ ১৮ই জুন ইউজিসি নেট পরীক্ষা নেওয়া হয়। আর এই পরীক্ষার ঠিক পরের দিনেই কোন কারণ না দেখিয়ে পরীক্ষা বাতিল করে দেওয়া হয়। কেন বাতিল কি জন্য বাতিল এসব কোন ব্যাখ্যা অবশ্য কেন্দ্র সরকার দেয়নি। একটি প্রেস বিবৃতি জারি করে জানিয়ে দেয় যে ১৮ই জন নেওয়া নেট পরীক্ষা বাতিল করা হলো।

আর এ নিয়ে বিরোধীরা তীব্র আন্দোলন গড়ে তুললে এবং ছাত্রসমাজ থেকে আন্দোলনের গতি তীব্র থেকে তীব্র হলে বাধ্য হয়ে নেট পরীক্ষার তদন্ত সিবিআইকে দেওয়া হয়। জাতীয় সংবাদ মাধ্যম এনডিটিভি প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলেছে রবিবার রাতে অর্থাৎ পরীক্ষার দুদিন আগে নেট পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়েছিল।প্রশ্ন ফাঁসের পরেই তা ডার্ক ওয়েবে বিক্রি করা হয়েছিল ৬ লক্ষ টাকার বিনিময়ে। যদিও প্রশ্ন কোথা থেকে ফাঁস হয়েছে, সে বিষয়ে এখনও স্পষ্ট ভাবে কিছু জানা যায়নি। নেটের প্রস্তুতি করানো হয় এমন কোচিং সেন্টারগুলির ভূমিকা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সূত্রে খবর।

Advertisement

গত মঙ্গলবার (১৮ জুন) দু’টি অর্ধে নেট পরীক্ষা দিয়েছিলেন প্রায় ৯ লক্ষ শিক্ষার্থী। কিন্তু এর এক দিন পরেই পরীক্ষা বাতিলের কথা ঘোষণা করা হয়। মনে করা হচ্ছিল, পরীক্ষার আগের দিন অর্থাৎ, সোমবার নেটের প্রশ্নপত্র ডার্ক ওয়েবে ফাঁস হয়েছিল। তবে প্রাথমিক ভাবে তদন্ত চালানোর পর সিবিআই সূত্র জানিয়েছে, সোমবার নয়, পরীক্ষার প্রশ্নপত্র আদতে ফাঁস হয়েছিল রবিবার এবং ডার্ক ওয়েবে তা ৬ লক্ষের বিনিময়ে বিক্রি করা হয়। উল্লেখ্য, শিক্ষা মন্ত্রকের অভিযোগের ভিত্তিতে নেট মামলায় ইতিমধ্যেই একটি এফআইআর দায়ের করেছে সিবিআই।

গত মঙ্গলবার দু’টি অর্ধে নেট পরীক্ষা হয়েছিল ৮৮টি বিষয়ে। কিন্তু স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের অধীনস্থ সংস্থা ‘ভারতীয় সাইবার ক্রাইম কোঅর্ডিনেশন সেন্টার’ (১৪সি)-এর জাতীয় সাইবার ক্রাইম থ্রেট অ্যানালিটিক্স ইউনিট থেকে পাওয়া কিছু তথ্যের ভিত্তিতে পরীক্ষায় অনিয়মের বিষয়টি নজরে আসে। তার পরেই বুধবার মন্ত্রকের কাছে পরীক্ষা বাতিলের বার্তা পাঠায় আয়োজক সংস্থা ‘ন্যাশনাল টেস্টিং এজেন্সি’ (এনটিএ)। পাশাপাশি জানানো হয়, নতুন করে আবার পরীক্ষা নেওয়া হবে। ওই অনিয়ম সংক্রান্ত তদন্তের ভার সিবিআইয়ের হাতে তুলে দেয় শিক্ষা মন্ত্রক। সেই মামলাতেই তদন্তে নেমেছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত নিবন্ধ