কলকাতা 

মহার্ঘ ভাতা ও ষষ্ঠ বেতন কমিশন কার্যকরী করার দাবিতে ৮ ও ৯ জানুয়ারি ধর্মঘটের পথে রাজ্য সরকারের কর্মচারীরা ; মুখ্য সচিবকে চিঠি দিল কো-অর্ডিনেশন কমিটি

শেয়ার করুন
  • 20
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : আগামী ৮ ও ৯ জানুয়ারি রাজ্য সরকারের কর্মচারীদের কয়েকটি সংগঠনের ডাকে ধর্মঘটে সামিল হচ্ছে রাজ্যের কর্মচারীরা । এবারের ধর্মঘটে সামিল হওয়ার জন্য রাজ্য সরকারকে রীতিমত চিঠি দিয়ে জানিয়ে করা হচ্ছে । সরকারের উপর চাপ সৃষ্টি করার জন্য বাম প্রভাবিত সংগঠন মুখ্য সচিবকে চিঠি দিয়ে জানিয়েছে , তাদের দাবিগুলির প্রতি সরকার সুবিচার না করায় বাধ্য হয়ে তারা ধর্মঘটে সামিল হচ্ছে । সম্ভবত দেশে এই প্রথম সরকারি কর্মচারীরা ধর্মঘটে সামিল হচ্ছে সরকারকে চিঠি দিয়ে জানিয়ে । এরফলে মমতা সরকারের উপর ভোটের আগে যে চাপ বাড়ল তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না । তাদের মূল দাবি বকেয়া ডিএ এবং ষষ্ঠ বেতন কমিশন অবিলম্বে চালু করতে হবে । সেই সঙ্গে কেন্দ্রীয় হারে ডিএ দেওয়ার দাবিতে তারা ধর্মঘটে সামিল হচ্ছে বলে রাজ্যের মুখ্য সচিব মলয় দে চিঠি দিয়ে জানিয়েছেন বামপন্থী সরকারি কর্মচারী সংগঠন রাজ্য কো-অর্ডিনেশন কমিটি । তারা চিঠিতে দাবি করেছে অনেক আবেদন নিবেদন করেও ডিএ এবং বেতন কমিশন কার্যকরী করেনি সরকার ,তাই ধর্মঘট করা ছাড়া অন্য কোনো বিকল্প নেই বলেই তারা ধর্মঘটে সামিল হচ্ছে ।

উল্লেখ্য বকেয়া মহার্ঘ ভাতা আদায় এবং ষষ্ঠ বেতন কমিশন চালুর দাবিতে বেশ কয়েক বছর ধরে আন্দোলন করছে রাজ্য সরকারি কর্মচারীরা। ২৯ নভেম্বর  রাজ্য কো-অর্ডিনেশন কমিটির সাধারণ সম্পাদক বিজয় শংকর সিংহের নেতৃত্বে নবান্ন অভিযানও করা হয় ।  সেদিন বহু আন্দোলনকারীকে আটক করেছিল পুলিশ। শুধু আটক করা নয়, নবান্ন অভিযানের ঠিক পরদিন থেকেই তাঁদের কাছে একে একে আসতে শুরু করে বদলির অর্ডার।

বামপন্থী কর্মচারী সংগঠনের প্রায় ১৫ জন সদস্যকে বদলি করা হয়। এমনকী বিজয় শংকর সিংহকেও বদলি করা হয় উত্তরবঙ্গে। খাদ্য দপ্তরে বদলি করা হয় তাঁকে। কিন্তু, বিজয়বাবু দার্জিলিঙের উত্তরকন্যায় কাজে যোগ দিতে গিয়ে দেখেন ওখানে খাদ্য দপ্তরের কোনও শাখায় নেই। প্রযুক্তি দপ্তরের রিলিজ় অর্ডার পান তিনি। একসঙ্গে ১৫ জন কর্মচারীর বদলির ঘটনাকে রাজ্য সরকারের প্রতিহিংসামূলক মনোভাব বলেই মনে করছেন আন্দোলনকারীরা। এই ঘটনার পর থেকেই প্রশাসনের উপর রীতিমতো ক্ষুব্ধ সংগঠনের সদস্যদের একাংশ। যদিও দুদিনের ধর্মঘটে যাওয়ার কর্মসূচি আগেই ঠিক হয়েছিল।

বিভিন্ন কেন্দ্রীয় ট্রেড ইউনিয়নগুলি  মোদী সরকারের জনবিরোধী নীতির বিরুদ্ধে ৮ ও ৯ জানুয়ারি দেশজুড়ে ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে। এই ২ দিন যাবত মহার্ঘ ভাতা আদায় ও ষষ্ঠ বেতন কমিশন চালুর দাবিতে ধর্মঘটের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাম কর্মচারী সংগঠনের প্রতিনিধিরা। ধর্মঘট রুখতে সরকারি কর্মচারীদের প্রতি রাজ্য সরকারের তরফে নির্দেশিকা দেওয়ার আগেই নবান্নকে চিঠি দিয়ে রাখল বাম কর্মচারী সংগঠনের প্রতিনিধিরা।

 


শেয়ার করুন
  • 20
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment