দেশ 

কন্যাকুমারীতে মোদীর ধ্যান টিভিতে সম্প্রচার করা হলে নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গ করা হবে! বন্ধ করা হোক, নির্বাচন কমিশনে আর্জি সিপিএম, কংগ্রেসের

শেয়ার করুন

বাংলার জনরব ডেস্ক : আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় কন্যাকুমারীতে ধ্যানে বসতে চলেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। প্রধানমন্ত্রীর দফতর সূত্রে খবর, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ৪৮ ঘণ্টার জন্য কন্যাকুমারীতে ধ্যানে বসবেন নরেন্দ্র মোদী। এর আগে দু’বার লোকসভা নির্বাচনের প্রচার শেষে আধ্যাত্মিক সফরে বেরিয়েছিলেন তিনি। ২০১৪ সালের লোকসভা ভোটের প্রচার শেষে গিয়েছিলেন কেদারনাথ। ২০১৯ সালে গিয়েছিলেন মহারাষ্ট্রের প্রতাপগড় দুর্গে।

ইতিমধ্যেই এই নিয়ে রাজনৈতিক বিতর্ক দানা বেঁধেছে। প্রধানমন্ত্রীর ধ্যানমগ্ন হওয়ার ছবি যাতে টেলিভিশনে সম্প্রচারিত না হয়, সেই বিষয়ে নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ হয়েছে সিপিএম এবং কংগ্রেস।

Advertisement

বুধবার তামিলনাডু সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক কে বালকৃষ্ণণ দেশের মুখ্য নির্বাচন কমিশনারকে একটি চিঠি দেন। সেই চিঠিতে সিপিএম নেতা লেখেন যে, মোদী ব্যক্তিগত ভাবে কোথাও ধ্যানে বসতেই পারেন। কিন্তু প্রধানমন্ত্রীর ধ্যানমগ্ন হওয়া বিভিন্ন প্রচারমাধ্যমে সরাসরি সম্প্রচারিত করা হলে দেশে সপ্তম দফা ভোটের আগে তা নির্দিষ্ট একটি দল (বিজেপি)-কে বিশেষ সুবিধা পাইয়ে দেবে। কমিশনের আদর্শ আচরণবিধি যাতে ভঙ্গ না হয়, সেই কারণে এই সম্প্রচার বন্ধ রাখার আর্জি জানিয়েছেন বালকৃষ্ণণ।

Advertisement:

একই আর্জি জানিয়ে কমিশনের দ্বারস্থ হয়েছে কংগ্রেসও। বুধবার কংগ্রেস নেতা রণদীপ সুরজেওয়ালা, অভিষেক মনু সিঙ্ঘভি এবং সৈয়দ নাসির হুসেন কমিশনের দফতরে যান। তিন সদস্যের প্রতিনিধি দলটির তরফে কমিশনের কাছে একটি স্মারকলিপি জমা দেওয়া হয়। কংগ্রেসেরও বক্তব্য, মোদীর ধ্যানে বসার ছবি সরাসরি সম্প্রচারিত হলে দেশে শেষ দফার ভোটের আগে কমিশনের আদর্শ আচরণবিধি লঙ্ঘিত হবে। বুধবার এই নিয়ে মোদীকে কটাক্ষ করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। তিনি বলেন, “ধ্যান করবে তো ক্যামেরা নিয়ে কেন? লোকে পুজো ক্যামেরার সামনে ছবি তুলে করে?”

 


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত নিবন্ধ