কলকাতা 

কবি-সাহিত্যিক-লেখকদের বৈঠকী আড্ডায় কলকাতা উত্তরের জোট প্রার্থী প্রদীপ ভট্টাচার্য 

শেয়ার করুন

মোহাম্মদ সাদউদ্দিন, কলকাতা:কবি-সাহিত্যিক-লেখক ও সংস্কৃতি কর্মীদের সঙ্গে বৈঠকি আড্ডায় কলকাতা দক্ষিণ লোকসভার বাম-কংগ্রেস জোট প্রার্থী জাতীয় কংগ্রেসের অধ্যাপক প্রদীপ ভট্টাচার্য । শনিবার কলেজ স্ট্রিটের নির্মলভবনে এই আড্ডার আয়োজক “আগামীর পদক্ষেপ”। এদিনের এই বিকেলের আড্ডায় সাহিত্য-সংস্কৃতি কতখানি রাজনীতিকে প্রভাবিত করতে পারে তা নিয়েই ছিল মূলত আলোচনার মুখ্য বিষয়। এই আলোচনা সভা থেকে প্রায় সব বক্তাই বলেন, ভারতের একটা ফ্যাসিস্ট -সাম্প্রদায়িক ও বিভেদ সৃষ্টিকারী আর এস এস নিয়ন্ত্রিত বিজেপি সরকারকে আর নয়। এই প্রভাব পড়ুক সাহিত্য ও লেখনিতে। আমাদের দেশের স্বাধীনতা আন্দোলনকে গণ আন্দোলনে করেছিলেন কবি সাহিত্যিক-লেখক-কবি -লেখক ও সাংবাদিকরা।

তাই সাহিত্যের একটা ভূমিকা রয়েছে। সাংস্কৃতিক আন্দোলন রাজনৈতিক আন্দোলনকে প্রভাবিত করে। রবীন্দ্রনাথ-নজরুল- আমাদের তো আইকন। সাহিত্য তো আমাদের মধ্যে চেতনা গড়ে তোলে। এই বিকেলের আড্ডায় বাম -কংগ্রেস জোটের প্রার্থী অধ্যাপক প্রদীপ ভট্টাচার্য, কবি মন্দ্রাক্রান্তা সেন , আই পি সিএ-এর নলিনাক্ষ চৌধুরী, ডা: তমোনাশ ভট্টাচার্য ও যতীন চন্দ, শিক্ষক নেতা স্বপন মণ্ডল, অভিনেত্রী মানসী সিনহা, অভিনেতা বাদশা মৈত্র ও রাহুল মজুমদার, আইনজীবী ফেরদৌস শামীম, অধ্যাপক ইমানুল হক , নন্দিনী ভট্টাচার্য, তরুণ ব্যানার্জি প্রমুখ।

Advertisement

এদিন বক্তারা বলেন, আমাদের মধ্যে আমাদের দেশ ও আমাদের রাজ্য আজ যে জায়গায় চলে গেছে, তাতে কলকাতার কিছু সুবিধাবাদী বুদ্ধিজীবীদের ভূমিকা আমাদের লজ্জা দেয়। । তারা যেন আজ কোমায় আচ্ছন্ন। তাই আজ বলতে চাই বাম-কংগ্রেস ধর্মনিরপেক্ষ গণতান্ত্রিক জোট একমাত্র বিকল্প ও ভরসার জায়গা। এদিনের অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সুমন রায়চৌধুরী।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত নিবন্ধ