দেশ 

রাহুল গান্ধীর প্রতিশ্রুতির বাস্তবায়ন , ছত্তিশগড়ের মাওবাদীদের অস্ত্র ছেড়ে আলোচনায় বসার আহ্বান মুখ্যমন্ত্রী ভূপেশের

শেয়ার করুন
  • 38
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : ক্ষমতায় আসার আগে নির্বাচনী প্রচারে কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী ছত্তিশগড়ের মানুষকে কথা দিয়েছিলেন ক্ষমতায় এসেই মাওবাদী সমস্যার সমাধান করবেন। কংগ্রেস দলের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহণ করে এক সপ্তাহ হয়নি । তারমধ্যেই মাওবাদীদের বন্দুক ছেড়ে আলোচনায় বসার আহ্বান জানালেন ছত্তিশগড়ের নব নির্বাচিত মুখ্যমন্ত্রী ভুপেশ বাঘেল । তিনি মনে করেন আলোচনার মধ্যে দিয়েই তিন দশকের সমস্যা মেটানো যাবে

দেশের প্রথম সারির সংবাদপত্র টাইম্ অফ ইন্ডিয়াকে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে বাঘেল বলেন, “২০১৩এর মে মাসে ভয়াবহ এক মাওবাদী হানায় কংগ্রেস তাদের প্রথম সারির বহু নেতাকে হারায়। অনেক জওয়ান, সাংবাদিক এবং নিরপরাধ আদিবাসীর মৃত্যু হয়েছে এই সমস্যার জন্য। বন্দুক দিয়েই যদি এই সমস্যার সমাধান হত, তা হলে রমন সিংহের পনেরো বছরের রাজত্বকালেই তা হয়ে যেত।গুলির বদলে গুলিএই নীতি ব্যর্থ হয়েছে। আমি মনে করি, এই সমস্যার সমাধানে নতুন ভাবে আমাদের ভাবতে হবে।তিনি বলেন ,ছত্তীসগঢ়ের সরকার এনকাউন্টার আর মৃতদেহের সংখ্যা গুণতে রাজি নয়তাঁর কথায়, “এই সমস্যার শিকার যাঁরা, আমি তাঁদের সবাইকে আলোচনার টেবিলে বসাতে চাই। আমি দেহ গুনতে রাজি নই।তাঁর মতে মাওবাদী সমস্যা একটি অর্থসামাজিক এবং রাজনৈতিক ইস্যু। তাঁর কথায়, “অবিলম্বে মাওবাদী সমস্যার সঙ্গে জড়িত সবার সঙ্গে, বিশেষত বস্তারের মানুষদের সঙ্গে আলোচনায় বসা দরকার।

তিনি ওই সাক্ষাৎকারে স্বীকার করেন ,বস্তারের মানুষের জীবনযাপন অন্য রকমের, সে কথা বলেন বাঘেল। তাঁর কথায়, “বস্তারের মানুষের মানসিকতা হল স্বাধীন ভাবে প্রকৃতির মধ্যে থাকা। কিন্তু সেই পরিস্থিতি এখন পুরোপুরি পালটে গিয়েছে। স্থানীয়দের মধ্যে এখন সন্দেহ এবং ভয় ঢুকে গিয়েছে।মানুষের আত্মবিশ্বাস ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য বস্তারে তৃণমূল স্তর থেকে তাঁর সরকার কাজে নামবে বলেও আশ্বাস দিয়েছেন বাঘেল।


শেয়ার করুন
  • 38
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment