দেশ 

কমলনাথের বক্তব্যের তীব্র প্রতিক্রিয়া বিজেপি ও অখিলেশের ; বক্তব্যের ভুল ব্যাখ্যা হচ্ছে দাবি কংগ্রেসের

শেয়ার করুন
  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে দায়িত্ব নেওয়ার একদিনের মধ্যেই বিতর্কে জড়ালেন কংগ্রেসের কমল নাথ। তাঁর এক মন্তব্যকে ঘিরে সারা দেশজুড়ে বির্তক শুরু হল ।এই মন্তব্য ঘিরে শুধু বিজেপি নয় , বিরোধী জোটে ফাটল দেখা দিয়েছে।

ঘটনার সূত্রপাত সোমবার মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নেওয়ার পর কমল নাথ সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়েছিলেন । সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময় তিনি বলেন , বিহার আর উত্তরপ্রদেশ থেকে সবাই এসে মধ্যপ্রদেশে ভিড় জমাচ্ছেন। আর তার জেরে মধ্যপ্রদেশে বেকারত্ব বাড়ছে।

এর পরই কমল নাথ বলেন এই সমস্যার সমাধান করতে তিনি বদ্ধপরিকর। তাই তিনি রাজ্যের বেসরকারি সংস্থাগুলির উদ্দেশ্যে বলেন,সরকারি সুবিধা নিতে গেলে কোনও সংস্থাকে ৭০ শতাংশ মধ্যপ্রদেশের লোক নিয়োগ করতে হবে।

এর পরই শুরু হয় বিতর্ক। কারণ, এর আগেও মহারাষ্ট্র, গুজরাত, অসমে অন্য রাজ্যের বাসিন্দাদের তাড়িয়ে দেওয়ার ঘটনা দেখা গিয়েছে। এ নিয়ে গোলমাল চলেছে। ফলে কমল নাথের এই মন্তব্য সামনে আসতেই বিতর্ক চরমে উঠেছে।

আর সেই বিতর্কের আগুনে মঙ্গলবার ঘি ঢাললেন সমাজবাদী পার্টির সভাপতি অখিলেশ যাদব। তিনি কমল নাথের অভিযোগ সরাসরি অস্বীকার করলেন। তাঁর পাল্টা দাবি, মহারাষ্ট্রে একই কথা শোনা গিয়েছিল। উত্তর ভারতের লোকেরা কেন সেখানে যায়, প্রশ্ন তোলা হয়েছিল। কেন সেখানে চাকরি নেয় বলে অভিযোগ করা হয়েছিল। দিল্লিতেও একই কথা শোনা গিয়েছিল। এবার মধ্যপ্রদেশে।

তিন রাজ্যে কংগ্রেসের সাফল্যের পর  জোটে ফাটল লক্ষ্য করা যাচ্ছে। তিন রাজ্যে শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে মায়াবতী-অখিলেশের মতো গুরুত্বপূর্ণ নেতারা যাননি । আবার রাফাল নিয়ে কংগ্রেসের ভিন্নসুর শোনা গিয়েছে অখিলেশের মুখে। এদিন আবার তিনি কংগ্রেসের মুখ্যমন্ত্রীর বিরোধিতায় সরব হলেন। যদিও কংগ্রেসের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে , মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্যের ভুল ব্যাখ্যা করা হচ্ছে । তিনি ওভাবে বিষয়টি বলতে চাননি । তিনি মধ্যপ্রদেশে বেকার সমস্যার সমাধানে বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণের কথা বলতে চেয়েছেন । তবে আজ রাহুল গান্ধীকে সাংবাদিকরা এ নিয়ে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন ,বিষয়টি নিয়ে তিনি কমলনাথের সঙ্গে কথা বলবেন ।


শেয়ার করুন
  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment