দেশ 

শিখ বিরোধী হিংসায় জড়িত থাকার অভিযোগে কংগ্রেস নেতা সজ্জন কুমারের যাবজ্জীবন কারাদন্ড দিল দিল্লি হাইকোর্ট

শেয়ার করুন
  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : ১৯৮৪ সালে ইন্দিরা গান্ধী হত্যার বদলায় শিখ বিরোধী হিংসা সংঘটিত হয় দিল্লিতে । এই ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে  যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হল কংগ্রেস নেতা সজ্জন কুমারের। আজ দিল্লি হাইকোর্ট এই রায় দেয়। রায় দিতে গিয়ে দিল্লি হাইকোর্ট বলে, সমস্ত বাধা অতিক্রম করে সত্য প্রকাশিত হবেই। অপরাধীরা রাজনৈতিক সমর্থন পাচ্ছে বলেও মন্তব্য করে। দোষী সজ্জন কুমারকে ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

১৯৮৪ সালে শিখ বিরোধী হিংসায় মৃত্যু হয় প্রায় ২৮০০ জনের। তার মধ্যে ২১০০ জনের মৃত্যু হয় দিল্লিতে। ঘটনায় মূল অভিযুক্ত ছিলেন কংগ্রেস নেতা সজ্জন কুমার। আজ রায় দেওয়ার সময় বিচারপতি এস মুরুলিধর এবং বিচারপতি বিনোদ গোয়েলের ডিভিশন বেঞ্চ বলে, “সেই ঘটনার রেশ এখনও অনুভূত হয়।”

চলতি বছরের ২৯ অক্টোবর শেষ হয় এই মামলার শুনানি। শুনানি চলাকালীন চাম কাউর নামে এক সাক্ষী বলেন, ঘটনার দিন সজ্জন কুমারকে দিল্লিতে বক্তব্য দিতে দেখেছেন তিনি। শিখরা আমাদের মাকে হত্যা করেছে। বক্তব্য দেওয়ার সময় সজ্জন কুমার এই ধরনের মন্তব্য করেছিলেন বলে ওই সাক্ষী জানিয়েছেন।

চাম কাউর ছাড়াও শীলা কাউর নামে ঘটনার আরও একজন সাক্ষী রয়েছেন। যিনি আদালতকে জানিয়েছেন, সুলতানপুর এলাকায় সজ্জন কুমারকে উসকানিমূলক মন্তব্য করতে দেখেছেন।

এর আগে এই মামলায় সজ্জন কুমারকে রেহাই দিয়েছিল নিম্ন আদালত। সেই রায়কে চ্যালেঞ্জ করে দিল্লি হাইকোর্টে মামলা দায়ের করে মৃতের পরিজনরা।


শেয়ার করুন
  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment