কলকাতা 

রাজ্যের মুখ্য সচিবকে ফের তলব করল কলকাতা হাইকোর্ট, এবার হাজিরা না দিলে কড়া পদক্ষেপ

শেয়ার করুন

বাংলার জনরব ডেস্ক : নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় রাজ্যের মুখ্য সচিবের সবুজ সংকেত না পাওয়ার কারণে শিক্ষা দফতরের একাধিক আধিকারিকের বিরুদ্ধে বিচার প্রক্রিয়া শুরু করা যাচ্ছে না বলে কলকাতা হাইকোর্টে অভিযোগ করে কেন্দ্রীয় এজেন্সি সিবিআই । কেন্দ্রীয় এজেন্সির এই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে রাজ্যের মুখ্য সচিবের কাছে কেন অনুমতি দেওয়া হচ্ছে না তা জানতে চেয়েছিল কলকাতা হাইকোর্ট। সশরীরে মুখ্য সচিব কে হাইকোর্টে তলব করেছিলেন বিচারপতি, জয়মাল্য বাগচীর ডিভিশন বেঞ্চ। কিন্তু আজ মঙ্গলবার মুখ্য সচিব জানিয়ে দিয়েছেন নির্বাচনের কাজে ব্যস্ত থাকার কারণে তিনি এখনই আদালতে হাজির হতে পারছেন না।

মুখ্য সচিবের এই ব্যাখ্যায় অসন্তোষ ব্যক্ত করে কলকাতা হাইকোর্ট। বিচারপতি বাগচী মন্তব্য করেন, ‘‘তদন্ত এবং বিচার প্রক্রিয়া মসৃণ ভাবে চলছে কি না, সেটা দেখা আদালতের কাজ। যদি দেখা যায় সেখানে কোনও বাধা আসছে, তবে তা সরানোর কাজ করতে হবে।’’

Advertisement

উল্লেখ্য, নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় সিবিআইয়ের হাত থেকে জামিন চেয়ে হাই কোর্টে আবেদন করেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়েরা। ওই জামিনের বিরোধিতা করে সিবিআই জানায়, রাজ্যের মুখ্যসচিবের অনুমতি দেননি, তাই অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে বিচার প্রক্রিয়া শুরু করা যায়নি। তারা বার বার রাজ্যের কাছে আবেদন করেছে। কিন্তু কোনও জবাব মেলেনি। ১০ মাস ধরে ওই আবেদন পড়ে রয়েছে। তার পরই বিষয়টি নিয়ে আদালতের দৃষ্টি আকর্ষণ করে সিবিআই। গত মাসে প্রথম বার আদালত মুখ্যসচিবকে নিজের অবস্থান জানাতে নির্দেশ দেয়। অভিযোগ, এত দিনেও ওই নির্দেশ কার্যকর করতে পারেননি মুখ্যসচিব।

এদিন,বিচারপতি বাগচীর পর্যবেক্ষণ, ‘‘নির্বাচনের সঙ্গে মুখ্যসচিবের এই সিদ্ধান্ত গ্রহণের কোনও সম্পর্ক নেই। অযথা এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে তিনি দেরি করছেন। তিনি এই মামলার গুরুত্ব বুঝতে ব্যর্থ হয়েছেন। মুখ্যসচিব নিজের বিধিবদ্ধ দায়িত্ব পালন করতে পারেননি।’’ পাশাপাশি আদালতের মন্তব্য, ‘‘আমাদের কি এটা ধরে নিতে হবে যে এই অভিযুক্তরা এতই প্রভাবশালী যে, রাজ্যের মুখ্যসচিবও বিচার শুরু করার বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে পারছেন না? এই দুর্নীতির শিকড় অনেক গভীরে রয়েছে এবং অনেক উচ্চপদস্থ কর্তার বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে। এটা মাথায় রাখতে হবে মুখ্যসচিবকে। তাই বিচারের কাজে সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে মুখ্যসচিবকে প্রভাবমুক্ত থাকতে হবে।’’

মঙ্গলবার আদালত মুখ্যসচিবকে চতুর্থ বারের জন্য সময় দেয় আদালত। বিচারপতি জয়মাল্য বাগচীর ডিভিশন বেঞ্চ জানায়, আগামী ২ মে-র মধ্যে তাঁকে বিচার প্রক্রিয়া শুরুর অনুমতি নিয়ে অবস্থান জানাতে হবে। শেষ বারের মতো মুখ্যসচিবকে অবস্থান জানাতে বলা হচ্ছে। আদালত আরও জানায়, এ বারেও যদি বিচার প্রক্রিয়া শুরু করার অনুমতি মুখ্যসচিব না দেন, তবে আদালতই সেই কাজ করতে বাধ্য হবে। এমনকি, ওই মর্মে প্রয়োজনীয় নির্দেশিকা জারি করবে আদালত।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত নিবন্ধ