জেলা 

”বিজেপির একটাই নীতি, ওয়ান নেশন, ওয়ান পলিটিক্যাল পার্টি” : মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক :  বিজেপি দল দেশে একদলীয় শাসন প্রতিষ্ঠা করতে চাইছে আজ বৃহস্পতিবার মাথাভাঙার সভা থেকে বিস্ফোরক অভিযোগ করলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। তাঁর অভিযোগ,”বিজেপির একটাই নীতি। ওয়ান নেশন, ওয়ান পলিটিক্যাল পার্টি।” মমতার দাবি, বিজেপির শাসন মানে আসলে এজেন্সিরাজ।

ভোটের মুখে, এমনকী নির্বাচনী আচরণ বিধি (MCC) চালু হওয়ার পরও যেভাবে কেন্দ্রীয় এজেন্সিগুলি সক্রিয়, তা সাম্প্রতিক অতীতে ভারতীয় রাজনীতিতে নজিরবিহীন। প্রায় প্রতিদিনই কোনও না কোনও বিরোধী নেতা ইডি, সিবিআই, আয়কর বিভাগের মতো কেন্দ্রীয় এজেন্সির নজরে পড়ছেন। বিরোধীদের অভিযোগ, সবটাই করা হচ্ছে বিরোধীদের দুর্বল করতে। সেই অভিযোগই তৃণমূল সুপ্রিমো করলেন। মমতা এদিন মাথাভাঙা থেকে বললেন, “ভোটের আগে বাড়ি বাড়ি গিয়ে কেন্দ্রীয় এজেন্সি ভয় দেখাচ্ছে। বলছে বিজেপিতে যোগ না দিলে গ্রেফতার হতে হবে।”

Advertisement

নির্বাচনে বিরোধীদের লড়াই করার মতো সুযোগ দেওয়া হচ্ছে না। শাসক ও বিরোধীদের লড়াই অসম। সেই অভিযোগই যেন শোনা গেল মমতার মুখে। তিনি বললেন, “সিআইএসএফ (CISF), আয়কর (IT), এনআইএ কীভাবে বিজেপির (BJP) ইশারায় মানুষের উপর অত্যাচার করছে। মানুষকে হেনস্তা করছে। সেটা কখনওই শাসক বিরোধীকে সম লড়াইয়ের সুযোগ দিতে পারে না। নির্বাচন কমিশনের কাছে আমার অনুরোধ, এই বিষয়টি দেখুন। “

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (Narendra Modi) স্লোগান দিয়েছেন, ‘আব কি বার ৪০০ পার।’ বিজেপির জন্য ৩৭০ আসন, এবং এনডিএ জোটের জন্য ৪০০ আসনের টার্গেট দিয়েছেন মোদি। বিরোধীদের অভিযোগ ছিল, বিজেপি ৪০০ আসন চাইছে সংবিধান বদলে দিতে। জনা কয়েক বিজেপি নেতা সেটা প্রকাশ্যে মেনেও নিয়েছেন। কংগ্রেস-সহ অন্য বিরোধীরা এতদিন বলে আসছিলেন, এবারের লোকসভা নির্বাচনের পরই সংবিধান বদলে দেবে বিজেপি। আর গণতন্ত্র বলে কিছু থাকবে না। নাগরিকদের ভোটাধিকার কেড়ে নেওয়া হবে। মমতার মুখেও যেন এদিন সেই অভিযোগই প্রতিধ্বনিত হল। মমতার স্পষ্ট ইঙ্গিত করলেন, বিজেপি চাইছে একদলীয় স্বৈরাচারী শাসন।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ