দেশ 

ম্যাচ ফিক্সিং না করলে ১৮০ আসন পাবে না বিজেপি : রাহুল গান্ধী

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বিশেষ প্রতিনিধি : ম্যাচ ফিক্সিং করে জেতার চেষ্টা করছে বিজেপি। ম্যাচ ফিক্সিং মানে খেলার মাঠের আম্পায়ারকে নিজের অনুগত করা হয়েছে ,প্লেয়ারদের কিনে নেওয়া হয়েছে, আর ক্যাপ্টেনকে ধমক দেওয়া হচ্ছে, এভাবেই নির্বাচন জিততে চাইছে মোদীজি। আম্পায়ার নিজের মনোনীত ব্যক্তি আর বিরোধীদের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ক্লোজ করে দিয়ে তাদেরকে আর্থিক দিক দিয়ে দুর্বল করা হচ্ছে। অন্যদিকে বিরোধী নেতাদের নানা অজুহাতে জেলে ঢোকানো হচ্ছে। আজ আজ রবিবার দিল্লির রামলীলা ময়দানে আয়োজিত লোকতন্ত্র বাঁচাও বা গণতন্ত্র বাঁচাও সমাবেশে বক্তব্য রাখতে গিয়ে এই কথাগুলি বলেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। তিনি আরো বলেন যদি দেশে সুষ্ঠু অবাধ এবং নিরপেক্ষ নির্বাচন হয় তাহলে বিজেপি ১৮০ টি আসন পাবে না।

রামলীলা ময়দানে ইন্ডিয়া জোটের বিরাট সমাবেশে কার্যত জনসমুদ্রে পরিণত হয় এটা দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের গ্রেফতারি এবং ঝাড়খণ্ডের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সরেনের গ্রেফতারের প্রতিবাদে এই সভার আয়োজন করা হয়েছিল। এই সভাতেই বক্তব্য রাখতে গিয়ে অরবিন্দ কেজরিওয়াল এবং হেমন্ত সরেনের অবিলম্বে মুক্তির দাবি জানিয়ে রাহুল গান্ধী উপস্থিত জনতা কে লক্ষ্য করে বলেন যে আগামী নির্বাচন একটা সাধারণ নির্বাচন নয় এটা গণতন্ত্র বাঁচানোর নির্বাচন। দেশের সংবিধান বাঁচানোর নির্বাচন আমরা যদি সকলে একসঙ্গে এই ব্যাপারে উদ্যোগী হয় তাহলে বিজেপিকে হারানো সম্ভব হবে।

Advertisement

না হলে বিজেপি ম্যাচ ফিক্সিং এর মাধ্যমে জিতে যাবে আর একবার যদি ৪০০ আসনের বেশি পেয়ে যায় তাহলে দেশের সংবিধান বদলে যাবে। বেশ এক গভীর সংকটের মধ্যে নিমজ্জিত হবে। তাই আমাদের সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে হবে।

উল্লেখ্য এদিনের সমাবেশে বিরোধীদলের সব নেতায় উপস্থিত ছিলেন। আর জে ডি নেতা তেজস্বী যাদ ব যাদব এন সি পি নেতা শারদ পাওয়ার ন্যাশনাল কনফারেন্সের ফারুক আব্দুল্লাহ, পি ডি পির মেহবুবা মুফতি, কংগ্রেস নেতা সোনিয়া গান্ধী মল্লিকা অর্জুন খারগে, অরবিন্দ কেজরিওয়ালের স্ত্রী সুনিতা কেজরিওয়াল এবং ঝাড়খণ্ডের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সরেনের স্ত্রী কল্পনা সোরেন প্রমুখ।

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ