প্রচ্ছদ 

বিহারে মহাগঠবন্ধন সম্পূর্ণ! তবে হাত প্রতীকে পূর্ণিয়ায় লড়াই করবেন পাপ্পু!

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : কংগ্রেস আরজেডি ও অন্যান্য বামপন্থী দলগুলোকে নিয়ে মহাগঠবন্ধন মসৃণভাবে সম্পূর্ণ হয়েছে। তবে দুটি ক্ষেত্রে কংগ্রেসের দাবি মানেনি লালু প্রসাদ যাদব তা হল পূর্ণিয়া আসন এবং বেগুসরাই আসন এই দুটি আসনে কংগ্রেস প্রার্থী করতে চেয়েছিল পাপ্পু যাদব ও কানাইয়া কুমারকে। কিন্তু আজ শনিবার পাপ্পু যাদব সাংবাদিকদের বলেছেন তিনি হাত প্রতীক নিয়ে কংগ্রেস দলের টিকিট পূর্ণিয়া আসন থেকে লড়াই করবেন। যদি এই ঘটনা ঘটে তাহলে লালুপ্রসাদ যাদবের দলের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ লড়াই হবে এই আসনটিতে।

উল্লেখ্য পশ্চিমবঙ্গ সীমান্তবর্তী এলাকা বিহারের এই জায়গাটিতে বেশ জনপ্রিয় পাপ্পু যাদব। পূর্ণিয়ার পাশের লোকসভা আসন থেকেই ২০১৪ লোকসভা নির্বাচনে পাপ্পুর স্ত্রী রঞ্জনা জয়ী হয়েছিলেন।

Advertisement

পাপ্পু শনিবার বলেন, ‘‘আমার কাজ পূর্ণিয়াবাসীর জন্য সমর্পিত। এই আসনে আমি কংগ্রেসের টিকিটের লড়ব এবং কংগ্রেসকে জয়ী করব।’’ কংগ্রেসের তরফে বার বার দাবি জানানো হলেও, পূর্ণিয়া আসনটি ‘বাহুবলী’ প্রাক্তন সাংসদ পাপ্পুকে ছাড়েনি লালুপ্রসাদ, তেজস্বী যাদবের দল আরজেডি।

এই পরিস্থিতিতে পাপ্পুর নির্দল হিসাবে লড়ার ঘোষণা পূর্ণিয়ায় দুই জোট শরিকের বন্ধুত্বপূর্ণ লড়াইয়ের সম্ভাবনা উস্কে দিয়েছে। যদি পাঁচ বারের সাংসদ পাপ্পু জানিয়েছেন, শেষ পর্যন্ত সনিয়া, রাহুল বা প্রিয়ঙ্কা গান্ধীর তরফে কোনও বার্তা এলে দলের শৃঙ্খলাবদ্ধ সৈনিক হিসাবে তিনি তা মেনে নেবেন।

গত ২৪ মার্চ পটনার প্রদেশ কংগ্রেস দফতরে এআইসিসির পর্যবেক্ষক পবন খেড়ার উপস্থিতিতে তাঁর দল জন অধিকার পার্টিকে কংগ্রেসে মিশিয়ে দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছিলেন পাপ্পু। তার আগে লালুর সঙ্গেও দেখা করতে গিয়েছিলেন তিনি। কোশী-সীমাঞ্চল এলাকার নেতা পাপ্পুর প্রভাব পূর্ণিয়ার পাশাপাশি সুপৌল আসনেও রয়েছে। তাঁর স্ত্রী রঞ্জিতা রঞ্জন ২০১৪-১৯ এই কেন্দ্রের কংগ্রেস সাংসদ ছিলেন।

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ