দেশ 

বিজেপির সঙ্গে জোট করার জেরে জেডিএসে ভাঙন! শক্তি বৃদ্ধি কংগ্রেসের

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : কর্নাটকে বিজেপির ভাঙ্গন যেমন অব্যাহত একই রকম ভাবে বিজেপির জোট সঙ্গী জনতা দল সেকুলার বড় ভাঙ্গনের মুখে পড়েছে। প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী এইচডি দেবেগৌড়ার প্রতিষ্টিত এই রাজনৈতিক দল কর্নাটকের হিন্দু মুসলমান উভয় সম্প্রদায়ের কাছেই জনপ্রিয় তা অর্জন করেছিল। কিন্তু লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির সঙ্গে জোট বাধার কারণে এর আগে এক ঝাঁক প্রভাবশালী দলীয় নেতা পদত্যাগ করে। জনতা দল সেক্যুলারের মহিলা মোর্চার প্রাক্তন কার্যনির্বাহী সভানেত্রী নাজমা নাজির কংগ্রেসে যোগ দিলেন।

জেডিএসের মহিলা শাখার প্রাক্তন কার্যনির্বাহী সভানেত্রী তথা ‘মুসলিম মহিলা মুখ’ হিসাবে পরিচিত নাজ়মা নাজ়ির চিক্কনরালে শুক্রবার যোগ দিলেন কংগ্রেসে। কর্নাটকের উপমুখ্যমন্ত্রী ডিকে শিবকুমারের উপস্থিতিতে দলবদলের কথা ঘোষণা করে তিনি বলেন, ‘‘২২ বছর বয়সে দেবগৌড়াজির নেতৃত্বে রাজনীতি শুরু করেছিলাম। কিন্তু সাম্প্রদায়িক বিজেপির সঙ্গে জোট মেনে নিতে পারলাম না। তাই এই সিদ্ধান্ত।’’

Advertisement

দক্ষিণ কর্নাটকের পুরনো মাইসুরু এলাকায় সংখ্যালঘু ভোটে নাজ়মার এই দলবদল প্রভাব ফেলবে বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের একাংশ। পেশায় চিকিৎসক নাজ়মা কর্নাটকে ২০২০ সালে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ) বিরোধী আন্দোলনের অন্যতম সংগঠক ছিলেন।

প্রসঙ্গত, গত অক্টোবরে কুমারস্বামী বিজেপির সঙ্গে জোট গঠনে সক্রিয় হওয়ার পরেই প্রতিবাদ জানিয়ে দল ছেড়েছিলেন জেডিএসের কর্নাটক শাখার সভাপতি তথা প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী সিএম ইব্রাহিম-সহ কয়েক জন সংখ্যালঘু নেতা। এ বার লোকসভা ভোটে কর্নাটকের ২৮টি আসনের মধ্যে জেডিএসকে মাত্র তিনটি আসন ছেড়েছে বিজেপি। যা নিয়ে ক্ষোভ রয়েছে দেবগৌড়ার দলের অন্দরে।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ