কলকাতা 

ভারতীয় বিজ্ঞান কংগ্রেসের নতুন সভাপতি নির্বাচিত হলেন অধ্যাপক ড. গৌতম পাল  

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ফারুক আহমেদ : অধ্যাপক ড. গৌতম পাল ভারতীয় বিজ্ঞান কংগ্রেসের নতুন সভাপতি হলেন ২০২৪-২০২৫ সালের জন্য। কল্যাণী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের গবেষক ও কল্যাণী বিশ্ববিদ্যালয়ের নিউজ লেটার ইনচার্জ ফারুক আহমেদ বৃহস্পতিবার ফিজিওলজি বিভাগের অধ্যাপক ড. গৌতম পাল-এর দফতরে তাঁকে সংবর্ধনা দিয়ে শুভেচ্ছা জানান। এদিন কল্যাণী বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিজিওলজি বিভাগের উদ্যোগেও অধ্যাপক ড. গৌতম পালকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। উপস্থিত ছিলেন ফিজিওলজি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ড. শুভাশিস সাহু, পি. জি. ফ্যাকাল্টি কাউন্সিল সেক্রেটারি ড. পিনাকী চট্টোপাধ্যায়, সহ অর্থ আধিকারিক অঞ্জন কুমার দাস। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ফিজিওলজি বিভাগের গবেষক ও ছাত্রছাত্রীরা।

ভারতীয় বিজ্ঞান কংগ্রেসের সভাপতি পদে নির্বাচিত হলেন প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ সভাপতি অধ্যাপক ড. গৌতম পাল। শারীরবিদ্যার অধ্যাপক ড. গৌতম পাল আর্সেনিক নিয়ে গবেষণার জন্য ডিএসসি উপাধি পেয়েছিলেন। সারা ভারতে ফিজিওলজির অধ্যাপক হিসেবে একসঙ্গে পিএইচডি এবং ডিএসসি ডিগ্রি পাওয়ার কৃতিত্বও বিরল। এর আগে যাঁরা শতাধিক বর্ষের পুরনো বিজ্ঞান সংস্থার সভাপতির পদ অলংকৃত করেছেন তাঁদের মধ্যে আছেন স্যার আশুতোষ মুখোপাধ্যায়, আচার্য প্রফুল্ল চন্দ্র রায়, সত্যেন্দ্রনাথ বোস, প্রশান্ত চন্দ্র মহলানবীশ, ডাঃ বিধানচন্দ্র রায়, অসীমা চট্টোপাধ্যায়, পণ্ডিত জওহরলাল নেহরু প্রমুখ। এবার সেই তালিকায় যুক্ত হল অধ্যাপক ড. গৌতম পালের নাম। প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের দায়িত্ব সামলানোর আগে তিনি কল্যাণী বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ-উপাচার্যের দায়িত্ব সামলেছেন, ওই বিশ্ববিদ্যালয়ে ডিনের পদেও আসীন ছিলেন তিনি। ছাত্র হিসেবে অত্যন্ত মেধাবী ছিলেন। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে বিজ্ঞান বিভাগে স্নাতকোত্তর শ্রেণিতে প্রথম বিভাগে প্রথম হয়েছিলেন। পরবর্তী কালে ফিজিওলজিক্যাল সোসাইটি অব ইন্ডিয়া এবং সাউথ এশিয়ান অ্যাসোসিয়েশন অব ফিজিওলিজিস্ট-এর সহ-সভাপতির মতো বিভিন্ন পদের দায়িত্ব সামলেছেন তিনি। দায়িত্ব পেয়ে অধ্যাপক ড. গৌতম পাল বলেন, বাঙালি হিসেবে গর্বিত। ১১০তম সভাপতি হলাম। বাঙালি জাতির প্রতিনিধিত্ব করতে পেরে নিজেকে গর্বিত মনে করছি।

Advertisement

ভারতীয় বিজ্ঞান কংগ্রেস অ্যাসোসিয়েশনের দুটি বিভাগে সভাপতি নির্বাচিত হয়েছিলেন অধ্যাপক গৌতম পাল এর আগেই। অধ্যাপক গৌতম পাল ২০২০-২০২১ সালের জন্য ভারতীয় বিজ্ঞান কংগ্রেস অ্যাসোসিয়েশনের মেডিক্যাল সায়েন্সেস এবং ফিজিওলজি বিভাগে সভাপতি নির্বাচিত হয়েছিলেন। দায়িত্ব পালন করেছেন দক্ষতার সঙ্গে।

কল্যাণী বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ উপাচার্যের প্রথম দায়িত্ব পালন করেছিলেন অধ্যাপক গৌতম পাল। তিনি ২০১৯ সালে সহ উপাচার্যের দায়িত্ব পাওয়ার পর তাঁর মেয়াদ শেষ করেছেন। বর্তমানে পশ্চিমবঙ্গ প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের প্রেসিডেন্ট পদে আছেন অধ্যাপক ড. গৌতম পাল।

ড. গৌতম পাল কল্যাণী বিশ্ববিদ্যালয়ের শারীরবিদ্যা বিভাগের বরিষ্ঠ শিক্ষক এবং বিজ্ঞান অনুষদের প্রাক্তন ডিন। তিনি একজন অসাধারণ শিক্ষক এবং বিজ্ঞানী। শিক্ষক, বিজ্ঞানী ও লেখক হিসেবে তাঁর খ্যাতি রয়েছে গোটা বিশ্বব্যাপী।

দীর্ঘ ৩৫ বছর তিনি কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষণ এবং গবেষণার সঙ্গে যুক্ত। তাঁর অধীনে বহু স্নাতকোত্তর এবং পিএইচ.ডি. স্তরের ছাত্র-ছাত্রীরা গবেষণা করে ভারত এবং বিদেশের কলেজে এবং বিশ্ববিদ্যালয়ে সম্মানজনক পদে আসীন হয়েছেন। সেই সঙ্গে সমান্তরালভাবে সাফল্যের সঙ্গে চালিয়ে যাচ্ছেন তাঁর গবেষণার কাজ ও লেখালিখি। তাঁর স্নেহধন্য অনেক ছাত্র এবং গবেষক সারা ভারতবর্ষের বিভিন্ন জায়গায় আজ সাফল্যের সঙ্গে কৃতিত্বের ছাপ রাখছেন প্রতিনিয়ত। তাঁর প্রকাশিত গবেষণা প্রবন্ধের সংখ্যা প্রায় ১৮৭টি এবং তিনি বিজ্ঞানের উপর বই লিখেছেন ১২টি।

পরিবেশ বিজ্ঞানের পাঠক্রম তৈরি এবং পরিবেশ বিজ্ঞানের গবেষণায় সমগ্র ভারতবর্ষের নিরিখে তাঁর অবদান চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে। তিনি বিজ্ঞান চর্চায় গ্রন্থ রচনা করে ভারতবর্ষের পাশাপাশি গোটা পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তে সুখ্যাতিপ্রাপ্ত ও জনপ্রিয় হয়েছেন।

পরিবেশ ও জলবায়ু পরিবর্তন বিজ্ঞানের উপর বাংলা ভাষায় রচিত তাঁর এক হাজার পৃষ্ঠার উপরের বইটি দীর্ঘ চব্বিশ বছর যাবত্‍ বহু পাঠক, ছাত্র-ছাত্রী গবেষকদের সুখপাঠ্য হিসাবে বিবেচিত রয়েছে।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ