দেশ 

লোকসভা ভোটের মুখে আর্থিক সংকটে কংগ্রেস! ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট ফ্রিজ!

শেয়ার করুন

বাংলার জনরব ডেস্ক : লোকসভার নির্বাচনের প্রাক মুহুর্তে প্রচন্ড আর্থিক সংকটে ভুগছে দেশের সবচেয়ে প্রাচীন রাজনৈতিক দল জাতীয় কংগ্রেস। কংগ্রেসের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ফ্রিজ করে দিয়েছে আয়কর দফতর। ফলে টাকা থাকা সত্ত্বেও খরচ করতে পারছে না জাতীয় কংগ্রেস এই অভিযোগ করেছে জাতীয় কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি মল্লিকার্জুন খাড়গে (Mallikarjun Kharge)।

তাঁর অভিযোগ, যে ব্যাঙ্কে জনতার দেওয়া অনুদান জমা ছিল, সেটিকে ফ্রিজ করে দিয়েছে বিজেপি (BJP) পরিচালিত এনডিএ সরকার। এমনকী বিশাল অঙ্কের জরিমানা করেছে আয়কর দফতর।

Advertisement

গত ১৬ ফেব্রুয়ারি কংগ্রেসের (Congress) প্রধান ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট ফ্রিজ করে দেয় আয়কর বিভাগ। এর পর গত ২১ ফেব্রুয়ারি কংগ্রেসের কোষাধ্যক্ষ অজয় মাকেন অভিযোগ করেন, আয়কর দফতর (IT) নিয়ম-বহির্ভূত ভাবে তাদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টগুলি থেকে ৬৫ কোটি টাকা জরিমানা হিসাবে কেটে নিয়েছে। এর বিরুদ্ধে আয়কর ট্রাইব্যুনালে আবেদনও করেছিল কংগ্রেস। ট্রাইব্যুনাল প্রাথমিকভাবে কংগ্রেসের সব অ্যাকাউন্ট খুলে দেওয়ার নির্দেশ দেয়। কিন্তু চূড়ান্ত রায়ে জানায়, কংগ্রেসের যে কর বকেয়া আছে, সেটা দিতেই হবে। এমনকী আরও প্রায় ৭০ কোটি টাকা আয়কর দফতরের কাছে বকেয়া হাত শিবিরের। এখন ওই টাকা লোকসভার আগে মেটাতে হলে বিরাট ধাক্কা খাবে কংগ্রেস। এই অবস্থায় দিল্লি হাই কোর্টে আয়কর ট্রাইব্যুনালের বিরুদ্ধে মামলা করেছে কংগ্রেস।

এদিন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং বিজেপিকে নিশানা করেন কংগ্রেস সভাপতি খাড়গে। দেশবাসীর উদ্দেশ্যে তাঁর বার্তা লোকসভা নির্বাচনে কংগ্রেসের পাশে শক্তিশালী হয়ে দাঁড়ান। দেশের সংবিধান ও গণতন্ত্রকে “বাচানোর” জন্য দলের জয় নিশ্চিত করুন। পাশাপাশি আয়কর বিভাগকে কংগ্রেসের বিরুদ্ধে ব্যবহার করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন কংগ্রেস সভাপতি। খাড়গে বলেন, ‘অন্যদিকে ওরা সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ সত্ত্বেও নির্বাচনী বন্ডের মাধ্যমে তোলা হাজার হাজার কোটি টাকা প্রকাশ্যে আনতে নারাজ।’


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত নিবন্ধ