কলকাতা 

জন্ম শংসাপত্রে জন্মদাতা বাবার নাম বাদ দিয়ে সৎ বাবার নাম দেওয়ার নির্দেশ দিল কলকাতা হাইকোর্ট ! নেপথ্যে রহস্য?

শেয়ার করুন

বাংলার জনরব ডেস্ক : জন্মদাতা বাবা জন্মের পরেই সন্তানকে ত্যাগ করেছিলেন মা অন্যত্র বিয়ে করেন। আর ওই সন্তান প্রথম থেকে সৎ বাবাকে নিজের বাবা বলে জেনে এসছে। কিন্তু জন্মসংসাপত্রে আসল বাবার নামই ছেপেছে কলকাতা পৌরসভা। তা নিয়ে এবার হস্তক্ষেপ করল কলকাতা হাইকোর্ট। কারণ সৎ বাবার নাম জন্মসংসাপত্র দেওয়ার আবেদন করে কলকাতা হাইকোর্টে দ্বারস্থ হয়েছিলেন সন্তানের মা। সেই আবেদনে সারা দিয়ে কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি অমৃতা সিনহা নির্দেশ দিয়েছেন আসল বাবার নাম বাদ দিয়ে সৎ বাবার নাম শংসাপত্রের দেওয়ার জন্য।

আদালত সূত্রে জানা গিয়েছে, মহিলার প্রথম স্বামী ওই শিশুর জন্মদাতা পিতা। যদিও সেই দাম্পত্য ভেঙে যায়। পরে দ্বিতীয় স্বামীর সঙ্গে ঘর বাঁধেন মহিলা। সেই ব্যক্তিকেই বাবা হিসাবে চিনতে শেখে শিশু। যদিও শিশুর বার্থ সার্টিফিকেটে ‘আসল’ বাবার পদবি ব্যবহার করা হয়েছিল। যা পরিবর্তনের আর্জি জানান আবেদনকারী। সেই দাবিকেই স্বীকৃতি দিল কলকাতা হাইকোর্ট। বিচারপতি অমৃতা সিনহা কলকাতা মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনকে নির্দেশ দিয়েছেন, যাতে ওই শিশুর জন্ম সংক্রান্ত শংসাপত্র পুনরায় ইস্যু করা হয়।

Advertisement

গোটা বিষয়ে বিচারপতির পর্যবেক্ষণ, ব্যক্তিগত বিষয় নিয়ে ‘হাইপার টেকনিক্যাল’ হওয়ার দরকার নেই। বর্তমান পরিস্থিতির সঙ্গে খাপ খাইয়ে ওই শিশুর জন্ম সংক্রান্ত নথি সংশোধন করা দরকার। তা না হলে আগামী দিনে ওই শিশু ও তার পরিবার একাধিক অস্বস্তিকর পরিস্থিতির মুখে পড়তে পারে। প্রত্যেক মানুষের উপযুক্ত মর্যাদা ও সম্মানের সঙ্গে বাঁচার অধিকার রয়েছে।

উল্লেখ্য, শুরুতে সন্তানের শংসাপত্রে বাবার নাম বদলের জন্য পুরসভাকে জানিয়েছিলেন মহিলা। যদিও পুর কর্তৃপক্ষ তাতে মান্যতা দেয়নি। পুরসভার পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল একবার বার্থ সার্টিফিকেটে শিশুর নাম ও তার বাবার নাম যুক্ত হলে তা বদল করা যায় না।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত নিবন্ধ