অন্যান্য 

আরএসএসের আতুঁড় ঘরেই , কুপোকাৎ বিজেপি

শেয়ার করুন
  • 29
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বুলবুল চৌধুরি : মধ্যপ্রদেশে বিজেপি যে হেরে যাবে এটা হয়তো মোদী-অমিত শিবরাজ চৌহান ভাবতেই পারেননি । কৃষকদের বিদ্রোহ , দলিত আন্দোলন সব কিছুই ছিল তারপরেও বিজেপির আশা ছিল আরএসএসের উপর । কারণ দেশের মধ্যে এই একটি রাজ্যে আরএসএস তার শাখা-প্রশাখাকে পাড়ায় পাড়ায় বিস্তার করেছিল । আরএসএস চেষ্টার ত্রূটি রাখেনি । তা সত্ত্বে হেরে যেতে হল । কারণ দূনীর্তি স্বজন পোষণের অভিযোগ দিন দিন বাড়ছিল । ব্যাপম কেলেংকারির তদন্ত সিবিআইকে দেওয়া হলেও রাজনৈতিক প্রভার খাটিয়ে সেই তদন্ত অনেকটাই শিথিল গিয়েছিল । কিন্ত এই একটি কেলেংকারি রাজ্যে নাগরিকদের মনে ব্যাপক প্রভাব ফেলেছিল । সেটা হয়তো আরএসএস বুঝতে পারেনি । তারা হিন্দুত্বকে ঢাল করতে চেয়েছিল কিন্ত হিন্দুত্ব দিয়ে যে মানুষের মন পাওয়া যাবে না সেটা বুঝে উঠতে পারেনি আরএসএস ।

তাই সাংগঠনিক দিক থেকে কংগ্রেসের চেয়েও অনেক বেশি শক্তিশালী হলে জনতার রায়ে বিদায় নিতে হল আরএসএসের রাজনৈতিক সংগঠন বিজেপিকে । ১৫ বছরের জনপ্রিয় আধ্যাত্মিক মামাজিকে রেহাই দিল না মধ্যপ্রদেশের মানুষ । সন্ন্যাসী হলে হয়তো মানুষের কাছে তিনি এখনও সমানভাবে জনপ্রিয় থাকতেন কিন্ত রাজনীতির মোহে আপাদমস্তক ভদ্রলোক আজ মধ্যপ্রদেশে খলনায়কে পরিণত হল ।

কারণ বেকারত্ব । যুব সম্প্রদায়ের সঙ্গে বিজেপি যে বিশ্বাসভঙ্গ করেছে তারই প্রতিক্রিয়ায় সাধারণ মানুষ বিজেপিকে প্রত্যাখান করেছে । শুধু সাধারণ মানুষ কেন মধ্যপ্রদেশের সাধু-সন্তরা রীতিমত সাংবাদিক সম্মেলন করে ভোটের আগেই জানিয়ে দিয়েছিল তারা বিজেপির পাশে থাকবে না । কৃষকদের সমস্যা ১৫ বছরে মেটাতে পারেনি বিজেপি সরকার ও মামাজি । কৃষকরা আরও শোষিত হয়েছে , কৃষক আত্মহত্যার সংখ্যা দিনদিন বেড়ে গেছে । সব মিলিয়ে মধ্যপ্রদেশের পরিবর্তন এটা স্পষ্ট করছে সাধারণ মানুষ আর ধর্ম নিয়ে মেতে থাকতে চায় না । তারা চায় উন্নয়ন । যে উন্নয়ন কৃষকের ঘর থেকে শুরু করে শ্রমজীবী মানুষের ঘরে ঘরে পৌছে যাবে । সরকার কাজ হবে মন্দির কিংবা মসজিদ বানানোর নয় , সরকার হবে সাধারণ মানুষের উন্নয়নের সাথী এই শিক্ষা মধ্যপ্রদেশের মানুষ দেশবাসীকে দিয়ে গেল । আর এসএসএসকে বার্তা দিল রাম-মন্দির, ঐতিহাসিক স্থানের নাম পরিবর্তন করে নয়, মানুষের মন পেতে হলে তাকে উন্নয়নের রাজনীতি করতে হবে ।

 


শেয়ার করুন
  • 29
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment