কলকাতা 

বিধায়ক পদ ছেড়েই দিলেন তাপস রায়!

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : জল্পনাকে সত্যি করে তৃণমূল কংগ্রেসের বিধায়ক পদ থেকে পদত্যাগ করলেন তাপস রায়। যদিও তাপস রায় দীর্ঘদিন ধরে ডানপন্থী রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত। সোমেন মিত্র কে গুরু হিসাবে মানতেন একজন সৎ রাজনীতিবিদ হিসাবে বাংলার রাজনীতিতে এই পরিচিত মুখ। লোকসভা নির্বাচনের মুখে তাপস রায়ের এই পদত্যাগ নিঃসন্দেহে তৃণমূলকে চাপে রাখল। তবে তিনি অন্য কোন দলে যোগ দিচ্ছেন কিনা সেটা এখনো পরিষ্কার করেননি।

সোমবার সাংবাদিকদের সামনে একরাশ ক্ষোভ ঝরে পড়ল তাঁর কণ্ঠে। এছাড়াও তাঁর বাড়িতে ইডি অভিযান নিয়ে দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রতি অভিমান জানিয়ে বিধানসভায় গিয়েছিলেন বরানগরের বিধায়ক।

Advertisement

প্রসঙ্গত, সংকট কাটাতে সোমবার সাতসকালে তাপস রায়ের বাড়িতে পৌঁছে যান মন্ত্রী ব্রাত্য বসু এবং কুণাল ঘোষ। কুণাল ঘোষ এদিন বলেন, আমি প্রায়ই তাপসদার বাড়িতে আসি। আজও এসেছি। নানা বিষয়ে গল্পগুজব হয়।

এদিন তাপস বলেন, সন্দেশখালি ও দলের দুর্নীতির কারণে মুখ দেখাতে পারছেন না। শাহজাহানকে নিয়ে দল এবং শীর্ষ নেতৃত্ব প্রতিবাদ করলেও তাঁর সম্পর্কে একটি কথাও কেউ বলেননি। এই অবস্থায় তাঁর পক্ষে আর মেনে নেওয়া সম্ভব হচ্ছে না বলেও জানান তিনি।

বেশ কিছুদিন ধরেই রাজ্যের প্রবীণ বিধায়ক তাপস রায় দলবিরোধী কথাবার্তা বলছিলেন। দলীয় নেতৃত্বকেও কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়ে বেশ কিছু মন্তব্য করেছেন বরানগরের বিধায়ক। তাঁর প্রতি দলীয় ‘বঞ্চনা’র অভিমানের সুরও শোনা গিয়েছে তাপসের মুখে। সম্প্রতি কলকাতা উত্তরে সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়কে লোকসভার টিকিট দেওয়ার বিরোধিতা করে আসরে নামেন। তারপর থেকেই তাঁর সম্পর্কে দলের ভিতরে-বাইরে গুঞ্জন শোনা যাচ্ছিল দলত্যাগের সম্ভাবনা নিয়ে।

তৃণমূল সূত্রে জানা গিয়েছে, তাপস রায়কে লোকসভা ভোটের আগে দলত্যাগ না করতে বোঝাতেই গিয়েছিলেন তাঁরা। কারণ তাঁর মতো দীর্ঘদিনের মমতা-অভিষেকের সৈনিক দল ছাড়লে সাধারণ মানুষের কাছে ভুল বার্তা যাবে।

দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, অনেকদিন ধরেই তাপস রায় তার বরানগর কেন্দ্রে যাচ্ছেন না। উত্তর কলকাতা তাঁর হাতের তালুর মতো চেনা জায়গা। ফলে সুদীর্ঘকাল বিধায়ক পদে থেকে এবার নতুন ময়দানে খেলার বাসনা হয়েছে কিনা তা সময়ই বলবে।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ