দেশ 

তিন মাসেই দাম্পত্যের ইতি ! বেড়াতে গিয়ে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে স্বামীর মৃত্যু ! শোক সহ্য করতে না পেরে আত্মহত্যা স্ত্রীর

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : নব দম্পতি বেড়াতে গিয়েছিলেন। উত্তর প্রদেশ থেকে দিল্লী, দিল্লির এক চিড়িয়াখানায় বেড়াতে বেড়াতে গিয়ে পঁচিশ বছরের যুবক অভিষেক আলু ওয়ালিয়া হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যায় সোমবার। আকস্মিক এই ঘটনায় শোকে পাথর হয়ে যায় নববধূ। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে স্বামী হাসপাতালে মারা যাওয়ার পর স্বামীর মৃতদেহ দেখেই আটতলার আবাসন থেকে ঝাপ দিয়ে মারা গেলেন স্ত্রী অঞ্জলি। ঘটনায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে উত্তরপ্রদেশের এই অঞ্চলে।

ঘটনার বিবরণে জানা গিয়েছে, স্ত্রীকে সঙ্গে নিয়ে দিল্লির (Delhi) চিড়িয়াখানায় গিয়েছিলেন ২৫ বছরের অভিষেক আলুওয়ালিয়া। সোমবার চিড়িয়াখানায় গিয়ে আচমকাই তাঁর বুকে ব্যথা শুরু হয়। সঙ্গে সঙ্গেই হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় তাঁকে। অবস্থার অবনতি হতে গুরু তেগ বাহাদুর হাসপাতাল থেকে তাঁকে সফদরজং হাসপাতালে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু সোমবার বিকেলেই মৃত্যু হয় অভিষেকের। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে তাঁর মৃত্যু হয়েছে বলে জানান চিকিৎসকরা।

Advertisement

সোমবার রাতেই অভিষেকের দেহ তাঁর বাড়িতে ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। স্বামীর দেহ দেখে কান্নায় ভেঙে পড়েন অভিষেকের স্ত্রী অঞ্জলি। পরিবার সূত্রে খবর, স্বামীর দেহ দেখে আটতলায় বারান্দার দিকে দৌড়ে চলে যান তিনি। কিছু বুঝে ওঠার আগেই বারান্দা থেকে ঝাঁপ দেন। গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় তাঁকে। মঙ্গলবার সকালে মৃত্যু হয় অঞ্জলির।

অভিষেকের আত্মীয় জানান, “অভিষেকের দেহ বাড়িতে আনার পর থেকে পাশে বসে সমানে কেঁদে চলেছিল অঞ্জলি। আচমকাই উঠে চলে যায় বারান্দার দিকে। বুঝতে পেরেছিলাম ও ঝাঁপাবে, কিন্তু আটকানোর আগেই লাফ দিয়ে ফেলে।” গত ৩০ নভেম্বর বিয়ে হয়েছিল গাজিয়াবাদের যুগলের। মাত্র তিন মাসের মধ্যেই শেষ হয়ে গেল তাঁদের জীবন।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ