কলকাতা 

পশ্চিমবঙ্গ মাদ্রাসা পর্ষদের কর্মতৎপরতা আজ এক দৃষ্টান্ত

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মতিয়ার রহমান : পশ্চিমবঙ্গ মাদ্রাসা শিক্ষা পর্ষদের সভাপতি ডক্টর আবু তাহের কামরুদ্দিন মহাশয়ের সুদক্ষ ও বলিষ্ঠ নেতৃত্বে একদিকে যেমন পর্ষদের কাজকর্মে ডিজিটালাইজেশনের ছোঁয়া পেয়ে আগের চেয়ে অনেক বেশি গতি বৃদ্ধি পেয়েছে এবং সাথে সাথে হয়রানি ও কমেছে অপরদিকে প্রযুক্তির মোড়কে মুড়ে স্মার্ট ক্লাস ,কম্পিউটার শিক্ষা

,লাইফস্কিলএডুকেশন ,আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইত্যাদি বিষয় কে ছাত্রছাত্রীদের অবহিত করাতে তিনি আধুনিক ও যুগোপযোগী করে তুলেছেন গোটা মাদ্রাসা শিক্ষা ব্যবস্থাকে। পর্ষদের কাজকর্মে আজ মাদ্রাসা শিক্ষক থেকে শুরু করে ছাত্রছাত্রী এবং প্রশাসনিক কর্তা ব্যক্তিরা অত্যন্ত খুশি।কর্মতৎপরতার দৃষ্টান্ত স্বরূপ বলতে হয় ১৭ শে ফেব্রুয়ারি পর্ষদ পরিচালিত হাই মাদ্রাসা, আলিম ও ফাজিল পরীক্ষা শেষ হয়েছে। এরই মধ্যে ৯ ই এবং ১৯ শে ফেব্রুয়ারি এই দুদিন রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আগত এইচ ই অর্থাৎ প্রধান পরীক্ষকদের নিয়ে তিনি মাদ্রাসা পর্ষদের কনফারেন্স হলে উত্তরপত্র মূল্যায়ন নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা করেছেন।

Advertisement

পরীক্ষা শেষ হওয়ার পর থেকে আগামী তিন মাসের মধ্যে রেজাল্ট প্রকাশিত হওয়ার লক্ষ্য নিয়ে তিনি প্রধান পরীক্ষক থেকে শুরু করে পরীক্ষক এবং স্ক্রুটিনিয়ারদের উদ্দেশ্যে উত্তর-পত্র মূল্যায়নে পর্ষদ নির্ধারিত পদ্ধতি ,প্রধান পরীক্ষক পরীক্ষক এবং স্কুটিনিয়ারদের কি কি করণীয় এবং প্রধান পরীক্ষকরা পরীক্ষকদের নিয়ে কিভাবে মিটিং করবেন এবং কি কি নির্দেশ পরীক্ষকদের দেবেন সে বিষয়ে তিনি বিশদভাবে আলোচনা করেন ।তিনি বলেন অত্যন্ত সচেতনতার সাথে ছাত্র-ছাত্রীদের উত্তরপত্র মূল্যায়নের কাজ কি করতে হবে যাতে ত্রুটি বিচ্যুতির কোন জায়গা না থাকে ।তিনি আরো বলেন ছাত্র-ছাত্রীরা অত্যন্ত পরিশ্রম করে পরীক্ষা দিয়েছে তাই মূল্যায়নের সময় মার্কস দেয়ার বিষয়ে যাতে কোন ছাত্র-ছাত্রীদের প্রতি অবিচার এবং ভুলভ্রান্তির অবকাশ না থাকে সে বিষয়ে সকলকে তিনি মনে করিয়ে দিয়েছেন।

প্রধান পরীক্ষক পরীক্ষক এবং স্কুটিনিয়ারদের সাহায্যে নিয়ে আগেরবারের মতো এবারও নির্দিষ্ট সময়ই রেজাল্ট প্রকাশিত করে ছাত্রদের হাতে তুলে দিতে মাদ্রাসা পর্ষদ বদ্ধপরিকর। তাই যুদ্ধকালীন তৎপরতায় শুরু হয়েছে এই কর্মযজ্ঞ। তবে সকলের সহযোগিতায় যে এই কর্মযজ্ঞ সফল হবে সে কথা তিনি তার বক্তব্যে বুঝিয়ে দিয়েছেন

উনিশে ফেব্রুয়ারি সভায় উপস্থিত ছিলেন মাদ্রাসা পর্ষদের সচিব আব্দুল মান্নাফ আলী, উপসচিব আজিজার রহমান, ডেপুটি সেক্রেটারি শাবানা শামীম,এবং মাদ্রাসা পর্ষদ সদস্য তথা প্রধান পরীক্ষক শাকিলুর রহমান


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ