জেলা 

সন্দেশখালিতে অশান্তির জের তৃণমূলের জেলা পরিষদের সদস্য উত্তম সর্দারকে সাসপেন্ড করল দল, অভিষেকের নির্দেশেই বহিষ্কার জানালেন পার্থ

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : তৃণমূল কংগ্রেস নেতা এবং উত্তর চব্বিশ পরগনার জেলা পরিষদের সদস্য উত্তম সর্দারকে দল থেকে সাসপেন্ড করলো তৃণমূল । আজ শনিবার রেড রোডের ধর্ণা মঞ্চ থেকে একথা ঘোষণা করেন রাজ্যের মন্ত্রী পার্থ ভৌমিক।পার্থ জানিয়েছেন, দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশেই বর্তমানে ফেরার উত্তমকে সাসপেন্ড করার সিদ্ধান্ত। সন্দেশখালির এই তৃণমূল নেতাকে ছয় বছরের জন্য সাসপেন্ড করা হয়েছে।

সন্দেশখালিতে বিগত কয়েক দিন ধরে অশান্তির ঘটনা ঘটছে। গত ৫ জানুয়ারি সন্দেশখালিতে তৃণমূল নেতা শেখ শাহজাহানের বাড়িতে তল্লাশি চালাতে যায় ইডি। কিন্তু তল্লাশি তো দূর শাহজাহান অনুগামীদের তাণ্ডবে পালিয়ে বাঁচেন ইডির আধিকারিকরা। আহতও হন কয়েক জন। সেই ঘটনার পর থেকেই সন্দেশখালির পরিস্থিতি ক্রমশ ঘোরাল হয়ে উঠতে থাকে। শাহজাহানের পাত্তা আর পাওয়া না গেলেও ক’দিনের মধ্যেই শাহজাহানবাহিনীর জুলুমের প্রতিবাদে পথে নামেন স্থানীয় বাসিন্দারা। গত দু’দিন ধরে কার্যত রণক্ষেত্রে পরিণত হয় উত্তর ২৪ পরগনার ওই এলাকা। নাম উঠে আসে শাহজাহানের ঘনিষ্ঠ উত্তম সর্দার এবং শিবু হাজরাদের। শনিবার ধর্নামঞ্চ থেকে উত্তমকে সাসপেন্ড করার কথা ঘোষণা করেন পার্থ ভৌমিক। তার কারণ হিসাবে পার্থ জানান, উত্তমের বিরুদ্ধে মানুষের সঙ্গে খারাপ ব্যবহারের অভিযোগের প্রেক্ষিতে অভিষেক তাঁকে সাসপেন্ড করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

Advertisement

সূত্রের খবর, শুক্রবার গভীর রাতে অভিষেকের ক্যামাক স্ট্রিটের অফিসে সুজিত বসু, নারায়ণ গোস্বামী, রথীন ঘোষ-সহ ওই জেলার কয়েক জন গুরুত্বপূর্ণ নেতাকে ডেকে পাঠানো হয়েছিল। সেখানে হাজির ছিলেন পার্থও। সেখানেই উত্তমকে সাসপেন্ড করার নির্দেশ দেন অভিষেক। তার পরেই শনিবার পার্থ সাধারণ সম্পাদকের নির্দেশের কথা ঘোষণা করেন।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ