জেলা 

এসডিপিআইয়ের নেতার উপর দুষ্কৃতি হামলা, ভর্তি হাসপাতালে

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

জঙ্গিপুর, ৭ ফেব্রুয়ারি: এসডিপিআই এর সুতি বিধানসভার সহ সম্পাদক আইনের ছাত্র মাসুদ সেখের উপর এক দল দুষ্কৃতি হামলা চালায়। ৬ ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার রাত নয়টার দিকে তিনি সাজুর মোড় থেকে বাড়ি ফিরছিলেন। পথিমধ্যে বিকননগর হাসপাতালের কাছে তিন জন দুষ্কৃতি লাঠি ছুরি পিস্তলসহ হামলা চালায়। তিন জন তিন খানা মটরবাইক্ এ চেপে আসে। মাসুদকে মটরবাইক্ থামিয়ে মারতে থাকে। এক সময় তিনি জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। তখন দুষ্কৃতীরা তাঁকে ফেলে পালিয়ে যায়।

খবর পেয়ে সুতি বিধানসভার সম্পাদক ইমদাদুল হক ঐ জায়গায় পৌঁছিয়ে মাসুদকে জ্ঞান হারা অবস্থায় পান। সাথে সাথে তাঁকে মহিষাইল হাসপাতালে ভর্তি করেন। বর্তমানে মাসুদ হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরেছেন। তিনি জানালেন তিন খানা মটরবাইক্ আমাকে অতিক্রম করে আমার সামনে দাঁড়িয়ে যায়। বাধ্য হয়ে আমাকে মটরবাইক্ থামাতে হয়। সাথে সাথে আমার কলার ধরে টানতে টানতে হাসপাতালের পিছনে নিয়ে যায় এবং বেধড়ক মারতে থাকে। ওখানে এক খানা বাঁশের টুকরো পড়ে ছিল। সেটা দিয়ে মারতে থাকে। বাম কান দিয়ে রক্ত বের হয়। কেন এই আক্রমণ এই প্রশ্নের উত্তরে তিনি জানালেন গঙ্গা ভাঙণ নিয়ে তিনি কলকাতা উচ্চ আদালতে জনস্বার্থে মামলা দায়ের করেন। এই মামলায় আদালত আমার দাবির পক্ষে রায় দেয়।

Advertisement

ফলে গঙ্গা ভাঙণ প্রকল্পে যারা দুর্নীতি করছিল, লুঠপাট করে খাচ্ছিল তাদের চুরি করা বন্ধ হয়ে যায়। এই রাগে আমার উপর এই আক্রমণ। আমাকে মারার সময় অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করছিল আর বলছিল তোকে গঙ্গা ভাঙণ নিয়ে বাড়াবাড়ি করতে মানা করেছি, তারপরও তুই কোর্টে জনস্বার্থের মামলা করলি। আজকে তিনি থানায় এফআইআর করবেন। তিনি আরও জানান মাস দুয়েক আগে আমার প্রাণ নাষের হুমকি দিয়ে আমার কাছে বেনামী একটি চিঠি আসে। আমি তার ভিত্তিতে থানায় ডাইরি করি। থানা কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি।

আজ ৭ ফেব্রুয়ারি সকালে রাজ্য সভাপতি তায়েদুল ইসলাম ও রাজ্য সহসভাপতি মুহাম্মদ সাহাবুদ্দিন মাসুদ সেখের বাড়ি যান। মাসুদ সহ গ্ৰামবাসিদের সাথে কথা বলেন। দলের নেতা কর্মীদের সঙ্গে মিটিং করেন এবং দলনিরপেক্ষ ভাবে সমস্ত গ্ৰামবাসিদের সঙ্গে নিয়ে এই আক্রমণ এর বিরুদ্ধে আন্দোলন গড়ে তোলার পরামর্শ দেন।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ