কলকাতা 

“কেন? প্রধান শিক্ষককে গ্রেফতার করা যায়নি কেন?” নরেন্দ্রপুর কাণ্ডে পুলিশকে ভর্ৎসনা বিচারপতির

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : নরেন্দ্রপুরের একই স্কুলে হামলার পর সাত দিন কেটে গেলেও কেন এখনো পর্যন্ত প্রধান শিক্ষককে গ্রেফতার করা হলো না তা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করলেন বিচারপতি বিশ্বজিৎ বসু। সব অভিযুক্তকে গ্রেফতার করতে আর কতদিন সময় লাগবে, তা জানতে চাইলেন বিচারপতি বিশ্বজিৎ বসু।

গত ২৭ জানুয়ারি, নরেন্দ্রপুরের বলরামপুর মন্মথনাথ বিদ্যামন্দিরে হানা দেয় ৫০-৬০ জনের একটি দল। ভাইরাল হওয়া ভিডিও অনুযায়ী, স্কুলের টির্চাস রুমে ঢুকে শিক্ষক-শিক্ষিকাদের মারধর করা হয়। প্রধান শিক্ষক সৈয়দ ইমতিয়াজ হোসেনের মদতে মারধর করা হয় বলে অভিযোগ আক্রান্তদের। এই ঘটনায় রিপোর্ট তলব করেন খোদ শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু। ঘটনা এখনও পর্যন্ত মোট আটজনকে গ্রেফতার করা হয়। তবে এখনও অধরা প্রধান শিক্ষক।

Advertisement

এই মামলার শুনানিতে গত ২ ফেব্রুয়ারি, শুক্রবার পুলিশকে তুমুল ভর্ৎসনা করে হাই কোর্ট। আদালতের নির্দেশ সত্ত্বেও কেন কাউকে গ্রেফতার করা হল না, প্রশ্ন তোলেন বিচারপতি বিশ্বজিৎ বসু। পুলিশকে তিনি প্রশ্নও করেছিলেন, ‘‘এতদিন চোখে কাপড় বেঁধেছিলেন?” সোমবারও বিচারপতি বিশ্বজিৎ বসুর এজলাসে শুনানি চলাকালীন পুলিশের ভূমিকায় প্রশ্ন তোলেন বিচারপতি।

তবে হাই কোর্টে রাজ্যের তরফে জানানো হয় ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষককে সাসপেন্ড করা হয়েছে। শুধু তাই নয়, এই ঘটনায় এফআইআরে নাম না থাকাও বেশ কয়েকজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আর তাতেই ক্ষুব্ধ বিচারপতি। তাঁর প্রশ্ন, “কেন? প্রধান শিক্ষককে গ্রেফতার করা যায়নি কেন?” রাজ্যের তরফে জানানো হয়, তিনি আগাম জামিনের আবেদন করেছেন। পালটা বিচারপতির প্রশ্ন, “আগাম জামিনের আবেদন করলে কি গ্রেফতার করা যায় না?” বিচারপতির পর্যবেক্ষণ, “আশা করি পুলিশ প্রধান শিক্ষক-সহ সব অভিযুক্তকে গ্রেফতার করতে পারবে।” আগামী ১৯ শে ফেব্রুয়ারি এই মামলার পরবর্তী শুনানি।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ