দেশ 

নীতিশকে সরিয়ে তেজস্বী যাদবকে মুখ্যমন্ত্রী করে নতুন সরকার গড়ার উদ্যোগ লালু প্রসাদ যাদবের! কোন অংকে?

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বিশেষ প্রতিনিধি : জল্পনা চলছে নীতিশ কুমার বিহারের মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগ করে বিজেপির সঙ্গে যোগ দিয়ে ফের মুখ্যমন্ত্রীর কুর্সিতে বসতে চলেছেন। আগামী রবিবার ২৮ শে জানুয়ারি শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান হওয়ার কথা জল্পনায় ভাসছে। ঠিক এই সময়ই বিহারের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা রাষ্ট্রীয় জনতা দলের নেতা লালু প্রসাদ যাদব তাঁর পুত্র তেজস্বী যাদবকে মুখ্যমন্ত্রী করে নতুন সরকার গড়ার জন্য তৎপরতা চালাচ্ছেন বলে বিশেষ সূত্রে খবর পাওয়া গেছে।

জানা গেছে, বিহার বিধানসভার সর্ববৃহৎ দল হিসাবে লালুপ্রসাদ যাদবের আরজেডি রয়েছে এদের সঙ্গে আছে কংগ্রেস দল এবং অন্যান্য ছোট ছোট দলগুলি একইসঙ্গে নীতিশ কুমারের জেড ইউ। তবে নীতিশ কুমারের দল যদি বিজেপির সঙ্গে যোগ দেয় তাতেও সরকার করতে পারবে না বিজেপি জোট, যদি জিতেন রাম মাঝির দল আরজেডিকে সমর্থন করে। তাই শোনা যাচ্ছে জিতেন রাম মাঝির সঙ্গে লালু প্রসাদ যাদব বেশ কয়েক মাস আগে থেকে যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছেন। তাঁর পুত্রকে উপমুখ্যমন্ত্রী করে সরকার করতে চাইছে, আরজেডি। সূত্রের খবর জিতেন রাম মাঝি এ বিষয়ে নাকি লালুপ্রসাদ যাদবের কাছে সম্মতি জানিয়েছেন।

Advertisement

ফলে বিহারের রাজনীতিতে টালমাটাল অবস্থা এসে দাঁড়িয়েছে। আরজেডির সঙ্গে জেডি ইউর সম্পর্ক খারাপ হওয়ার নেপথ্যে রয়েছে অন্য কারণ। নীতিশ কুমার চেয়েছিলেন লোকসভা নির্বাচনের সঙ্গে বিধানসভা নির্বাচন করে নিতে সেটা চাননি লালু প্রসাদ যাদব কিংবা আরজেডি। অন্যদিকে এই প্রস্তাব বিজেপিকে দেওয়া হলে বিজেপি এক কথায় রাজি হয়েছে তবে বিহার বিজেপির নেতারা এখন নীতীশ কুমারের পক্ষে নন। তাঁরা মনে করছেন নীতীশ কুমারের সঙ্গে বারবার জোট করলে দলের ভাবমূর্তি জনমানষে ক্ষুন্ন হবে। তাই বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতারা এখন ভাবতে শুরু করেছেন তাঁরা কোন দিকে যাবেন। এই অবস্থায় শোনা যাচ্ছিল যে বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমারকে সামনে রেখে সরকার গঠন করবে বিজেপি আর উপমূখ্যমন্ত্রী হবেন বিজেপি নেতা সুশীল মোদী। আর এতেই বেঁকে বসেছেন জিতেন রাম মাঝির দল। তিনি মনে করছেন এই সুযোগে যদি উপমুখ্যমন্ত্রী না হওয়া যায় তাহলে আর কোনদিন সুযোগ পাওয়া যাবে না। জিতেন রাম মাঝি এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে ছেলেকে উপমুখ্যমন্ত্রী করে দিলে অবাক হওয়ার কিছুই থাকবে না। আর লালু প্রসাদ যাদব যদি একবার বাজিমাত করতে পারেন যদি একবার তেজস্বী যাদবকে বিহারের মুখ্যমন্ত্রী পদে বসাতে পারেন। তাহলে নীতিশ কুমারের দল যে অটুট থাকবে না সে নিয়ে কোন সন্দেহ নেই।

পাশার দান এখন কোন দিকে যায় সেদিকেই লক্ষ্য রেখেছে সমগ্র দেশের সাধারণ মানুষ। লালু প্রসাদ যাদবের চালে বিহার ফের বাজিমাত করতে পারে কিনা সেটাই এখন দেখার বিষয়। একইসঙ্গে দেখার বিষয় বিহারের রাজনীতিতে লালু প্রসাদ নাকি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের চাণক্য নীতির জয় হবে। ২০২৪ এর লোকসভা নির্বাচনের আগে বিহারের রাজনীতি ঘিরে দেশ জুড়ে চাঞ্চল্য।

 

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ