জেলা 

বৃষ্টি উপেক্ষা করে বসিরহাটে বিশাল জনসভা তৃণমূল কংগ্রেসের

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিবেদক, বসিরহাট : সর্ব ভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেস সভানেত্রী তথা বাংলার মুখ্যমন্ত্রী শ্রীমতী মমতা ব্যানার্জি ও সর্ব ভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেস সাধারণ সম্পাদক, সাংসদ শ্রী অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে প্রকাশ্য জনসভা আয়োজন করলো -বসিরহাট সাংগঠনিক জেলা তৃণমূল কংগ্রেস। কনকনে ঠান্ডার সঙ্গে ঝিরঝির বৃষ্টি উপেক্ষা করে বসিরহাট কলেজ সন্নিকটে প্রান্তিক মাঠ কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে ওঠে তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণে।

উক্ত কর্মসূচিতে উপস্থিত হয়ে বিধানসভায় সরকার পক্ষের মুখ্য সচেতক শ্রী নির্মল ঘোষের বলেন ভগবান রামকে সামনে রেখে ভারতবর্ষকে ভাগ করতে চায় বিজেপি এটা কখনোই কাম্য নয়।বসিরহাট সাংগঠনিক জেলার দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা রাজ্য সরকারের দমকল মন্ত্রী শ্রী সুজিত বোস বলেন বুলেট নয় ব্যালোটে বিজেপি কে বিতাড়িত করা হয়েছে।স্বাধীনতা সংগ্রামে দেশের জাতি ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল। কিন্তু বিজেপির কোন মুখকে দেখা যায়নি।১৯০৫ সালে সংঙ্গবদ্ধ বাঙালিরা রুখে দিয়েছিল বঙ্গভঙ্গ।আর এখন বিজেপির ষড়যন্ত্রকে প্রতিহত করার আর একবার আহ্বান জানান মন্ত্রী সুজিত বোস।

Advertisement

রাজনীতি মানুষের কাজ নিয়ে বিচার হয়, ধর্ম নিয়ে হয় না। কাজের বিনিময়ে আস্থা অর্জন করা রাজনৈতিক বিষয় হওয়া উচিত বলে মন্তব্য করেন পশ্চিমবঙ্গ সরকারের সেচমন্ত্রী শ্রী পার্থ ভৌমিক। পঃবঃ সরকারের মুখ্যমন্ত্রী শ্রীমতী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জনপরিষেবা উল্লেখ্য করে ফিরিস্তি তুলে ধরেন মন্ত্রী।বাংলার মহিলাদের সম্মান প্রদর্শন করার জন্য বাংলার জনদরদী মুখমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের লক্ষীর ভান্ডার আজ খ্যাতি অসমান্য।হাওয়াই চপ্পল পরা মহিলা মুখ্যমন্ত্রী বাংলার রাজপথে বেরোলে আর কোন তৃনমূল কংগ্রেস নেতৃত্বের প্রয়োজন ছাড়াই বাংলার রাজনীতিতে তৃনমূল কংগ্রেস একাই একশো।

ধর্মীয় পাপমোচন করার জন্য যেমন বিভিন্ন ধর্মের লোকেরা স্ব স্ব ধর্মীয় স্থানে যেতে হয়, ঠিক তেমনি বিজেপির পাপমোচন করার জন্য বসিরহাটের বিশাল জনসভায় ডুব দিয়ে পাপমোচনের দাওয়াই দেন রাজ্য সরকারের পরিবহন মন্ত্রী স্নেহাশিস চক্রবর্তী। রবীন্দ্র নজরুলের সৌভাতৃত্বের বানীকে পাথেয় করে দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পারার কথা বলেন। বিজেপিকে প্রতিশ্রুতি ভঙ্গকারী সরকার হিসাবে ব্যঙ্গ করেন। অন্যদিকে মমতা ব্যানার্জি যা বলেন সাধারণ মানুষের জন্য সেটাই করে দেখিয়ে দেন। মমতা ব্যানার্জি ও অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় কে যত আক্রমন করেছে বিজেপি, ভোটব্যাঙ্কে তৃণমূল কংগ্রেসের ভোট তত বেশি জমা হয়েছে।

রামচন্দ্র কে নিয়ে ব্যাবসা করাকে তীব্র কটাক্ষ করেন উঃ ২৪ পরগনা জেলা পরিষদের সভাধিপতি শ্রী নারায়ন গোস্বামী। দেশের প্রধানমন্ত্রী কে বাবাজি বলে শ্লেষ ব্যক্ত করেন তিনি।রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাজকে প্রশংসা করে বিজেপির ধর্মীয় বিভাজন কে বাংলার মানুষ মেনে নেবে না বলে জানিয়েছেন নারায়ন গোস্বামী।

উক্ত কর্মসূচিকে সাফল্য মন্ডিত করার জন্য উপস্থিত নেতাকর্মীদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন বসিরহাট সাংগঠনিক জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি হাজী সেখ নূরুল ইসলাম,চেয়ারম্যান সরোজ ব্যানার্জি, পঃবঃ তৃণমূল মাদ্রাসা টিচার্স অ্যাসোসিয়েশনের রাজ্য সভাপতি তথা উঃ ২৪ পরগনা জেলা পরিষদের বন ও ভূমি স্থায়ী সমিতির কর্মাধ্যক্ষ একেএম ফারহাদ, বিধায়ক রফিকুল ইসলাম,দেবেশ মন্ডল, ডাঃ সপ্তর্ষী ব্যানার্জী, সুকুমার মাহাতো, ঊষারানী মন্ডল, জেলা পরিষদের কর্মাধ্যক্ষ বুরহানুল মুকাদ্দিম,জেলার অন্যতম নেতৃত্ব তথা অনুষ্ঠানের পরিচালক বাদল মিত্র,যুব সভাপতি সমীক রায় অধিকারি, বসিরহাট পুরসভার চেয়ারম্যান অদিতি মিত্র, বসিরহাট শহর তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি শ্রী অভিজিৎ দাস,বাদুড়িয়া পুরসভার চেয়ারম্যান দীপঙ্কর ভট্টাচার্য,টাকি ব্লক তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি প্রদ্যুৎ দাস, টাকি পুরসভার ভাইপ চেয়ারম্যান ফারুক গাজী, বসিরহাট সাংগঠনিক জেলার বিভিন্ন এলাকার নেতৃত্বে সুবীর সরকার,শ্রী শম্ভুনাথ ঘোষ, আব্দুল খালেক,ফরিদ জমাদার,মাদার বাবু, মনোয়ারা বিবি,মৃত্যুঞ্জয় মন্ডল প্রমুখ


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ