কলকাতা 

মেধার যথাযথ বিকাশ ঘটাতে হলে সুষম আহার ও শরীরের প্রতি যত্ন অপরিহার্য : শাবানা রোজ চৌধুরী

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বিশেষ প্রতিনিধি : সঠিকভাবে পড়াশোনা করতে হলে এবং মেধার মান বাড়াতে হলে সুষম আহার অপরিহার্য। সুষম খাবার মানে এটা নয় মাছ মাংস সবজির মধ্যেও অনেক গুনাগুন আছে যা শরীরকে সুস্থ রাখতে ও মেধার বিকাশ ঘটাতে সাহায্য করে। গত বুধবার ১৭ ই জানুয়ারি সাতঘরা হাই মাদ্রাসায় শিক্ষার প্রসারে স্বাস্থ্য সচেতনতা অপরিহার্য শীর্ষক আলোচনায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে এ কথাগুলি বলেন বিশিষ্ট চিকিৎসক শাবানা রোজ চৌধুরী।

তিনি এই আলোচনায় প্রধান বক্তা হিসাবে ১৭ই জানুয়ারি সাতঘরা হাই মাদ্রাসায় উপস্থিত ছিলেন। বক্তব্য রাখতে গিয়ে প্রথমে ই শিক্ষার্থীদের সম্মোধন করে বলেন তোমরা প্রতিদিন খেয়ে পড়াশোনা করতে বিদ্যালয়ে আস কি না। কেউ বলে খেয়ে এসেছি কেউ বলে খেয়ে আসেনি। সেই সময় এই বিশিষ্ট চিকিৎসক ও সমাজ কর্মী বলেন বিদ্যালয়ে আসার আগে অবশ্যই খাবার খেয়ে আসবে। যদিও এখন মিড ডে মিলের ব্যবস্থা রয়েছে স্কুলগুলিতে তবুও সঠিক আহার এবং সময়মতো খাবার খাওয়ার মধ্য দিয়ে শরীর সুস্থ এবং সবল থাকবে।

Advertisement

শরীর সুস্থ থাকলে তবেই পড়াশোনা ভালো হবে। তিনি বলেন তোমরা যারা সকালে ঘুম থেকে উঠে কিছু খাওয়া দাওয়া করে পড়াশোনা কর তাদের সঙ্গে যারা খাওয়া দাওয়া না করে পড়াশোনা করে তাদের মেধার অনেকটাই তফাৎ রয়েছে। ভালো রেজাল্ট করতে হলে ভালো ফলাফল করতে হলে অবশ্যই পরিমিত সুষম খাবার খাওয়া বাঞ্ছনীয়।

একই সঙ্গে তিনি এও বলেন সরকার থেকে যেসব স্বাস্থ্য বিষয়ক প্রকল্পগুলি নেয়া হয়েছে তাতে তোমাদের শরীর সুস্থ এবং স্বাভাবিক থাকবে। নিয়মিত আয়রন ট্যাবলেট গুলি খাবে এবং বিভিন্ন প্রতিশোধক টিকাগুলো তোমরা নেবে তবেই আগামী দিনে তোমাদের শরীর সুস্থ এবং স্বাভাবিক থাকবে।

এদিনের অনুষ্ঠানের সূচনা করে সাতঘরা হাই মাদ্রাসার ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক ইবাদুল ইসলাম বলেন, আমাদের অনুরোধে সারা দিয়ে এসএসকেএম হাসপাতালের পক্ষ থেকে চিকিৎসকদের একটি টিম এসে শিক্ষার্থীদের শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা করছে তাদের স্বাস্থ্য বিষয়ক নানা সমস্যার কথা শুনছে এবং প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করছে এটা আমাদের কাছে সবচেয়ে বড় পাওনা। একইসঙ্গে দুই দিন ধরে মাদ্রাসায় চলা স্বাস্থ্য বিষয়ক বিভিন্ন অনুষ্ঠানে আমরা দুই দিকপাল চিকিৎসককে পেয়েছি একজন হলেন কলকাতা মেডিকেল কলেজের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপিকা বহু চিকিৎসকের জনক ডাক্তার মমতাজ সংঘমিতা অন্যজন হলেন শাবানা রোজ চৌধুরী। এই দুই চিকিৎসকের মূল্যবান পরামর্শ আমাদেরকে এগিয়ে চলার প্রেরণা যোগাবে একই রকম ভাবে আমাদের ছাত্র-ছাত্রীরা কিছুটা উপকৃত হলে আমরা কৃতার্থ থাকব।

এদিনের অনুষ্ঠানে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করতে গিয়ে মাদ্রাসার পরিচালন সমিতির সম্পাদক সেখ নূরনবী বলেন, আমরা বিগত কয়েক মাস ধরে এই মাদ্রাসার শিক্ষার প্রসারে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা গ্রহণ করে চলেছি। পঠন পাঠনকে সুস্থ এবং স্বাভাবিক রাখার জন্য এবং ছাত্র-ছাত্রীদের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করার লক্ষ্যে সমগ্র মাদ্রাসাকে সিসিটিভি ক্যামেরায় মধ্যে আনা হয়েছে। ছেলেমেয়েদের উৎসাহ প্রদান করার জন্য সমাজের বিশিষ্ট ব্যক্তিদের এনে তাদের মোটিভেশনাল স্পিচ গুলি আমরা শোনাচ্ছি। এ বিষয়ে বর্তমান ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক এর ভূমিকা কে স্বীকার করতেই হবে। একই সঙ্গে যেসব অতিথিরা আমাদের এখানে আসছেন তাদের সকলের প্রতি আমরা কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি এবং চিকিৎসক টিম যারা এসেছেন তাদেরকেও আমরা ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

এদিনের অনুষ্ঠানে শাবানা রোজ চৌধুরীকে সংবর্ধিত করেন বিশিষ্ট শিক্ষক সেখ মনির উদ্দিন সাহেব। কৃতি ছাত্র-ছাত্রীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন এদিনের প্রধান অতিথি বিশিষ্ট চিকিৎসক শাবানা রোজ চৌধুরী। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মাদ্রাসার শিক্ষক শিক্ষিকা বৃন্দ ও অশিক্ষক কর্মচারীবৃন্দ।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ