কলকাতা 

উদ্বাস্তু কলোনির মালিকানা পাবে বাসিন্দারা ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত মন্ত্রিসভার

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সেখ ইবাদুল ইসলাম : নতুন বছরে বঙ্গবাসীকে একের পর এক উপহার দিয়ে চলেছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। গতকাল বৃহস্পতিবার নতুন বছরের প্রথম মন্ত্রিসভার বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয় মেটিয়াবুরুজে টেক্সটাইল হাব হবে। এই সিদ্ধান্তের নেপথ্যে যে লোকসভা নির্বাচন রয়েছে তা নিয়ে কোন সন্দেহ নেই। কারণ একথা স্বীকার করতেই হবে পরিকাঠামো এবং রাস্তাঘাট পানীয় জলের দিক থেকে কলকাতা পুরসভার মধ্যে সবচেয়ে পিছিয়ে পড়া এলাকা হল এই মেটিয়াবুরুজ এলাকা। সেইসব এলাকায় সার্বিক পরিকাঠামোর উন্নয়ন না করে টেক্সটাইল হাব তৈরি হবে এটা অলীক কল্পনা ছাড়া আর কিছু নয়।

তবে নিঃসন্দেহে মুখ্যমন্ত্রীর এই সিদ্ধান্ত কে স্বাগত জানাতে হবে কারণ আগের সরকার গুলি যে সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি মুখ্যমন্ত্রী সেই সিদ্ধান্তটা নিতে পেরেছেন এটা অত্যন্ত সাধু প্রস্তাব বলা যেতে পারে। বাস্তবায়ন হবে কি হবে না সেটা পরের বিষয়। এরপরেই যে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তটি গতকাল মন্ত্রিসভায় পাস হয়েছে সেটা হল উদ্বাস্তু কলোনিতে বসবাস তত বাসিন্দারা এবার জমির মালিকানা পাবে। যে জমিতে তারা বাস বসবাস করছে সেই জমিটা মূলত সরকারের জমি হিসাবে এতদিন স্বীকৃতি পেয়েছে। এবার থেকে বসবাসকারীরা চাইলে সেই জমির মালিকানা পেতে পারে।

Advertisement

শুধু তাই নয়, যেসব জমি সরকার লিজ দিয়েছে কোন সংস্থাকে বা কোন কোম্পানিকে, সেই সব সংস্থা এবং কোম্পানির যদি চান যে তারা এই জমির মালিকানা নিতে চায় তাহলে কিছু টাকার বিনিময়ে সরকার তাদেরকে জমির মালিকানা দেবে। সরকারের এই সিদ্ধান্ত নিঃসন্দেহে যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত বলে মনে করা হচ্ছে। এর ফলে দীর্ঘদিনের দাবি পূরণ হতে চলেছে উদ্বাস্তু কলোনি গুলিতে। তবে সরকারের আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়া জরুরী ছিল সেটা হচ্ছে ঠিকা টেনেন্সি অ্যাক্ট এর পরিবর্তন। কারণ এইসব জমিতে যে সকল আবাসন তৈরি হয়েছে সেই আবাসনে বসাবাসরত বাসিন্দাদের মালিকানা দেওয়াটা খুবই জরুরী হয়ে পড়েছে।

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ