অন্যান্য 

Madhyamik Examination 2024 : এক নজরে বাংলার সাজেশন

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মাধ্যমিক পরীক্ষার আর হাতে গোনা দিন বাকি, শেষ মুহূর্তে তোমরা অন্য বিষয়গুলি পড়ার ব্যস্ততায় বাংলা (প্রথম ভাষা )বিষয়টি একটু এড়িয়ে চলো কিন্ত বর্তমানে যে ধরণের paper pattern বাংলার ক্ষেত্রেও হয় তাতে বিগত বছর গুলিতে দেখা গেছে যে ছাত্রছাত্রী রা অতি সহজেই 90+নাম্বার সাহিত্যে পাচ্ছে এর জন্য একটু পরিকল্পনা করে পড়ার প্রয়োজন রয়েছে। যেমন mcq ও ছোট প্রশ্নের জন্য text book ভালো করে খুঁটিয়ে পড়বে এছাড়া বড় প্রশ্ন গুলি যথা সম্ভব চেষ্টা করবে সহজ, সরল ভাষায় লেখার। উত্তর লেখার সময়ে অবশ্যই প্যারাগ্রাফ ভাগ করে লিখবে, এবং চেষ্টা করবে কবির নাম, কোন কবিতার, বা কোন গল্প বা কোন নাটকের অংশ সেটি উল্লেখ করার।

রচনা, প্রতিবেদন এবং সংলাপ রচনার ক্ষেত্রে মৌলিকতা ও নিজের ভাবনা বিশেষ ভাবে প্রয়োজন এর জন্য একটু কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স দিকে ছাত্র ছাত্রীদের নজর রাখতে বলবো

Advertisement

অন্যান্য বিষয়গুলির মত বাংলা ভাষাটাও একটু নিয়ম করে ও পরিকল্পনা করে পড় দেখবে খুব সহজেই ভালো নাম্বার উঠেছে।

কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন রচনার টপিক প্রতিবেদনের সঙ্গে সংযুক্ত করলাম, তোমাদের উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ কামনা করি

“রত্নের মূল্য জহুরির কাছেই।”—কথাটির অর্থ কী?

“সূচিপত্রেও নাম রয়েছে।”—সূচিপত্রে কী লেখা ছ

“পৃথিবীতে এমন অলৌকিক ঘটনাও ঘটে?”—কোন্ ঘটনাকে অলৌকিক বলা হয়েছে?

“কথাটা শুনে তপনের চোখ মার্বেল হয়ে গেল!”—কোন্ কথাটা শুনে তপনের চোখ মার্বেল হয়ে গিয়েছিল?

“বুকের রক্ত ছলকে ওঠে তপনের।”—তপনের বুকের রক্ত ছলকে ওঠার কারণ কী?

“সত্যিকার লেখক।”—এই উক্তির মধ্য দিয়ে তপনের মনের কোন ভাব প্রকাশিত হয়েছে বলে তোমার মনে হয়?

তপনের গল্প পড়ে ছোটোমাসি কী বলেছিল?

“একটু ‘কারেকশন’ করে ইয়ে করে দিলে ছাপাতে দেওয়া চলে।”—কে, কী ছাপানোর কথা বলেছেন?

“পৃথিবীতে এমন অলৌকিক ঘটনাও ঘটে?”—কোন্ ঘটনাকে অলৌকিক ঘটনা বলা হয়েছে? কেন তাকে ‘অলৌকিক ঘটনা’ বলে উল্লেখ করা হয়েছে?

“রত্নের মূল্য জহুরির কাছেই।”—কথাটির তাৎপর্য ব্যাখ্যা করো।

“কথাটা শুনে তপনের চোখ মার্বেল হয়ে গেল!”—কোন্ কথা শুনে তপনের চোখ মার্বেল হয়ে গেল?

“নতুন মেসোকে দেখে জ্ঞানচক্ষু খুলে গেল তপনের।”—জ্ঞানচক্ষু বলতে কী বোঝো? তপনের তা কীভাবে খুলে গিয়েছিল?

“তার চেয়ে দুঃখের কিছু নেই, তার থেকে অপমানের!”—কার সম্পর্কে এ মন্তব্য? তার চেয়ে বলতে কী বোঝানো হয়েছে?

“যে ভয়ংকর আহ্লাদটা হবার কথা, সে আহ্লাদ খুঁজে পায় না।”—‘আহ্লাদ হওয়ার কথা ছিল কেন?‘আহ্লাদ খুঁজে’ না-পাওয়ার কারণ কী?

‘জ্ঞানচক্ষু’ গল্প অবলম্বনে তপন চরিত্রটি বিশ্লেষণ কর

“পৃথিবীতে এমন অলৌকিক ঘটনাও ঘটে?”—কোন্ ঘটনাকে অলৌকিক বলা হয়েছে?

“রত্নের মূল্য জহুরির কাছেই।”—কোন্ প্রসঙ্গে এ উক্তি? এ উক্তির কারণ কী?

“তপন আর পড়তে পারে না। বোবার মতো বসে থাকে।”—তপনের এরকম অবস্থার কারণ বর্ণনা করো।

“কিন্তু নতুন মেসোকে দেখে জ্ঞানচক্ষু খুলে গেল তপনের।”-নতুন মেসোকে দেখে কীভাবে তপনের জ্ঞানচক্ষু খুলে গিয়েছিল?

“আক্ষেপ করেন হরিদা”–হরিদার আক্ষেপের কারণ কী?

জগদীশবাবু কীভাবে সন্ন্যাসীর পায়ের ধুলো নিয়েছিলেন?

“অদৃষ্ট কখনও হরিদার এই ভুল ক্ষমা করবে না।”—হরিদার কোন ভুলের কথা বলা হয়েছে?

“চমকে উঠলেন জগদীশবাবু।”—জগদীশবাবুর চমকে ওঠার কারণ কী?

পুলিশ সেজে হরিদা কার কাছ থেকে ঘুষ নিয়েছিল?

“হরিদার কাছে আমরাই গল্প করে বললাম।”—‘আমরা’ বলতে কাদের বোঝানো হয়েছে?

“হরিদার জীবন এইরকম বহুরূপের খেলা দেখিয়েই একরকম চলে যাচ্ছে।”—কী রকম খেলা দেখিয়ে হরিদার জীবন চলে যাচ্ছে?

“সপ্তাহে বড়োজোর একটা দিন বহুরূপী সেজে পথে বের হন হরিদা”—‘বহুরূপী’ কাকে বলে?

 

“হরিদার জীবনে সত্যিই একটা নাটকীয় বৈচিত্র্য আছে।” হরিদা কে? তাঁর কর্মকাণ্ডের মধ্যে যে নাটকীয় বৈচিত্র্য ধরা পড়েছে, তা গল্প অনুসারে লেখো।

“এই শহরের জীবনে মাঝে মাঝে বেশ চমৎকার ঘটনা সৃষ্টি করেন বহুরূপী হরিদা।”-হরিদার সৃষ্ট চমৎকার ঘটনাগুলির বিবরণ দাও।

জগদীশবাবুর বাড়ি হরিদা বিরাগী সেজে যাওয়ার পর যে ঘটনা ঘটেছিল তা বর্ণনা করো।

“তাতে যে আমার ঢং নষ্ট হয়ে যায়।”—বক্তা কোন্ প্রসঙ্গে এ কথা বলেছেন? উক্তির আলোকে বক্তার চরিত্র বিশ্লেষণ করো।

“চমকে উঠলেন জগদীশবাবু।”—জগদীশবাবুর পরিচয় দাও। তাঁর চমকে ওঠার কারণ কী?

‘বহুরূপী’ গল্পে যে-হিমালয়বাসী সন্ন্যাসীর প্রসঙ্গ আছে তার চরিত্র বিশ্লেষণ করো।

অদৃষ্ট কখনও হরিদার এই ভুল ক্ষমা করবে না।”—হরিদা কী ভুল করেছিলেন? অদৃষ্ট ক্ষমা না-করার পরিণাম কী?

গিরীশ মহাপাত্রের ট্যাঁকে ও পকেটে কী কী পাওয়া গিয়েছিল?

“নিমাইবাবু চুপ করিয়া রহিলেন।”—নিমাইবাবুর চুপ করে থাকার কারণ কী?

অপূর্ব তার বাড়িতে চুরির খবর কখন, কাকে দিতে গিয়েছিল?

“মনে হলে দুঃখে, লজ্জায় ঘৃণায় নিজেই যেন মাটির সঙ্গে মিশিয়ে যাই।”—কোন্ কথা মনে করে অপূর্বের এই মনোবেদনা?

“দেখো জগদীশ, কীরূপ সদাশয় ব্যক্তি ইনি।”—ব্যক্তিটিকে ‘সদাশয়’ বলা হয়েছে কেন?

“লোকটি কাশিতে কাশিতে আসিল।”—লোকটির পরিচয় দাও।

জগদীশবাবু তীর্থভ্রমণের জন্য কত টাকা বিরাগীকে দিতে চেয়েছিলেন?

“বাবুটির স্বাস্থ্য গেছে, কিন্তু শখ ষোলোআনাই বজায় আছে—কে, কার উদ্দেশ্যে মন্তব্যটি করেছেন?এমন মন্তব্যের কারণ কী?

গিরীশ মহাপাত্রের পোশাক-পরিচ্ছদ ও বেশভূষার পরিচয় দাও।

“নিমাইবাবুর সম্মুখে হাজির করা হইল।”—কাকে নিমাইবাবুর সামনে হাজির করা হল? কী উদ্দেশ্যে তাঁকে হাজির করা হয়েছিল?

“বাবাই একদিন এঁর চাকরি করে দিয়েছিলেন।”—বক্তা কে? তাঁর বাবা কাকে, কী চাকরি করে দিয়েছিলেন?

“আমি ভীরু, কিন্তু তাই বলে অবিচারের দণ্ডভোগ করার অপমান আমাকে কম বাজে না”-বক্তা কাকে এ কথা বলেছিলেন? কোন্ অবিচারের দণ্ডভোগ তাঁকে ব্যথিত করেছিল?

“তবে এ বস্তুটি পকেটে কেন?”—কোন্ ‘বস্তুটি’ পকেটে ছিল?

ভামো যাত্রায় ট্রেনে অপূর্বের কে কে সঙ্গী হয়েছিল?

‘অসুখী একজন’ কবিতাটির রচয়িতা কে? বাংলায় তরজমা করেছেন কে?

অসুখী একজন’ কবিতায় কবির স্বপ্নবিজড়িত পরিবেশটি কেমন ছিল?

“তারপর যুদ্ধ এল”—কীসের মতো যুদ্ধ এল? কথকের অপেক্ষায় কে, কোথায় দাঁড়িয়েছিল?

‘অসুখী একজন’ কবিতায় কবি যুদ্ধে কাদের খুন হওয়ার কথা বলেছেন?

‘অসুখী একজন’ কবিতায় যেখানে শহর ছিল সেখানে যুদ্ধের ফলে কী কী ছড়িয়ে রইল?

“শিশু আর বাড়িরা খুন হল”—“শিশু আর বাড়িরা’ খুন হয়েছিল কেন?

“তারপর যুদ্ধ এল”—পাঠ্য কবিতায় কবি যুদ্ধের যে-আশ্চর্য করুণ ও মর্মস্পর্শী ছবি এঁকেছেন, তা নিজের ভাষায় লেখো।

“শিশু আর বাড়িরা খুন হলো সেই মেয়েটির মৃত্যু হলো না।”—মেয়েটি কে? তাঁর মৃত্যু না-হওয়ার কারণ কী? কী কারণে শিশু ও বাড়িরা খুন হল?

‘অসুখী একজন’ কবিতায় কবি অসুখী জীবনের অসুখ কীভাবে প্রকাশ করেছেন, তা দৃষ্টান্ত-সহ আলোচনা করো।

“আর সেই মেয়েটি আমার অপেক্ষায়।”—অপেক্ষমান এই নারীর মধ্যে দিয়ে কবি মানবীয় ভালোবাসার

যে-রূপটিকে ফুটিয়ে তুলেছেন, তা পাঠ্য কবিতা অবলম্বনে আলোচনা করো।

“যেখানে ছিল শহর/সেখানে ছড়িয়ে রইল কাঠকয়লা”—‘অসুখী একজন’ কবিতা অবলম্বনে শহরের

এই পরিণতি কীভাবে হল লেখো।

আয় আরো বেঁধে বেঁধে থাকি আমাদের কী নেই বলে কবিতায় উল্লিখিত রয়েছে?

“আমাদের চোখমুখ ঢাকা”—চোখমুখ ঢাকার কারণ কী?

“আমরা ভিখারি বারোমাস”—এ কথা বলার কারণ কী?

“আমাদের মাথায় বোমারু”—বলতে কী বোঝানো হচ্ছে?

“আয় আরো বেঁধে বেঁধে থাকি।”—বলার কারণ কী?

“পৃথিবী হয়তো বেঁচে আছে/পৃথিবী হয়তো গেছে মরে”—বলার অন্তর্নিহিত কারণ কী?

“আমাদের পথ নেই আর।”— তাহলে আমাদের করনীয় কী?

“ছড়ানো রয়েছে কাছে দূরে।”—কী ছড়ানো রয়েছে?

“আমরা ভিখারি বারোমাস”—এ ধরনের মন্তব্যের কারণ কী?

“পৃথিবী হয়তো বেঁচে আছে।”—এমন সংশয়ের কারণ কী?

“আমাদের ইতিহাস নেই”—কে, কেন এ কথা বলেছেন?

“পায়ে পায়ে হিমানীর বাঁধ”—‘হিমানীর বাঁধ’ কী? উক্তিটির তাৎপর্য বিশ্লেষণ করো।

“আমাদের পথ নেই কোনো”—কোন্ কবিতার অংশ? আমাদের পথ নেই বলার কারণ কী?

“বলো ক্ষমা করো”—কীসের জন্য এই ক্ষমাপ্রার্থনা?

“হায় ছায়াবৃতা”—আফ্রিকাকে ‘ছায়াবৃতা’ বলার কারণ কী?

“উদ্ভ্রান্ত সেই আদিম যুগে”—কী ঘটেছিল?

“ছিনিয়ে নিয়ে গেল তোমাকে”—কে, কাকে ছিনিয়ে নিয়ে গেল?

দস্যুরা কীভাবে আফ্রিকার ইতিহাসে চিরচিহ্ন এঁকে দিয়ে গেল?

“আজ যখন পশ্চিম দিগন্তে”–পশ্চিম দিগন্তে কী ঘটে চলেছিল?

“এসো যুগান্তের কবি”—কবির ভূমিকাটি কী হবে?

“বিদ্রূপ করেছিলেন ভীষণকে”—কীভাবে ‘বিদ্রূপ’ করেছিল?

“অভিষেক করিলা কুমারে।”—রাবণ কোন্ পরিস্থিতিতে কুমারকে অভিষিক্ত করলেন?

“হা ধিক্ মোরে!”—ইন্দ্রজিৎ নিজেকে কী বলে ধিক্কার দেন?

প্রমীলা কে?

“তবে এ বারতা, এ অদ্ভুত বারতা”—বার্তাটি কী এবং তা অদ্ভুত কেন?

ইন্দ্ৰজিৎ ধাত্রীমাতার কাছে কী জানতে চান?

বীরবাহুর মৃত্যুসংবাদে মেঘনাদের কী প্রতিক্রিয়া লক্ষ করা যায়?

“কে কবে শুনেছে, পুত্র, ভাসে শিলা জলে,”—বক্তার এমন মন্তব্যের কারণ কী?

“ছদ্মবেশী অম্বুরাশি-সুতা”—কেন ইন্দ্রজিতের কাছে এসেছিলেন?

“সভ্যের বর্বর লোভ… -সভ্যের বর্বর লোভের যে-ছবি আফ্রিকা কবিতায় ফুটে উঠেছে, তা নিজের ভাষায় লেখো।

“এসো যুগান্তের কবি”—কবি রবীন্দ্রনাথ কেন ‘যুগান্তের কবিকে’ আহ্বান করেছেন? যুগান্তের কবি কোন্ পরিস্থিতিতে এসে কী করবেন?

“চিরচিহ্ন দিয়ে গেল তোমার অপমানিত ইতিহাসে।”—“তোমার বলতে কার কথা বলা হয়েছে?তার ‘অপমানিত ইতিহাস’-এর সংক্ষিপ্ত পরিচয় দাও।১+৪

“হায় ছায়াবৃতা”—‘ছায়াবৃতা’ বলার কারণ কী? তাঁর সম্পর্কে কবি কী বলেছেন, সংক্ষেপে লেখো।

‘আফ্রিকা’ কবিতায় কবি আফ্রিকা মহাদেশের জন্মের যে বর্ণনা দিয়েছেন, তা নিজের ভাষায় লেখো।

আফ্রিকা কীভাবে বন্দি হল তা আলোচনা করো।

দ্বাদশ রবির বহ্নিজ্বালা বলতে কী বোঝানো হয়েছে?

বধূরা কেন প্রদীপ তুলে ধরবে?

“আসছে নবীন”—‘নবীন’ কে?

. “তোরা সব জয়ধ্বনি কর!”—কবি কাদের জয়ধ্বনি করতে বলেছেন?

কালবোশেখির ঝড়কে ‘নূতনের কেতন’ বলার কারণ কী?

“অট্টরোলের হট্টগোলে স্তব্ধ চরাচর”—‘চরাচর’ স্তব্ধ কেন?

“ওরে ওই স্তব্ধ চরাচর।”—‘চরাচর’ স্তব্ধ কেন?

“প্রলয় বয়েও আসছে হেসে।”—‘প্রলয়’ বহন করেও হাসির কারণ কী?

“বজ্রশিখার মশাল জ্বেলে আসছে ভয়ংকর!”—ভয়ংকর বলতে কবি কী বোঝাতে চেয়েছেন? তার আগমনের তাৎপর্য ব্যাখ্যা করো।

“ভেঙে আবার গড়তে জানে সে চিরসুন্দর!”——‘সে’ কে? ভেঙে গড়ে তোলার বিষয়টি বুঝিয়ে দাও।

“তোরা সব জয়ধ্বনি কর!”—“তোরা’ কারা? তাদের জয়ধ্বনি করতে বলা হচ্ছে কেন?

“আসছে নবীন—জীবনহারা অ-সুন্দরে করতে ছেদন!”—উদ্ধৃতিটির তাৎপর্য ব্যাখ্যা করো।

“আসছে এবার অনাগত প্রলয়-নেশার নৃত্য পাগল”—অনাগত কে? সে প্রলয়-নেশায় নৃত্যপাগল কেন?

‘প্রলয়োল্লাস’ কবিতায় একদিকে ধ্বংসের চিত্র আঁকা হয়েছে, আবার অন্যদিকে নতুন আশার বাণী

ধ্বনিত হয়েছে—প্রসঙ্গটি কবিতা অবলম্বনে লেখো।

‘অন্ধ কারার বন্ধ কূপে’ বলতে কবি কী বুঝিয়েছেন? সেইসঙ্গে “দেবতা বাঁধা যজ্ঞ-যূপে/পাষাণ-

স্তূপে!”—বলার কারণ বিশ্লেষণ করো।

‘প্রলয়োল্লাস’ কবিতায় প্রলয় কীভাবে উল্লাসের কারণ হয়ে উঠেছে, তা সংক্ষেপে বর্ণনা করো।

“তোরা সব জয়ধ্বনি কর!”—‘তোরা’ বলতে কাদের বোঝানো হয়েছে? তারা কেন জয়ধ্বনি করবে?

‘প্রলয়োল্লাস’ কবিতায় কবি কাজী নজরুল ইসলাম ভয়ংকরের আগমনের যে-বর্ণনা দিয়েছেন, তা নিজের ভাষায় লেখো।

অন্নদাশঙ্কর রায় ছাড়া আর কোন্ কবি টাইপ-রাইটারে লিখতেন?

কলমের দুনিয়ায় সত্যিকারের বিপ্লব ঘটায় কোন্ পেন?

“বাংলায় একটা কথা চালু ছিল”—কথাটি কী?

“সেই আঘাতের পরিণতি নাকি তাঁর মৃত্যু।”—কোন্ আঘাতের পরিণতির কথা বলা হয়েছে?

লেখক কোথা থেকে তাঁর জীবনের প্রথম ফাউন্টেন পেনটি কিনেছিলেন?

“কলম সেদিন খুনিও হতে পারে বইকী।”—বক্তব্যটি পরিস্ফুট করো।

“সোনার দোয়াত কলম যে সত্যই হত”—তা লেখক কীভাবে জেনেছিলেন?

দোকানদার লেখককে কলম বিক্রি করার আগে কী জাদু দেখিয়েছিলেন?

দু-জন সাহিতিক্যের নাম করো যাঁদের নেশা ছিল ফাউন্টেন পেন সংগ্রহ করা।

লেখক শ্রীপান্থ ছোটোবেলায় কীসে ‘হোম-টাস্ক’ করতেন?

‘হারিয়ে যাওয়া কালি কলম’-এ বর্ণিত সবচেয়ে দামি কলমটির কত দাম?

“আমরা ফেরার পথে কোনো পুকুরে তা ফেলে দিয়ে আসতাম।”—বক্তা কেন তা পুকুরে ফেলে দিতেন

বিভক্তি ও অনুসর্গের একটি পার্থক্য লেখো।

‘বহুব্রীহি সমাসের একটি উদাহরণ দাও।

ব্যাসবাকা-সহ সমাস নির্ণয় করো। মেঘাচ্ছন্ন।

প্রযোজক কর্তা কাকে বলে? উদাহরণ দাও।

নিমিত্ত কারক কাকে বলে? উদাহরণ দাও।

শূন্যবিভক্তি কাকে বলে?

সমধাতুজ কর্তা কাকে বলে? উদাহরণ দাও

অনুসর্গের অপর নাম কী? উদাহরণ দাও।

শব্দবিভক্তির উদাহরণ দাও।

নির্দেশক কী? একটি বাক্যে উদাহরণ দাও।

প্রযোজ্য কর্তা কাকে বলে?

ব্যতিহার কর্তা কাকে বলে?

সম্বন্ধ পদ ও সম্বোধন পদ কী?

নিত্যসমাস কাকে বলে? উদাহরণ দাও।

বাক্যাশ্রয়ী সমাসের একটি উদাহরণ দাও।

ব্যাসবাক্য-সহ সমাস নির্ণয় করো: নিমাইবাবু, মহাপ্রাণ।

বহুব্রীহি কথাটির অর্থ কী? ব্যাকরণে কোন্ প্রসঙ্গে এটি ব্যবহৃত হয়?

অলোপ সমাস কাকে বলে?

‘শূন্য বিভক্তি’ কাকে বলে?

‘অস্ত্র রাখো’- নিম্নরেখ পদটির কারক ও বিভক্তি নির্ণয় করো।

নিত্য সমাস কাকে বলে?

‘চরণ কমলের ন্যায়’—ব্যাসবাক্যটি সমাসবদ্ধ করে সমাসের নাম লেখো।

প্রযোজক কর্তার একটি উদাহরণ দাও।

শব্দ বিভক্তির একটি উদাহরণ দাও।

প্রযোজ্য কর্তা কাকে বলে?

নিম্নরেখ শব্দটির কারক ও বিভক্তি নির্ণয় করো ‘কহ দাসে লঙ্কার কুশল’ ।

ব্যাসবাক্য কাকে বলে?

‘তৎপুরুষ’ শব্দের সাধারণ অর্থ কী?

সম্বন্ধ পদ কাকে বলে?

‘গৌর অঙ্গ যাহার’—ব্যাসবাক্যটি সমাসবদ্ধ করে সমাসের নাম লেখো।

বিভক্তি ও অনুসর্গের একটি পার্থক্য লেখো।

“মন্দিরে বাজছিল পূজার ঘণ্টা”—নিম্নরেখ পদটির কারক ও বিভক্তি নির্ণয় করো।

ব্যাসবাক্য-সহ একটি দ্বন্দ্ব সমাসের উদাহরণ দাও।

‘মেঘে ঢাকা’ শব্দটির ব্যাসবাক্য-সহ সমাসের নাম উল্লেখ করো। আলোপ সমাস কী?

‘হারিয়ে যাওয়া কালি কলম’-এ লেখক লিপিকুশলতা বা লিপিকুশলী সম্পর্কে যেসব তথ্য বা ঘটনা বিবৃত করেছেন, তা সংক্ষেপে লেখো।

“আমরা কালিও তৈরি করতাম নিজেরাই।”—কারা কালি তৈরি করতেন? তাঁরা কীভাবে কালি তৈরি করতেন, সে-সম্পর্কে আলোকপাত করো।

“আশ্চর্য, সবই আজ অবলুপ্তির পথে।”—কোন্ জিনিস আজ অবলুপ্তির পথে? এই অবলুপ্তির কারণ কী? এ বিষয়ে লেখকের মতামত কী?প্রাবন্ধিকের কালিকলমের প্রতি ভালোবাসা ‘হারিয়ে যাওয়া কালি কলম’ প্রবন্ধে কীভাবে ফুটে উঠেছে, তা আলোচনা করো।

“দোয়াত যে কত রকমের হতে পারে, না দেখলে বিশ্বাস করা শক্ত।”—হারিয়ে যাওয়া কালি কলম’

প্রবন্ধে লেখক শ্রীপান্থ কালির দোয়াতের যে-বৈচিত্র্যের কথা লিখেছেন, তা আলোচনা করো।

‘ফাউন্টেন পেন’ বাংলায় কী নামে পরিচিত? নামটি কার দেওয়া বলে উল্লেখ করা হয়েছে?ফাউন্টেন পেনের জন্ম ইতিহাস লেখো।

কমবেশি ১২৫ শব্দে উত্তর দাও:

“আমার এই অক্ষমতার জন্য তোমরা আমাকে ক্ষমা করো”—বক্তা কাদের কাছে, কোন্ অক্ষমতা প্রকাশ করেছেন?

 

“আমরা নবাবের নিমক বৃথাই খাই না, একথা তাদের মনে রাখা উচিত।”—নিমক খাওয়ার তাৎপর্য

কী? উক্তিটি থেকে বক্তার চরিত্রের কোন পরিচয় পাওয়া যায়?

“কিন্তু ভদ্রতার অযোগ্য তোমরা”—কাকে উদ্দেশ্য করে কথাটি বলা হয়েছে? এ কথা বলার কারণ কী?

“জাতির সৌভাগ্য-সূর্য আজ অস্তাচলগামী”—কোন্ জাতির কথা বলা হয়েছে? তার ‘সৌভাগ্য-সূর্য অস্তাচলগামী’ বলার কারণ কী? “আজ কার রক্ত সে চায়। পলাশি, রাক্ষসী পলাশি !”—কার লেখা, কোন্ নাটকের সংলাপ? নাট্যাংশের সংলাপ রচনায় নাট্যকারের কৃতিত্ব আলোচনা করো।

“আছে শুধু প্রতিহিংসা।”—মন্তব্যটি কার? কী কারণে সে প্রতিহিংসাপরায়ণ হয়েছে?

“আপনাদের কাছে এই ভিক্ষা যে, আমাকে শুধু এই আশ্বাস দিন”—কার কাছে বক্তা ভিক্ষা চান? তিনি কী আশ্বাস প্রত্যাশা করেন?

‘সিরাজদ্দৌলা’ নাট্যাংশ অবলম্বনে সিরাজ উদদৌলার চরিত্র বৈশিষ্ট্য আলোচনা করো।

“তোমাদের কাছে আমি লজ্জিত”—কে, কাদের কাছে লজ্জিত? লজ্জা পাওয়ার কারণটি উল্লেখ করো।

মিরজাফর এবং লুৎফার চরিত্রের বিশিষ্ট দিকগুলি অল্পকথায় আলোচনা করো।

“বাংলা শুধু হিন্দুর নয়, বাংলা শুধু মুসলমানের নয়-মিলিত হিন্দু-মুসলমানের মাতৃভূমি গুলবাগ এই বাংলা।” কাদের উদ্দেশ্য করে একথা বলা হয়েছে? এই বক্তব্যের মধ্য দিয়ে বক্তার কী চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য প্রতিফলিত হয়েছে?

“মুন্সিজি, এই পত্রের মর্ম সভাসদদের বুঝিয়ে দিন।”—কে, কাকে পত্র লিখেছিলেন। এই পত্রে কী লেখা ছিল?“বাংলার এই দুর্দিনে আমাকে ত্যাগ করবেন না।”—কাদের উদ্দেশে এ কথা বলা হয়েছে? কোন দুর্দিনের জন্য তাঁর এই আবেদন?

“ওখানে কী দেখচ মূর্খ, বিবেকের দিকে চেয়ে দ্যাখো!”—বক্তা কে? উদ্দিষ্ট ব্যক্তির প্রতি বক্তার কী মনোভাব লক্ষ করা যায়?

কমবেশি ১৫০ শব্দে উত্তর দাও: সহায়ক পাঠ:

ক্ষিতীশ সিংহ কোনিকে সাঁতার চ্যাম্পিয়ান করানোর জন্য যে-কঠোর অনুশীলনের ব্যবস্থা করেছিলেন,তার পরিচয় দাও।

“অবশেষে কোনি বাংলা সাঁতার দলে জায়গা পেল।”-কোনি কীভাবে বাংলা সাঁতার দলে জায়গা পেল, তা সংক্ষেপে লেখো।

‘কোনি’ উপন্যাস অবলম্বনে সাঁতার প্রশিক্ষক ক্ষিতীশ সিংহের চরিত্র সংক্ষেপে আলোচনা করো।

কোনি উপন্যাস অবলম্বনে ‘কোনি’র চরিত্র বিশ্লেষণ করো।

দারিদ্র্য ও বঞ্চনার বিরুদ্ধে কোনির যে-লড়াই তা সংক্ষেপে আলোচনা করো।

“তোর আসল লজ্জা জলে, আসল গর্বও জলে”—কোনির কোন্ কথার পরিপ্রেক্ষিতে এ কথা বলা হয়েছে? তার ‘আসল লজ্জা’ ও ‘আসল গর্ব’ জলে বলার কারণ কী?

কোনির পারিবারিক জীবনের পরিচয় দাও।

ক্ষিদ্দা কীভাবে কোনির জীবনে প্রেরণা হিসেবে কাজ করেছিল, সে-সম্পর্কে আলোচনা করো।“জোচ্চুরি করে আমাকে বসিয়ে রেখে এখন ঠেকায় পড়ে এসেছ আমার কাছে”—কোনির এই

অভিমানের কারণ কী? এর পরবর্তী ঘটনা সংক্ষেপে বর্ণনা করো।

“ওইটেই তো আমি রে, যন্ত্রণাটাই তো আমি”—বক্তা কে? উক্তিটির তাৎপর্য বিশ্লেষণ করো।

“আপনি আমার থেকে চার হাজার গুণ বড়োলোক, কিন্তু চার লক্ষ টাকা খরচ করেও আপনি নিজে

শরীরটাকে চাকর বানাতে পারবেন না।”—বক্তা কাকে, কেন এ কথা বলেছিলেন?

“এটা বুকের মধ্যে পুষে রাখুক।”—কী পুষে রাখার কথা বলা হয়েছে? কী কারণে এই পুষে রাখা?

‘কোনি’ উপন্যাসের কাহিনি অবলম্বনে স্বামীর যোগ্য সহধর্মিণীরূপে লীলাবতীর পরিচয় দাও।

কমবেশি ১৫০ শব্দে উত্তর দাওঃ

বৃক্ষরোপনের উপযোগিতা বিষয়ে দুই বন্ধুর মধ্যে কাল্পনিক সংলাপ রচনা করো।

মোবাইল ফোনের ব্যবহার নিয়ে দুজন ছাত্রের মধ্যে কাল্পনিক সংলাপ রচনা করো।

বিদ্যালয়ে মিড-ডে মিলের গুণাগুণ নিয়ে দুই ছাত্রের মধ্যে কাল্পনিক সংলাপ রচনা করো।

নারী স্বাধীনতা বিষয়ে দুই বন্ধুর মধ্যে কাল্পনিক সংলাপ রচনা করো।

কুসংস্কার প্রতিরোধে বিজ্ঞান মনস্কতার বিষয়ে দুই বন্ধুর মধ্যে কাল্পনিক সংলাপ রচনা করো

বিশ্ব উষ্ণায়ন নিয়ে দুই বন্ধুর মধ্যে কাল্পনিক সংলাপ রচনা করো।

“চারপাশ সুন্দর করে তোলার জন্য সচেতনতা খুব জরুরি”—এ বিষয়ে দুই ছাত্রের/ছাত্রীর মধ্যে কাল্পনিক সংলাপ রচনা করো।

সাম্প্রদায়িক মৈত্রী সম্বন্ধে দুই ভিন্নধর্মী বন্ধুর মধ্যে কাল্পনিক সংলাপ রচনা কর ।

তোমার বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অথবা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান বিষয়ে একটি প্রতিবেদন রচনা কর।

 

“রোগীর মৃত্যু ঘিরে হাসপাতাল ভাঙচুর”—এ বিষয়ে একটি প্রতিবেদন রচনা করো।

‘রক্তদান জীবনদান—এ বিষয়ে একটি প্রতিবেদন রচনা করো।

“গ্রামীণ এলাকায় সরকারি হাসপাতাল/পাঠাগার-এর উদবোধন হল।”—এ বিষয়ে একটি প্রতিবেদন রচনা করো।

কোনো গ্রামীণ এলাকায় ডাইনি সন্দেহে রুদ্ধাকে নিপীড়নের বিরুদ্ধে সংঘবদ্ধ প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হল -এ বিষয়ে প্রতিবেদন রচনা কর।

“নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্য ঊর্ধ্বমুখী”—এ বিষয়ে একটি প্রতিবেদন রচনা করো।

“জলের অপচয় রোধ/পথ দূর্ঘটনা বিষয়ক সচেতনতা শিবির”—বিষয়ে একটি প্রতিবেদন রচনা করো।

অসহনীয় দারিদ্র্যকে জয় করে একজন ছাত্রী মাধ্যমিক পরীক্ষায় খুব ভালো রেজাল্ট করেছে। তার সংগ্রাম বিষয়ে একটি প্রতিবেদন রচনা করো।

বৃষ্টিতে শহরের জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়ার বিষয়ে একটি প্রতিবেদন রচনা করো।

কমবেশি ৪০০টি শব্দে প্রবন্ধ রচনা করো।

দৈনন্দিন জীবনে বিজ্ঞান।

বিজ্ঞান ও কুসংস্কার।

তোমার প্রিয় ঋতু।

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস।

শিক্ষাবিস্তারে গণমাধ্যমগুলির ভূমিকা।

বাংলার উৎসব/মেলা।

বাংলার ঋতুবৈচিত্র্য।

সাহিত্য পাঠের প্রয়োজনীয়তা।

একটি অলৌকিক অভিজ্ঞতা।

প্রাত্যহিক জীবনে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি।

জাতীয় সংহতি ও বিচ্ছিন্নতাবাদ।

সমাজকল্যাণে ছাত্রসমাজের ভূমিকা।

একটি স্মরণীয় ঘটনা/তোমার জীবনের স্মরণীয় দিন।

ছুটির দিন।

একটি গাছ একটি প্রাণ।

পরিবেশ সুরক্ষায় ছাত্রসমাজের ভূমিকা।

বিশ্ব উষ্বায়ন।

লিখে পাঠিয়েছেন অর্পণ বন্দ্যোপাধ্যায় অধ্যক্ষ ব্রিলিয়ান্ট ইন্টারন্যাশনাল স্কুল, মধুবন, বিহার


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ