জেলা 

উত্তর ২৪ পরগনার সুবর্ণপুর হাই স্কুলে পুনর্মিলন অনুষ্ঠানে প্রাক্তনীদের পত্রিকা ‘সৌবর্ণ’ প্রকাশ

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নায়ীমুল হকের প্রতিবেদন: মঞ্চে যাঁরা উপবিষ্ট তাঁদের বয়স আশির কাছাকাছি। কেউ বা নব্বই ছুঁই ছুঁই। তাঁদের সমাদর করে এনে সম্বর্ধনা দিচ্ছেন তাঁদেরই একসময়ের ছাত্রছাত্রীরা যাঁরা নিজেরাই এখন অবসরের মুখে। গতকাল এমনই এক দৃশ্যের সাক্ষী থাকল চাকলার সুবর্ণপুর হাই স্কুল। মাধ্যমিক ফ্রেন্ডস সার্কেল ১৯৮৩-এর উদ্যোগে প্রায় একচল্লিশ বছর বাদে ছাত্র-শিক্ষকের এই পুনর্মিলন আনন্দাশ্রু এনে দিল ছাত্র-শিক্ষক উভয়ের চোখে।

মাত্র পাঁচ মাস আগে স্কুলের ১৯৮৩ মাধ্যমিক ব্যাচের ছাত্রছাত্রীরা গড়ে তোলেন মাধ্যমিক ফ্রেন্ডস সার্কেল ১৯৮৩। এদিন ছিল প্রথম পুনর্মিলন অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে তৎকালীন শিক্ষকদের পাশাপাশি আপ্যায়িত করা হয় প্রয়াত শিক্ষক শিক্ষাকর্মিবৃন্দের পরিবারকেও। শ্রদ্ধার্ঘ্য স্মারক তুলে দেওয়া হয় তাঁদের হাতে।

Advertisement

অনুষ্ঠানে হাজির থাকার জন্য সৌদি আরব থেকে উড়ে এসেছিলেন প্রাক্তন ছাত্র আজহারুল ইসলাম, ঢাকা থেকে লিয়াকত আলি, বেঙ্গালুরু থেকে শামসুল আলম। উপস্থিত ছিলেন জীবনবীমার বরিষ্ঠ আধিকারিক হেনা দে সরকার-সহ তাঁদের অন্যান্য সহপাঠীবৃন্দ। বর্ধমান থেকে এসেছিলেন তৎকালীন প্রধান শিক্ষক প্রয়াত গোলাম মোস্তফা শিকদার সাহেবের পুত্র অ্যাডভোকেট শাহারিয়ার কামাল শিকদার। উপস্থিত ছিলেন স্কুলের ভারপ্রাপ্ত শিক্ষক মলিন বিশ্বাস, পরিচালন সমিতির সভাপতি আইনুজ্জামান সহ বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ।

অনুষ্ঠানে প্রকাশিত হয় স্কুল সংক্রান্ত তথ্য, চিত্র ও স্মৃতিকথা-সমৃদ্ধ পুস্তক ‘সৌবর্ণ’। পুস্তক সম্পাদনা ও সামগ্রিক ব্যবস্থাপনায় ছিলেন স্কুলের প্রাক্তন ছাত্র ও বারাসাত মহাত্মা গান্ধী মেমোরিয়াল হাই স্কুলের বর্তমান প্রধান শিক্ষক শেখ আলী আহসান।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ