কলকাতা 

রাজ্যের স্বরাষ্ট্র সচিব হলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিশ্বস্ত অফিসার এবং বাঙালি কন্যা নন্দিনী চক্রবর্তী

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : রাজ্যের স্বরাষ্ট্র সচিব পদে নিয়োগ করা হলো মুখ্যমন্ত্রীর আস্থাভাজন অফিসার নন্দিনী চক্রবর্তীকে রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে এই মর্মে বিজ্ঞপ্তি জারি হয়ে গেছে। এর আগে স্বরাষ্ট্র সচিব পদে ছিলেন ভগবতী প্রসাদ গোপালিকা ওরফে বিপি গোপালিকা। তিনি আজ রবিবার থেকে রাজ্যের মুখ্য সচিবের দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন। ফলে তাঁর শূন্য পদে বসলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সবচেয়ে বিশ্বস্ত অফিসার নন্দিনী চক্রবর্তী।

নন্দিনী চক্রবর্তী ১৯৯৪ সালের ব্যাচের আইএএস অফিসার। একজন দক্ষ অফিসার হিসাবে নানা গুরুত্বপূর্ণ পদে তিনি কর্মরত ছিলেন । ২০১১ সালে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নেওয়ার পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অত্যন্ত ঘনিষ্ট হয়ে পড়েন এই নন্দিনী চক্রবর্তী। ২০১১ সালেই তিনি একইসঙ্গে শিল্প নিগমের ম্যানেজিং ডিরেক্টর এবং তথ্য সংস্কৃতি দফতরের সচিব পদ অলংকৃত করেছিলেন।

Advertisement

যাইহোক মুখ্য সচিব পদে বিপি গোপালিকা নিয়োগের পরেই প্রশ্ন উঠেছিল স্বরাষ্ট্র সচিব পদে কে এ নিয়ে জল্পনা চলছিল রাজ্য প্রশাসন স্তরে। এই পদে একাধিক অফিসারের নাম উঠে আসে এদের মধ্যে অর্থ সচিব মনোজ পন্থ, বন দফতরের সচিব বিবেক কুমার, শ্রম দফতরের সচিব বরুণ রায়ের নাম উঠে এসেছিল। এ ছাড়া তালিকায় ছিল এক বরিষ্ঠ আমলা প্রভাত মিশ্রের নামও। কিন্তু শেষ পর্যন্ত শিকে ছিঁড়ল নন্দিনীর ভাগ্যেই।

এত দিন পশ্চিমবঙ্গের পর্যটন দফতরের প্রিন্সিপাল সেক্রেটারি বা প্রধান সচিবের দায়িত্বে ছিলেন নন্দিনী। রবিবার জারি করা সরকারি বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, নন্দিনীকে পর্যটন দফতরের পাশাপাশি স্বরাষ্ট্র এবং পাহাড় সংক্রান্ত বিষয়ের প্রধান সচিব হিসাবে নিয়োগ করা হল। পরবর্তী নির্দেশ না আসা পর্যন্ত তিনি এই সমস্ত দায়িত্বই সামলাবেন। এ ছাড়া নন্দিনীর হাতে মেদিনীপুর ডিভিশনের অতিরিক্ত কমিশনারের দায়িত্বও থাকছে।

উল্লেখ্য এ বছরের ফেব্রুয়ারি মাসেই রাজ্যপাল সিভি আনন্দ বোসের প্রধান সচিব হিসাবে কাজ করার সময় নন্দিনী চক্রবর্তীকে সরিয়ে দেয় রাজভবন। যা নিয়ে ইতিমধ্যেই রাজ্য রাজনীতিতে আলোড়ন পড়েছিল।

রাজভবনে যাওয়ার পরেই তিনি ‘শাসক দলের লোক’ তকমা পান। রাজভবন সূত্রে খবর, সেই তকমার কারণেই গত ফেব্রুয়ারি মাসে নন্দিনীকে সরানো হয় রাজভবন থেকে। এবার রাজ্যপালের সেই সরিয়ে দেওয়া সচিবকেই রাজ্যের স্বরাষ্ট্র সচিবের দায়িত্ব দিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একটা মাস্টার স্ট্রোক দিলেন বলে মনে করা হচ্ছে। আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের মুখে বাঙালি এক মহিলা অফিসারকে রাজ্যের স্বরাষ্ট্র সচিব পদে বসিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও নজির তৈরি করলেন বলে ওয়াকিবহাল মহাল মনে করছে।

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ