দেশ 

যৌন হেনস্তার প্রতিবাদ করায় দলিত কন্যাকে ফুটন্ত তেলের কড়াইয়ে ফেলে মেরে ফেলার চেষ্টা!

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : বাবরি মসজিদ ভেঙে ফলাও করে রাম মন্দির উদ্বোধনের দিনক্ষণ ঘোষণা করে দিয়েছে কেন্দ্রের বিজেপি সরকার। আগামী ২২শে জানুয়ারি অযোধ্যায় রাম মন্দিরে রামের চক্ষু উন্মোচন করবেন দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। আর তা নিয়ে দেশ জুড়ে চলছে গেরুয়া শিবিরের উল্লাস। কিন্তু রাম মন্দিরের উদ্বোধন হবে ঠিকই রামকে পুনরায় প্রতিষ্ঠিত করা হবে ঠিকই। রাম রাজ্য কি প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব হবে? সেই প্রশ্নটাই আজকে আমাদের সকলের সামনে বড় হয়ে দাঁড়িয়েছে!

রাম মন্দিরের উদ্বোধনের খবর যখন ফলাও করে ছাপা হচ্ছে সংবাদমাধ্যমে ঠিক তখনই অযোধ্যা থেকে কয়েকশ মাইল দূরেই এক দলিত কন্যা যৌন হেনস্তার প্রতিবাদ করার দায়ে ফুটন্ত তেলের কড়াইয়ে ফেলে মেরে ফেলার চেষ্টা করা হয়েছে। জীবন মৃত্যুকে সম্বল করে ওই দলিতকন্যা এখন দিল্লির এক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। স্বাধীন ভারতেই সম্ভবত এই প্রথম মোদি সরকার এবং যোগী সরকারের আমলে দলিতদের উপর নির্যাতন বৃদ্ধি পেয়েছে।

Advertisement

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ঘটনাটি যোগীরাজ্যের বাঘপতের। তরুণীর ভাই পুলিশে অভিযোগ করেছেন, ধানৌড়া সিলভারনগর গ্রামে একটি তেলের মিলে কাজ করতেন তাঁর বোন। মিলের মালিক প্রমোদ, তাঁর সঙ্গী রাজু ও সন্দীপ তরুণীর শ্লীলতাহানি করেন। এর প্রতিবাদ করলে অভিযুক্তরা জাত তুলে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন। এর পরেই তরুণীকে ফুটন্ত তেলের কড়াইতে ঠেলে ফেলে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ।

বর্তমানে আশঙ্কাজনক অবস্থায় দিল্লির একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন নির্যাতিতা তরুণী। নিজের জবানবন্দিতে জানয়েছেন, গরম তেলের কড়াইতে ঠেলে ফেলার আগে অকথ্য ভাষায় করেছেন অভিযুক্তরা। এদিকে হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, তরুণীর শরীরের অর্ধেকের বেশি পুড়ে গিয়েছে। সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হাত এবং পা। ভাইয়ের অভিযোগের ভিত্তিতে প্রমোদ, সন্দীপ এবং রাজুকে গ্রেপ্তার করে খুনের চেষ্টার মামলা দায়ের করেছে উত্তরপ্রদেশ পুলিশ।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ