জেলা 

দলীয় পুর প্রধানের বিরুদ্ধে তৃণমূল কাউন্সিলদের নজিরবিহীন! বিক্ষোভ

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : দলীয় পুর প্রধানের বিরুদ্ধে তৃণমূল কাউন্সিলের বিক্ষোভে সামিল হলেন। এই বেনজির কোন্দলটি ঘটেছে মেদিনীপুর পৌরসভায়।তাঁদের অভিযোগ, পুরপ্রধান ‘স্বৈরাচারী’। তিনি কাউন্সিলরদের প্রতি বিমাতৃসূলভ আচরণ করেন। উন্নয়নের টাকায় চলে ‘মোচ্ছব’। তাই পুরসভা থেকে ওই ‘অযোগ্য’ প্রধানের পদত্যাগের দাবি তুলেছেন কাউন্সিলরেরা।

মেদিনীপুর পুরসভার পুরপ্রধান সৌমেন খান। তিনি নির্বাচনের আগে তৃণমূলে যোগ দিয়েছিলেন। তাঁর বিরুদ্ধে দলের কাউন্সিলরদের একাংশের অভিযোগ, সৌমেন তাঁর ঘনিষ্ঠ কয়েক জন কাউন্সিলরকে সঙ্গে নিয়ে নিজের ইচ্ছামতো পুরসভা চালাচ্ছেন। তাঁর এই ‘স্বেচ্ছাচার’ মেনে নেওয়া যাচ্ছে না।

Advertisement

মেদিনীপুর পুরপ্রধানের দফতরের সামনে বুধবার সকাল থেকে বিক্ষোভ চলছে। পোস্টার হাতে নিয়ে অবস্থানে বসেছেন তৃণমূলের ১৩ জন কাউন্সিলর। তাঁদের মধ্যে রয়েছেন, মেদিনীপুর শহরের তৃণমূল সভাপতি তথা কাউন্সিলর বিশ্বনাথ পাণ্ডব, জেলা তৃণমূলের সভাপতির স্ত্রী তথা কাউন্সিলর মৌসুমী হাজরা প্রমুখ। পুরপ্রধানের বিরুদ্ধে স্লোগান দিচ্ছেন তাঁরা।

বিক্ষোভরত কাউন্সিলর বিশ্বনাথ বলেন, ‘‘আমরা দলীয় পতাকায় জেতা কাউন্সিলর। মেদিনীপুরে পুর নির্বাচনে ২৫টির মধ্যে ২০টি আসনে তৃণমূল জিতেছে। দল পুরপ্রধানের পদে যাঁকে বসিয়েছে, আমরা সকলে তাঁকে সম্মান জানিয়েছিলাম। কিন্তু বর্তমানে দেখা যাচ্ছে, তিনি তৃণমূলের কাউন্সিলরদের প্রতি বিমাতৃসুলভ আচরণ করছেন। উন্নয়নের স্বার্থে যে টাকা, তা দিয়ে মোচ্ছব করা হচ্ছে। পুরসভা আর্থিক ভাবে দুর্বল হয়ে পড়েছে। অপরিকল্পিত ভাবে পুর পরিচালনা করা হচ্ছে। চেয়ারম্যান অপদার্থ।’’

তিনি আরও বলেন, ‘‘পুরপ্রধানের বিমাতৃসুলভ আচরণ, স্বৈরাচারী সিদ্ধান্ত , ফান্ড ঠিকমতো ভাগ না করার প্রতিবাদ জানাতে আমরা অবস্থান বিক্ষোভে বসেছি। দলের একাংশের কাউন্সিলরকে সঙ্গে নিয়ে স্বৈরাচারী মনোভাবের সঙ্গে তিনি পুরসভা চালাচ্ছেন। আমরা তার প্রতিবাদ জানাচ্ছি। অবিলম্বে পুরপ্রধানকে পদত্যাগ করতে হবে। তা না হলে আমরা বৃহত্তর আন্দোলনের পথে হাঁটব।’’

যাঁর বিরুদ্ধে বিক্ষোভ, সেই পুরপ্রধান সৌমেন এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘‘ওঁদের সঙ্গে আমি কথা বলেছি। সকালেই জেলা সভাপতির বাড়িতে গিয়ে কথা বলে এসেছি। কোনও সমস্যা থাকলে আলোচনার মাধ্যমে তার সমাধান করে নিতে হবে। আমি সবাইকেই সমান গুরুত্ব দিই। স্বেচ্ছাচার করি না। উন্নয়নের ক্ষেত্রে কাউকেই বঞ্চিত করি না। দল আমাকে এই পদে বসিয়েছে, দল চাইলে পদত্যাগ করব।’’


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ