কলকাতা 

বিজ্ঞানসাধক আচার্য জগদীশ চন্দ্র বসুর জন্মদিনে রামমোহন লাইব্রেরিতে আলোচনাচক্র

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বিশেষ প্রতিনিধি : বিজ্ঞানের অমর প্রতিভা জগদীশ চন্দ্র বসুর ১৬৬-তম জন্ম বর্ষ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার কলকাতার রামমোহন লাইব্রেরিতে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল বিজ্ঞান শিক্ষা নিয়ে বিশেষ এক আলোচনা চক্র।

আলোচনা চক্রে সকলকে শুভেচ্ছা জানিয়ে সুত্রপাত করেন রামমোহন লাইব্রেরির সম্পাদক সঞ্জিত মিত্র।

Advertisement

আলোচনার শুরুতে বিশিষ্ট ক্যান্সার বিশেষজ্ঞ ডা.শঙ্কর নাথ বিজ্ঞান সাধক আচার্য জগদীশচন্দ্র বসুর জীবনের বিশেষ কিছু দিক তুলে ধরেন। উল্লেখ্য আচার্যদেব ছিলেন এই লাইব্রেরির অন্যতম একজন সভাপতি।

এদিনের আলোচ্য বিষয় ছিল-

বিজ্ঞান শিক্ষায় বাঙালির ঐতিহ্য এবং তার ধারাবাহিকতা রক্ষায় সংকট ও প্রতিকার। এই বিষয় নিয়ে এদিন আলোচনা করেন অধ্যাপক সুকান্ত চৌধুরী, বিজ্ঞানী আশীষ লাহিড়ী, অনিতা অগ্নিহোত্রী, ড. চিত্রা মন্ডল, ড.অনুপম রায়, অধ্যাপক সৌমিত্র ব্যানার্জি, প্রদীপ মহাপাত্র, অধ্যাপক পার্থ রায়, চন্দন মাইতি, অধ্যাপক প্রণবেশ চক্রবর্তী, সাবির আহমেদ, অনুপম রায়, জনা মজুমদার, সৈকত গাঙ্গুলী, ড.অনুপ রায়, সৌগত চক্রবর্তী, অধ্যাপক তুষার চক্রবর্তী, প্রসূন গাঙ্গুলী, নায়ীমুল হক প্রমুখ।

আলোচনায় বিদগ্ধ বক্তারা আশঙ্কা প্রকাশ করেন শিক্ষা যেন ক্রমশ বেসরকারিকরণের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। যেভাবে শিক্ষাঙ্গনে বিশৃঙ্খলা বাড়ছে, বাড়ছে শিক্ষকের অপ্রতুলতা, বিজ্ঞান শিক্ষার সরঞ্জাম যেমন অপ্রতুল তেমনই শিক্ষকদের বিজ্ঞান শেখানোর মানসিকতাও যেন দিন দিন হ্রাস পাচ্ছে। এই প্রসঙ্গে টেক্সট বই ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে খুঁটিয়ে পড়ার অভ্যাস গড়ে তোলার জন্য প্রতিটি শিক্ষক-শিক্ষিকাকে সচেষ্ট হতে হবে বলে একমত হন সকলে, এছাড়া সাধারণ সমাজেও অনেকাংশে বিজ্ঞানমনস্কতার অভাব যেভাবে দেখা যাচ্ছে তাও বেশ চিন্তার কারণ বলে মনে করেন সকলে।

এসবের প্রতিকার নিয়ে ভাবতে হবে আমাদেরকে, প্রয়োজনে একজোট হয়ে পথেও নামতে হবে আমাদের। আচার্য জগদীশচন্দ্র বসুর পবিত্র এই জন্মদিনে আমরা সকলে ঐক্যবদ্ধভাবে কিছু কাজ শুরু করতে পারি বলে মত ব্যক্ত করেন সায়েন্স কমিউনিকেটিভ ফোরামের সম্পাদক অভিজিৎ বর্ধন। সবশেষে এদিনের সকল বক্তব্যের সারমর্ম তুলে ধরেন অধ্যাপক সন্দীপন সেন।

বিভিন্ন ক্ষেত্রের শিক্ষাবিদদের নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ এই আলোচনা চক্রটির সভাপতিত্ব করেন বিশিষ্ট চিকিৎসক রামমোহন লাইব্রেরির সভাপতি ডা. সুবীর গাঙ্গুলী এবং ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন কোষাধ্যক্ষ সজল মিত্র।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ