জেলা 

রাস্তা অবিলম্বে তৈরি করতে হবে দাবিতে এবার সাংসদকে ঘেরাও করল মালডাঙা গ্রামের বাসিন্দারা

শেয়ার করুন

বাংলার জনরব ডেস্ক : বেহাল রাস্তার কারণে গ্রামে ঢুকতে পারেনি অ্যাম্বুলেন্স ফলে খাটিয়াই করে নিয়ে যাওয়ার সময় অসুস্থ তরুণীকে রাস্তায় মারা যায়। সেই ঘটনার জেরে এলাকার বাসিন্দারা কয়েকদিন আগে রাস্তা অবরোধ করেন এবং ভিডিওর কাছ থেকে এক প্রকার জোর করে সময়সীমা বেধে দেয় রাস্তা সারানোর। এবার এই বিতর্কে আজ রবিবার এলাকার বিজেপির সাংসদ খগেন মূর্মুকে ঘেরাও করলো এলাকার মানুষ।

রবিবার বিজেপি সাংসদ খগেন মুর্মু মৃত তরুণী মামনি রায়ের বাড়িতে যান। তাঁকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখান স্থানীয়রা। বছরের পর বছর কেন রাস্তা তৈরি হল না, সেই প্রশ্ন করে এলাকাবাসী। যেকোনও শর্তে ওই ৫ কিলোমিটার রাস্তা তৈরির দাবিও জানান তাঁরা। রাস্তা তৈরির আশ্বাস দেন খগেন মুর্মু। সাংসদ তহবিল থেকে ১৩ লক্ষ টাকা দেওয়ার আশ্বাস বিজেপি সাংসদের।

Advertisement

উল্লেখ্য, দিনকয়েক ধরে অসুস্থ ছিলেন মালদহের বামনগোলার গোবিন্দপুর মহেশপুর অঞ্চলের মালডাঙা গ্রামের বাসিন্দা মামনি রায়। জ্বর হয়েছিল। শারীরিক অবস্থার ক্রমশ অবনতি হতে থাকে। মামনিকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বাড়ি থেকে প্রায় সাড়ে ৪ কিলোমিটার দূরের মোদিপুকুর গ্রামীণ হাসপাতালে ভর্তি করার কথা ভাবা হয়।

অ্যাম্বুল্যান্সের খোঁজখবর করতে থাকেন মামনির স্বামী কার্তিক। মেলেনি অ্যাম্বুল্যান্স। এমনকী টোটোও পাননি বলেই জানা গিয়েছে। মামনির পরিবারের দাবি, অ্যাম্বুল্যান্স না পেয়ে বাধ্য হয়ে শুক্রবার মামনিকে খাটিয়ায় শুইয়ে দড়ি বেঁধে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সেই মতো মুর্মুর্ষু স্ত্রীকে নিয়ে বেরন কার্তিক। তবে পথেই মৃত্যু হয় মামনির। ঠিক সতেরো বছর আগে একইভাবে প্রাণ হারান মামনির মা-ও।

এই ঘটনার পরে এলাকার মানুষ বিক্ষোভে ফেটে পড়ে এবং রাস্তা অপরাধ করে। বিডিও এবং এসডিও এর হস্তক্ষেপে শেষ পর্যন্ত তিন মাসের মধ্যে রাস্তা করা হবে এই প্রতিশ্রুতি দেওয়ার পর সাধারণ মানুষ অবরোধ তুলে নেয়। এরপর আজ এলাকার সংসদ মৃতের বাড়িতে গেলে তাকেও ঘেরাও করে এলাকার মানুষ।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত নিবন্ধ