কলকাতা 

ধর্ষণের মিথ্যা অভিযোগ করলে কঠোর শাস্তির ইঙ্গিত কলকাতা হাইকোর্টের

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : ধর্ষণ বা গণধর্ষণের মতো অত্যন্ত গুরুতর বিষয়ে মিথ্যা অভিযোগ করার জন্য কঠোর শাস্তির ইঙ্গিত দিলেন বিচারপতি প্রতীক প্রকাশ ব্যানার্জি। বারাসাত গণধর্ষণ ঘটনার শুনানিতে গত ২৬ নভেম্বর বিচারপতি অভিযোগকারীকে তাঁর বক্তব্য পেশ করতে বলেছিলেন আজকের মধ্যে। কারণ, মেডিকেল রিপোর্ট বলছে ধর্ষণ হয়নি। অভিযোগকারী তাঁর বক্তব্য পাঠিয়ে দেন একজন জুনিয়ার আইনজীবীর হাত দিয়ে।  পাশাপাশি অভিযোগকারীও ছিলেন না। এতেই বিচারপতি অত্যন্ত ক্ষোভের সঙ্গে জুনিয়র আইনজীবীকে বলেন, “ধর্ষণের মতো গুরুতর বিষয়ে মিথ্যা অভিযোগ করার জন্য কী কঠিন শাস্তি হতে পারে আপনি ভাবতে পারবেন না! আমি রিপোর্টটা পড়ে দেখি। এই মামলার রায় আজ আপাতত হচ্ছে না। তবে খুব শীঘ্রই হবে।”

প্রসঙ্গত, গণধর্ষণের ঘটনায়  পুলিশি নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ তুলে দোষীদের শাস্তির দাবিতে গত ৩০অক্টোবর কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন নির্যাতিতার বোন। হাইকোর্টের অবকাশকালীন বেঞ্চে বিচারপতি প্রতীক প্রকাশ ব্যানার্জি সেই মামলায় জানতে চান, কেন ধর্ষণের অভিযোগে মেডিকেল টেস্ট করা হয়নি ? ঘটনাস্থল থেকে কেন সরানো হয়নি ওই মহিলার পোশাক? যে পুলিশকর্মী ওই মহিলাকে হাসপাতালে নিয়ে গেছিলেন তাঁকে ১৪ নভেম্বর হাইকোর্টে হাজিরার নির্দেশ দিয়েছিলেন।

পাশাপাশি অবিলম্বে ওই মহিলাকে বারাসাত জেলা হাসপাতাল থেকে এসএসকেএমের সমতুল্য কোনও হাসপাতালে এনে চিকিৎসার ব্যবস্থা করার নির্দেশ দিয়েছিলেন পুলিশকে। আজ এই পুরো ঘটনার উল্লেখ করে বিচারপতি বলেন, “অবকাশকালীন বেঞ্চে এসে অভিযোগ করা হয়েছিল। এখন দেখতে পাচ্ছি সম্পত্তির ভাগ বাঁটোয়ারা সংক্রান্ত কোনও সমস্যা রয়েছে নিজেদের বোনেদের মধ্যে। পুরো তথ্য খুঁটিয়ে দেখি আগে।”


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment