জেলা 

,সরকারি মদ বিক্রির টাকা যায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে। আর বেআইনি মদ বিক্রির টাকা যায় অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে শান্তিপুর বিষমদ কান্ড নিয়ে কটাক্ষ বিজেপি নেতা কৈলাশ বিজয়বর্গীয় ও মুকুল রায়ের

শেয়ার করুন
  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : নদিয়ার শান্তিপুরে বিষমদ পান করে নিহতদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে বিজেপি নেতা কৈলাশ বিজয়বর্গীয় ও মুকুল রায় বিক্ষোভের মুখে পড়েন। অভিযোগ, তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মী ও সমর্থকরা কৈলাশ বিজয়বর্গীয় ও মুকুল রায়কে ঘিরে বিক্ষোভ দেখান। বিজেপির প্রতিনিধি দলের গাড়ির সামনে শুয়ে পড়ে পথ আটাকানো হয় বলে অভিযোগ। এমনকি গো-ব্যাক স্লোগান ওঠে। মুকুল-কৈলাশদের ঢুকতে দেওয়া হয়নি শান্তিপুরের গ্রামে।

রাস্তায় দাঁড়িয়েই বিজেপির রাজ্য পর্যবেক্ষক কৈলাশ বিজয়বর্গীয় তোপ দাগেন তৃণমূলের বিরুদ্ধে। মুকুল রায়ের টার্গেট করেন স্বয়ংমুখ্যমন্ত্রী ও মুখ্যমন্ত্রীর ভাইপোকে। এই দুই বিজেপি নেতা বলেন ,সরকারি মদ বিক্রির টাকা যায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে। আর বেআইনি মদ বিক্রির টাকা যায় অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে। তাই শান্তিপুরে বিষমদে মৃত্যুর দায় নিতে হবে তাঁদেরই।


এদিন সকালে পরিষদীয় মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় বিষমদে মৃতদের পরিবারের হাতে অনুদান তুলে দেন। মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে ক্ষতিপূরণ ঘোষণা করা হয়েছিল মৃতদের পরিবারের জন্য। সেই ঘোষণামতো এদিন ১০টি পরিবারকে ২ লক্ষ টাকা করে চেক তুলে দেওয়া হয়।

পার্থ চট্টোপাধ্যায় শান্তিপুরে যাওয়ার পরেই বিজেপির তরফে শান্তিপুর অভিযান করা হয় । মুকুল রায় ও কৈলাশ বিজয়বর্গীয় নেতৃত্বে এক প্রতিনিধি দল শান্তিপুর যাবার পথে  বিভিন্ন জায়গায় বাধা দেওয়ার চেষ্টা করা হয় বলে অভিযোগ। যদিও  সমস্ত বাধা পেরিয়ে শান্তিপুর পৌঁছে যান তাঁরা।  কিন্ত  গ্রামে ঢোকার মুখে তীব্র  প্রতিবাদের মুখে পড়ে । বিজেপির প্রতিনিধি দলের গাড়ির সামনে শুয়ে পড়ে পথ আটাকানো হয় বলে অভিযোগ। এমনকি গো-ব্যাক স্লোগান ওঠে। মুকুল-কৈলাশদের ঢুকতে দেওয়া হয়নি শান্তিপুরের গ্রামে।  কৈলাশ ও মুকুল সেখান থেকেই  গর্জে ওঠেন তৃণমূলের বিরুদ্ধে।


শেয়ার করুন
  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment