কলকাতা 

কামদুনি মামলার রায়ের উপর স্থগিতাদেশ চেয়ে শীর্ষ আদালতে সিআইডি, এক পক্ষ নয়, দুই পক্ষের কথা শুনে সিদ্ধান্ত জানাল সুপ্রিম কোর্ট,আর কী কী নির্দেশ দিল আদালত? জানতে হলে ক্লিক করুন

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : সাধারণত আসামিরা বা অভিযুক্তরা হাই কোর্টের রায় পছন্দ না হলে শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ হয়। কিন্তু কামদুনি রায় নিয়ে এবার তদন্তকারি সংস্থা নিজেই সুপ্রীম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছে।আজ সোমবার সকালেই এ ব্যাপারে সুপ্রিম কোর্টে একটি বিশেষ আবেদন করা হয়েছে। তবে এই  মামলাটি জরুরি ভিত্তিতে শোনা হলেও শীর্ষ আদালতের চার বিচারপতির বেঞ্চ এখনই হাই কোর্টের নির্দেশে স্থগিতাদেশ দেয় নি।

কামদুনির ধর্ষণ এবং খুনের মামলায় গত শুক্রবার রায় ঘোষণা করে কলকাতা হাই কোর্ট। এই মামলায় যে তিন জনের ফাঁসির নির্দেশ দিয়েছিল নিম্ন আদালত, তাদের মধ্যে এক জনকে বেকসুর খালাস করে হাই কোর্ট। বাকি দু’জনের সাজা কমিয়ে আমৃত্যু কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

Advertisement

পাশাপাশি আরও চার দোষী সাব্যস্তের সাজা মকুবও করে কলকাতা হাই কোর্টের বিচারপতি জয়মাল্য বাগচী এবং বিচারপতি অজয়কুমার গুপ্তের ডিভিশন বেঞ্চ। সেই নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ করেই সোমবার সুপ্রিম কোর্টে তদন্তকারী সংস্থা সিআইডি।

মামলাটি শুনানির জন্য ওঠে বিচারপতি বিআর গাভাইয়ের নেতৃত্বাধীন চার বিচারপতির বেঞ্চে। সুপ্রিম কোর্টের বেঞ্চ রাজ্য সরকারের বক্তব্য শোনার পর সোমবার বলে, আগে এই মামলার সব পক্ষের বক্তব্য শুনতে চায় তারা। তার পর স্থগিতাদেশ নিয়ে সিদ্ধান্ত হবে।

একই সঙ্গে যে ফাঁসির সাজাপ্রাপ্তকে বেকসুর খালাস করেছিল হাই কোর্ট, তাঁর কাছেও জানতে চাওয়া হয়েছে, কেন তাঁর বিরুদ্ধে কোনও পদক্ষেপ করা হবে না? উত্তর দেওয়ার জন্য সাত দিন সময় বেঁধে দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। বেঞ্চ জানিয়েছে, এক সপ্তাহ পর আবার মামলাটি শুনবে সুপ্রিম কোর্ট।

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ