কলকাতা 

মুখ্যমন্ত্রীর হুঁশিয়ারিকে অগ্রাহ্য করে মঙ্গলবার মধ্যরাতেই কন্যাশ্রী বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্য নিয়োগ করলেন রাজ্যপাল

শেয়ার করুন

বাংলার জনরব ডেস্ক : মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হুঁশিয়ারি কে কার্যত অগ্রাহ্য করে মঙ্গলবার মধ্যরাতে কন্যাশ্রী বিশ্ববিদ্যালয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অস্থায়ী উপাচার্য হিসাবে অধ্যাপক কাজল দেকে নিয়োগ করলেন রাজ্যের রাজ্যপাল সিভি আনন্দ বোস।

রাজ্যপাল নিয়োগনামায় সই করছেন, তেমন একটি ছবিও প্রকাশ করা হয়েছে। ঘটনাচক্রে, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মঙ্গলবারই শিক্ষক দিবসের এক অনুষ্ঠানে রাজ্যপালের নাম না-করে তাঁর এই সাম্প্রতিক কালের উপাচার্য নিয়োগ এবং একাধিক নির্দেশনামা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। এমনকি, বিশ্ববিদ্যালয়গুলি যদি বোসের নির্দেশ মেনে চলে, তবে রাজ্য তাদের ক্ষেত্রে ‘আর্থিক অবরোধ’ করবে, তেমন হুঁশিয়ারিও দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। কার্যত এই হুঁশিয়ারিকে গুরুত্ব না দিয়ে রাজ্যপাল আবার নতুন করে বিতর্ক তৈরি করলেন বলে রাজনৈতিক মহল মনে করছে।

Advertisement

রাজভবন ও বিকাশ ভবনের দ্বন্দ্ব দীর্ঘ সময় ধরে চললেও সম্প্রতি তা বড় আকার নেয়। গত ৩১ অগস্ট রাজ্যপাল ঘোষণা করেছিলেন, নতুন করে অন্তর্বর্তিকালীন উপাচার্য নিয়োগ না-হওয়া পর্যন্ত আচার্য হিসাবে তিনি নিজেই রাজ্যের ১৪টি বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্তর্বতিকালীন উপাচার্য হিসাবে দায়িত্ব পালন করবেন। বিষয়টি নিয়ে জলঘোলা হয় বিস্তর। রবিবার রাতে ওই ১৪টি বিশ্ববিদ্যালয়-সহ কল্যাণী বিধানচন্দ্র কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় এবং বেলগাছিয়ার পশ্চিমবঙ্গ প্রাণী ও মৎস্যবিজ্ঞান বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্তর্বর্তী উপাচার্যের মনোনয়ন করেন রাজ্যপাল। সোমবার তাঁদের নিয়োগ করা হয়। রাজ্যের সঙ্গে আলোচনা না-করে এই ধরনের পদক্ষেপ আগেও করেছেন রাজ্যপাল বোস। তার আগে, গত ২ সেপ্টেম্বর রাজভবনের তরফে বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানানো হয়েছিল, আচার্যের পর বিশ্ববিদ্যালয়গুলির সার্বভৌম অধিকর্তা হলেন উপাচার্যই। তাঁর অধীনস্থ বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মীরা আচার্যের নির্দেশ মেনেই কাজ করবেন। সরকার তাঁদের নির্দেশ দিতেই পারে। কিন্তু সেই নির্দেশ তাঁরা মানতে বাধ্য নন।

 


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত নিবন্ধ