কলকাতা বিনোদন, সংস্কৃতি ও সাহিত্য 

জাতীয় স্তরে সেরা ছবির সম্মান পেল বাংলার কালকক্ষ

শেয়ার করুন

বাংলার জনরব ডেস্ক : জাতীয় স্তরে সেরা বাংলা ছবির সম্মান ছিনিয়ে নিল কালকক্ষ। করোনা আবহের প্রেক্ষাপটে এই ছবিটি তৈরি হয়েছিল প্রথম থেকেই সিনেমাপ্রেমীদের কাছে এই ছবিটি জনপ্রিয়তা লাভ করে ।এবার ৬৯ তম জাতীয় পুরস্কার পেয়ে বাংলায় ইতিহাস তৈরি করল কাল-কক্ষ নামে সিনেমাটি।

জাতীয় পুরস্কারে পেয়ে আপ্লুত ছবির পরিচালক শর্মিষ্ঠা মাইতি ও রাজদীপ পাল। শর্মিষ্ঠা মাইতি এ প্রসঙ্গে সংবাদ মাধ্যমকে বলেছেন, ”খুশি তো অবশ্য়ই। প্রথমে অবিশ্বাসও লাগছিল। তবে মনে হচ্ছে আমরা পারলাম। আসলে এই ছবি তৈরি করার সময় থেকেই প্রচুর ওঠা-নামা দেখেছি। প্রচুর সমস্য়ার মধ্যে দিয়ে যেতে হয়েছিল আমাদের। ছবির মুক্তির পরও তো সেভাবে প্রচারের সুযোগ পাইনি। খুব কম লোক এই ছবিটা দেখার সুযোগ পেয়েছিল। সেদিক থেকে দেখলে, এই সম্মান সত্যিই অভাবনীয় সাফল্য। তবে বিশেষ করে প্রথম ছবিতেই যে এই সাফল্যটা পেয়েছি আমরা, সেটা ভেবে আরও ভাল লাগছে।”

Advertisement

এই ছবির আরেক পরিচালক রাজদীপ পাল জানালেন, ”খুবই উত্তেজিত। বিশ্বাস করতে পারছি না একদম। প্রথম ছবিতে এরকম সাফল্য পেলাম আমরা, সেটা ভেবেই দারুণ আনন্দ হচ্ছে। ”

এই ছবিতে অতিমারির সময়কালের মানুষের জীবনযাত্রা এক ঘরে হয়ে যাওয়ার কারণে মানুষের মনস্তত্ত্ব অনেকটাই বিশ্লেষিত হয়েছে।কালকক্ষ বেশ এক্সপিরিমেন্টাল ফিল্ম, বিষয়-ভাবনা চমৎকার।

করোনার প্রেক্ষাপটে দাঁড়িয়ে ছবির চিত্রনাট‌্য। বিধ্বস্ত মানুষের জীবন, তাদের অসহায়তা, মারণ রোগের প্রকোপ এবং চিকিৎসকদের অনিবার্য ভূমিকা টাইমলুপে মোড়া ছবির কাহিনির প্রাথমিক বিষয়। লকডাউন চলাকালীন সময়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে যে অসহায় তার চিত্র প্রকাশিত হয়েছিল তা এই ছবিতে নিপুণভাবে উঠে এসেছে।

 


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত নিবন্ধ