কলকাতা 

পিএসসিতে চিরকুটে চাকরি বিস্ফোরক অভিযোগ শুভেন্দুর

শেয়ার করুন

বাংলার জনরব ডেস্ক : পঞ্চায়েত নির্বাচনের সময় যেসব বিডিও শাসক দলের অনুকূলে কাজ করেছেন তারা বেশিরভাগই ২০১৫ থেকে ২০১৮ সালের মধ্যে নিয়োগ হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। তিনি আজ বিকেলে পাবলিক সার্ভিস কমিশনের অফিসে যান সেখানে ঢোকার চেষ্টা করলে নিরাপত্তা রক্ষীরা তাকে বাধা দেয়। বাধা পেয়ে তিনি চলে আসেন । এরপর সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি বিস্ফোরক অভিযোগ করেন তিনি বলেন, পিএসসিতে চিরকুটে চাকরি হয়েছে ।এই চিরকুটের মাধ্যমে যারা চাকরি পেয়েছেন তারা রাজ্য সরকারের হয়ে পঞ্চায়েত নির্বাচনে কাজ করেছে। এদের মধ্যে অধিকাংশই বিডিও।রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুক্রবার বিকেলে দক্ষিণ কলকাতার পিএসসি ভবনে যান। সেখানে ঢুকতে প্রথমে বাধা পেয়ে নিরাপত্তারক্ষীদের সঙ্গে বচসাতেও জড়ান তিনি। পরে বেরিয়ে যাওয়ার পথে দুর্নীতির বিস্ফোরক তুলেছেন শুভেন্দু অধিকারী।

বিরোধী দলনেতার বিস্ফোরক দাবি, পিএসসি-তেও চিরকুট আসে ! পিএসসি ভবনে ঢোকার সময় দরজা বন্ধ, পুলিশ-রক্ষীদের সঙ্গে বচসা শুভেন্দুর। তারপর বেরোনোর সময় শুভেন্দু জানান, ‘২০১৫-২০১৮ ডব্লুবিসিএসের পরীক্ষা দিয়েছিল কারা? সেই তথ্য চেয়েছি। পঞ্চায়েত নির্বাচনে এরা বিডিও ছিলেন, বেশ কয়েকজনের নিয়োগে গন্ডগোল’।

Advertisement

নিয়োগ দুর্নীতি ঘিরে রাজ্য দীর্ঘদিন ধরেই উত্তাল। একের পর এক দুর্নীতি সামনে উঠে এসেছে গত কয়েক বছরে। হকের চাকরির দাবিতে এখনও রাস্তায় চাকরিপ্রার্থীরা। এর মাঝেই নিয়োগ দুর্নীতির তদন্তে উঠে এসেছিল চাঞ্চল্যকর চিরকুট তত্ত্ব। বিভিন্ন বিভাগে চিরকুটের মাধ্যমে চাকরির সুপারিশ এসেছিল বলে অভিযোগ।

এবার রাজ্যের বিরোধী দলনেতার অভিযোগ পিএসসিতেও চিরকুটে চাকরির সুপারিশ করা হয়েছে। শুধু তাই নয়, চিরকুটে যে রাজ্যের উচ্চপদস্থ আমলা হিসেবে চাকরি পেয়েছেন তাঁদের একাংশই পঞ্চায়েত নির্বাচনে রাজ্য সরকারের পক্ষে ভোটে দুর্নীতি করেছে বলেও অভিযোগ তাঁর।

 


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত নিবন্ধ