কলকাতা 

শোভন কী স্বমহিমায় ফিরছেন তৃণমূল কংগ্রেসে ? আগামী সপ্তাহে সুব্রত-শোভন বৈঠকেই স্পষ্ট হবে

শেয়ার করুন
  • 4
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বিশেষ প্রতিনিধি : শোভন কী স্বমহিমায় ফিরছেন তৃণমূল কংগ্রেসে ?জল্পনা শুরু হয়েছিল গতকালেই শোভন চট্টোপাধ্যায়ের স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্যায়ের মন্তব্যে । তিনি কলকাতা ভাবী মেয়র ফিরহাদ হাকিমকে শুভেচ্ছা জানাতে এসে সাংবাদিকদের বলেছিলেন , ফিরহাদদা শোভনের অসমাপ্ত কাজগুলি শেষ করবে এই প্রত্যাশা করি । সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে রত্না দেবী বলেন , শোভন তো মেয়র হিসেবে সমগ্র কলকাতার চেহারাটাই পাল্টে দিয়েছিল । রত্নার মুখে বহুদিন পর শোভনের প্রশংসা শুনে মনে হয়েছিল পরিবেশ পাল্টাচ্ছে । শোভন এখনও নেত্রী কানন হয়েই ফিরে আসতে পারে । আর এই বিবৃতির ২৪ ঘন্টা কাটতে না কাটতেই ফোন পেলেন তৃণমূলের সর্বোচ্চ নেতৃত্ব থেকে ।

তৃণমূলের রাজ্য সভাপতি তথা সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক  দক্ষিন কলকাতার সাংসদ সুব্রত বক্সী শনিবার সরাসরি ফোন করেন পদত্যাগী মন্ত্রী বিদায়ী মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়কে। শোভনের ঘনিষ্ঠ  সূত্রের উল্লেখ্য এমনই দাবি করেছে কলকাতার এক বড় সংবাদ মাধ্যম।

সংবাদে প্রকাশ শনিবার বেলা ১টা নগাদ  সুব্রত বক্সী ফোন করেন ।কথোপকথন দীর্ঘ ছিল না। তবে তৃণমূল সূত্রে জানা গেছে ,আগামী সপ্তাহে কোনও একটা দিনে শোভনকে দেখা করতে বলেছেন সুব্রত বক্সি। শোভনও জানিয়েছেন, তিনি অবশ্যই দেখা করবেন। তাঁর ঘনিষ্ঠদের দাবি অন্তত এমনই। তৃণমূলের তরফে সরকারি ভাবে অবশ্য শোভন চট্টোপাধ্যায়কে ফোন করার বিষয়ে কিছু জানানো হয়নি।

ডিজিটাল আনন্দবাজারের খবর অনুসারে “গত মঙ্গলবার বিধানসভায় স্পিকারের ঘরে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে শোভন ধমক খেয়েছিলেন। সে দিনই বিকেলে নবান্নে গিয়ে মন্ত্রিত্ব থেকে ইস্তফা দিয়ে আসেন শোভন।  মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সেই ইস্তফা গ্রহণও করে নেন। পাশাপাশি কলকাতার মেয়র পদও তিনি ছেড়ে দিতে বলেন শোভনকে। বুধবার শোভন মেয়র পদে ইস্তফা দেন। কিন্তু তার পরেও শোভন তৃণমূলেরই বিধায়ক এবং তৃণমূলেরই কাউন্সিলর। দলের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করবেন, এমন কথা শোভন এক বারও বলেননি। বরং ইস্তফার পরে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সম্পর্কে শ্রদ্ধা বহাল রেখেই কথাবার্তা বলতে দেখা গিয়েছিল তাঁকে।

মমতা নিজে শোভনের পদক্ষেপ নিয়ে বিরক্তি প্রকাশ করেছিলেন ঠিকই। কিন্তু তাঁর কথাতেও স্পষ্ট ছিল যে, শোভনের দিক থেকে তিনি এখনও পুরোপুরি মুখ ফিরিয়ে নেননি। শুক্রবার তৃণমূলের বেশ কয়েক জন কাউন্সিলর শোভনের বাড়ি গিয়ে তাঁর সঙ্গে দেখা করেন বলে জানা গিয়েছে। মন্ত্রিত্ব এবং মেয়র পদ থেকে শোভন সরে আসায় ওই কাউন্সিলররা বিমর্ষ বলেই খবর। পরিস্থিতির আর অবনতি হতে দিতে চাইছেন না তৃণমূল নেতৃত্বও। জটিলতা কাটাতেই সুব্রত বক্সী সামনের সপ্তাহে শোভনকে দেখা করতে বলেছেন বলে মনে করছে রাজনৈতিক শিবির। ”

 

 


শেয়ার করুন
  • 4
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment