জেলা 

মুর্শিদাবাদের সালারে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়াকে কেন্দ্র করে শাসকদলের ২ গোষ্ঠীর সংঘর্ষের জেরে বিধায়কের তিন অনুগামীকে গ্রেফতার করলো পুলিশ, জেল থেকেই ওরা ভোটে লড়বে, জানিয়ে দিলেন বিধায়ক হুমায়ুন কবির

শেয়ার করুন

বাংলার জনরব ডেস্ক : পঞ্চায়েত ভোটের মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার প্রথম দিনে মুর্শিদাবাদের সালারে তৃণমূলের দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষে কমপক্ষে ১৫ জন আহত হয়। আর এর জেরে  পুলিশ কড়া অবস্থান নিল। বিধায়ক হুমায়ুন কবির গোষ্ঠী বনাম ভরতপুর দু’নম্বর ব্লকের তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি গোষ্ঠীর সংঘর্ষের শাসকদলের তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এই তিনজনই বিধায়কের অনুগামী বলে জানা গেছে।

মনোনয়ন পর্বের প্রথম দিন, শুক্রবার ভরতপুরের তৃণমূল ব্লক সভাপতির অনুগামীদের উপর হামলার অভিযোগ ওঠে। ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ওই ঘটনায় গ্রেফতার করা হয়েছে ৩ জনকে। ধৃতদের নাম আব্দুল আজিজ মির্জা ওরফে ভুটার, ফিরোজ শেখ ওরফে তপন এবং রোহন শেখ। তাঁরা বিধায়ক হুমায়ূন কবীরের ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত এলাকায়। এঁদের মধ্যে আব্দুল ভরতপুর ২ পঞ্চায়েত সমিতির খাদ্য কর্মাধ্যক্ষ, ফিরোজ কর্মাধ্যক্ষ এবং রোহন তৃণমূলের সক্রিয় কর্মী।

Advertisement

এই তিন জনের গ্রেফতারি নিয়ে ভরতপুরের বিধায়ক বলেন, ‘‘মনোনয়ন জমা দেওয়া আটকাতে জনপ্রতিনিধিদের পুলিশ দিয়ে গ্রেফতার করিয়ে নিজে এলাকা দখল করতে চাইছেন ওই ব্লক সভাপতি।’’ এর পর তাঁর হুঙ্কার, ‘‘প্রয়োজন হলে গ্রেফতার হওয়া নেতারা জেল থেকেই ভোটে লড়বেন।’’

অন্য দিকে, এ নিয়ে ভরতপুর ব্লক তৃণমূল সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘‘হামলার ঘটনায় প্রত্যক্ষ যোগ ছিল তিন জনের। আইন নিজের হাতে তুলে নিলে প্রশাসন তো ব্যবস্থা নেবেই। এ ক্ষেত্রে দলের কিছু বলার নেই।’’


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত নিবন্ধ