জেলা 

মন্দিরে পুজো দিতে গিয়ে পানীয় জল চেয়ে খেয়েছিলেন সিভিক ভলেন্টিয়ারের কাছে আর তাতেই ঘুমের ওষুধ মিশিয়ে গৃহবধূকে ধর্ষণ, গ্রেফতার দুই সিভিক

শেয়ার করুন

বাংলার জনরব ডেস্ক : মেয়েকে নিয়ে মন্দিরে পুজো দিতে গিয়েছিলেন বীরভূমের লাভপুরের এক গৃহবধূ। মন্দিরের পাশে ডিউটি করছিলেন দুই সিভিক ভলেন্টিয়ার। প্রচন্ড গরমের ফলে তৃষ্ণার্ত ছিলেন ওই গৃহবধূ তিনি ওই দুই সিভিক ভলেন্টিয়ার এর কাছ থেকে জল চেয়ে খান। আর সেই জলে ঘুমের ওষুধ মিশিয়ে দিয়ে গৃহবধূকে অজ্ঞান করে পাশের গেস্ট হাউসে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করার অভিযোগ উঠল ওই দুই সিভিক ভলেন্টিয়ার এর বিরুদ্ধে। থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ওই দুই সিভিক ভলেন্টিয়ারকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গত ১১ এপ্রিল লাভপুরের ফুল্লরা মন্দিরে মেয়েকে নিয়ে পুজো দিতে গিয়েছিলেন ওই বধূ। সেই সময় তিনি ফুল্লরা মন্দিরে কর্তব্যরত ওই দুই সিভিক ভলান্টিয়ারের কাছে পানীয় জল চান। অভিযোগ, ওই দুই সিভিক ভলান্টিয়ার পানীয় জলে ঘুমের ওষুধ মিশিয়ে দেন। বধূ জ্ঞান হারালে ওই দুই সিভিক তাঁকে পাশের একটি গেস্ট হাউসে নিয়ে যায় আত্মীয় পরিচয় দিয়ে। সেখানে তাঁরা বধুকে ধর্ষণ করেন বলে অভিযোগ। গত বুধবার ওই বধূ তাঁর স্বামীকে পুরো বিষয়টি জানান। বুধবারই স্বামীকে নিয়ে লাভপুর থানায় গিয়ে দুই সিভিক ভলান্টিয়ারের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন তিনি।

Advertisement

পুলিশ বুধবার রাতেই অভিযুক্ত দুই সিভিক ভলান্টিয়ারকে গ্রেফতার করে। বৃহস্পতিবার তাঁদের বোলপুর মহকুমা আদালতে হাজির করানো হয়। অভিযুক্তদের তিন দিনের জন্য পুলিশ হেফাজতে পাঠানো হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে বীরভূমের পুলিস সুপার ভাস্কর মুখোপাধ্যায় বলেন, ‘‘আমরা অভিযুক্তদের গ্রেফতার করেছি। তদন্তের স্বার্থে যা করা দরকার তা নিশ্চয়ই করব। আমরা অভিযুক্তদের আপাতত নিজেদের হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছি।’’


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত নিবন্ধ