জেলা 

উঃ চব্বিশ পরগনা জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় বৈদ্যুতিক গাড়ি

শেয়ার করুন

ইসরাফিল বৈদ্য, বারাসাত :  পরিবেশ সচেতনতার মধ্যে দিয়ে এলাকায় রোগ দূরীকরণ ও ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে সুস্থ সমাজ উপহার দেওয়ার জন্য পরিবেশবিদরা আর্জি জানিয়ে আসছে সভ্যসমাজকে। শহর থেকে গ্রাম সর্বত্রই বছরের নির্দিষ্ট সময় রোগের প্রাদুরভাবে অনেক মানুষের মৃত্যু হওয়ার পাশাপাশি ক্ষতিগ্রস্ত হয় সামাজিক জীবনযাত্রা।

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী শ্রীমতি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরণা উঃ চব্বিশ পরগনা জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সমাজ সচেতনতার বার্তা দেওয়ার পাশাপাশি জেলার গ্ৰামীণ এলাকায় কঠিন বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় গ্ৰাম পঞ্চায়েত এর হাতে কঠিন বর্জ্য নিষ্কাশনের জন্য বৈদ্যুতিক গাড়ির ব্যবস্থা করা হচ্ছে। জেলার পৌরসভায় এলাকায় এই ধরনের গাড়ি আগে থেকেই ব্যবস্থা করা হয়েছিল বলে প্রশাসনিক সূত্রে জানা যায়। গ্রামীণ অঞ্চলে পরিবেশকে ঠিক রাখার লক্ষ্যে জেলার বিভিন্ন পঞ্চায়েত এলাকায় ১২০ টি ছোট বৈদ্যুতিক গাড়ি ধাপে ধাপে দেওয়া হচ্ছে বলে জানানো হয়। পরবর্তী সময়ে আরও বেশি সংখ্যক গাড়ি তুলে দেওয়া হবে বলে জানায় অতিরিক্ত জেলাশাসক শ্রী ইন্দ্রনীল ভট্টাচার্য। শুক্রবার উত্তর ২৪ পরগনা জেলাশাসকের কার্যালয় থেকে বৈদ্যুতিক গাড়ি বিভিন্ন পঞ্চায়েতের হাতে তুলে দেওয়ার পর সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে জেলা পরিষদের সভাধিপতি বিনা মন্ডল বলেন, এই ধরনের সামাজিক কর্মসূচি জেলার পৌরসভা গুলিতে থাকলেও গ্রামীণ অঞ্চলগুলি আরো বেশি পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখার লক্ষ্যে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগ সাধুবাদ যোগ্য। উপস্থিত জেলা পরিষদের বন ও ভূমি স্থায়ী সমিতির কর্মাধ্যক্ষ একেএম ফারহাদ বলেন রাজ্যের মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রত্যেকটি পদক্ষেপ জনহিতকর।

Advertisement

সেই লক্ষ্যে প্রত্যেকটি জেলাতে এ ধরনের সামাজিক কর্মসূচি রূপায়িত হচ্ছে। জেলাশাসক শ্রী শরদ কুমার দ্বিবেদী নেতৃত্বে জেলা প্রশাসনের আধিকারিক ও জনপ্রতিনিধরা অত্যন্ত দায়িত্বের সঙ্গে কর্ম ক্রিয়া করে যাচ্ছে বলে তিনি জানায়। গ্রামীন এলাকা পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার মধ্য দিয়ে ডেঙ্গু সহ নানা রকমের ব্যাধি দূরীকরণ সম্ভব বলেও তিনি বলেন।


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত নিবন্ধ