জেলা 

‘দিদির সুরক্ষা কবচ’ নিয়ে পোলবা গিয়ে তৃণমূল কর্মীদের বিক্ষোভের মুখে পড়লেন চুঁচুড়ার বিধায়ক অসিত মজুমদার

শেয়ার করুন

বাংলার জনরব ডেস্ক : বেশ কয়েক সপ্তাহ ধরে রাজ্য রাজনীতিতে শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতি নিয়ে যখন প্রচারের সব আলো কুন্তল ঘোষ ও তাপস মন্ডলরা নিয়ে নিচ্ছেন ঠিক তখনই নিরবে রাজ্যের গ্রাম স্তরে বিপ্লব ঘটে চলেছে। দিদির দূত হিসাবে গ্রামে গ্রামে ঘুরে বেড়াচ্ছেন তৃণমূলের নেতারা। তাঁরা মূলত দিদির সুরক্ষা কবচ নিয়ে মানুষের কাছে যাচ্ছেন কোথাও সাড়া মিলছে আবার কোথাও বিক্ষোভের মুখে পড়তে হচ্ছে তৃণমূল নেতাদের। আজ রবিবার সকালে এরকমই বিক্ষোভের মুখে পড়লেন চুঁচুড়ার তৃণমূল বিধায়ক অসিত মজুমদার।

তিনি এদিন সকালে হুগলি জেলার পোলবা এলাকার রাজহাট  পঞ্চায়েতে দিদির সুরক্ষা কবচ নিয়ে হাজির হন। সেখানে গিয়ে তৃণমূলের কর্মীদের বিক্ষোভের মুখে পড়েন বিধায়ক অসিত মজুমদার।

Advertisement

তৃণমূল কর্মীদের একাংশ সংবাদ মাধ্যমের কাছে অভিযোগ করেছেন,বিধায়ক নিজেই স্থির করছেন প্রার্থী কে হবেন। আর এই নিয়েই অসিতের সঙ্গে শুরু হয় তৃণমূল কর্মীদের বচসা। শুরু হয় হইহট্টগোল। ক্ষুব্ধ এক তৃণমূল কর্মী বলেন, ‘‘মানুষ ঠিক করবেন পঞ্চায়েত ভোটে প্রার্থী কে হবেন। আমরা এখানে সকলে বসে প্রার্থী ঠিক করব। উনি ঘরে বসে প্রার্থী ঠিক করবেন না।’’

এই নিয়ে অসিতের অবশ্য ব্যাখ্যা, ‘‘দল বড় হচ্ছে। দলে ক্ষোভ-বিক্ষোভ ছিল, থাকবেও। কিন্তু যখন যুদ্ধ হয় তখন সৈন্যরা নেমে পড়ে। তখন তাঁরা প্রতীক দেখেন।’’ তাঁর মতে, ‘‘ভোটের টিকিট চাওয়া অপরাধ নয়। কিন্তু কেউ টিকিট পেলে দলের সকলে তাঁর হয়েই মাঠে নামবে।’’ দলীয় কর্মীদের ক্ষোভ নিয়ে অসিতের বক্তব্য, ‘‘কর্মীদের ক্ষোভ থাকবেই। আমি সকলের অভিভাবক। আমাকেই তো বলবেন তাঁরা।’’


শেয়ার করুন

সম্পর্কিত নিবন্ধ