দেশ 

কেন্দ্রীয় হস্তক্ষেপেই চাপেই কী এবার মোদী ঘনিষ্ট আরবিআই গর্ভণর পদত্যাগ করতে চলেছেন ?

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক :  নরেন্দ্র মোদীর আমলে রিজার্ভ ব্যাংক অব ইন্ডিয়া এবং কেন্দ্রের মধ্যে বিবাদ নতুন নয়৷ আর এই বিবাদের জেরেই আরবিআই গভর্ণর উর্জিত প্যাটেল ইস্তফা দিতে পারেন বলে শোনা যাচ্ছে ।

বিশেষ সূত্রে জানা গেছে , সরকারের সঙ্গে সংঘাতের জেরে উর্জিত প্যাটেল ইস্তফার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে শোনা যাচ্ছে ৷ উল্লেখ্য, আরবিআই-এর ডেপুটি গভর্ণর কেন্দ্রীয় ব্যাংকে, সরকারের চাপ সৃষ্টির অভিযোগ আনার পর থেকেই বিষয়টি নিয়ে হইচই পড়ে যায় ।

একটি রিপোর্ট অনুযায়ী জানা যায়, সরকার রিজার্ভ ব্যাংক অব ইন্ডিয়ার সেকশন ৭-কে লাগু করতে পারে৷ এর ভিত্তিতে সরকার বিভিন্ন ইস্যু এবং জনগণের সঙ্গে যুক্ত বিভিন্ন বিষয়গুলির ওপর কাজ করার জন্য আরবিআই গভর্ণরকে নির্দেশ দিতে পারে৷ দেশ স্বাধীন হওয়ার পর এই সেকশন আজ পর্যন্ত ব্যবহৃত হয়নি৷

এই সেকশনই যদি কেন্দ্রীয় সরকার লাগু করে তাহলে উর্জিত প্যাটেল ইস্তফা দিতে পারেন বলে মনে করা হচ্ছে৷ যদিও আরবিআই এবং অর্থমন্ত্রক থেকে এই বিষয়ে কোনও মন্তব্য করা হয়নি বলে জানাচ্ছে বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড৷কেন্দ্রের সঙ্গে রিজার্ভ ব্যাংকের তরজা যে প্রকট হয়ে উঠছে ক্রমশ তা মঙ্গলবারই ফের বোঝা যায় কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলে যখন সরব হন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি৷ তাঁর প্রশ্ন- ২০০৮ থেকে ২০১৪ সালের মধ্যে যখন ব্যাংকগুলি ঢালাও ঋণ দিয়েছে তখন রিজার্ভ ব্যাংক তা কতটা নিয়ন্ত্রণ করেছে? কারণ এখন তো অনাদায়ী ঋণের পাহাড় প্রমাণ বোঝা দাড়িয়েছে৷

তবে এটাও ঠিক রিজার্ভ ব্যাংকের কেন্দ্রের সংঘাত নতুন নয়। মোদী জমানায় এর আগে রিজার্ভ ব্যাংকের প্রাক্তন গভর্নর রঘুরাম রাজনের সঙ্গে সংঘাতের কারণেই তাঁর মেয়াদ বাড়ান হয়নি৷ আবার ইউপিএ জমানায় প্রাক্তন গভর্নর ওয়াই ভি রেড্ডি, ডি সুব্বারাওয়ের সঙ্গে অর্থ মন্ত্রকের ঠোকাঠুকি লেগেছিল। সুব্বারাও তাঁর বইতে তৎকালীন দুই অর্থমন্ত্রী প্রণব মুখোপাধ্যায় এবং চিদাম্বরমের সঙ্গে মতবিরোধের কথা কবুলও করেছেন৷

?

 

 

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment