দেশ 

অমিত শাহের পুত্রের বিরুদ্ধে গোপন তদন্ত করার দায়েই কী সিবিআই প্রধানকে ছুটিতে পাঠানো হয়েছে ? এই অভিযোগ ঘিরে জাতীয় রাজনীতি উত্তাল , আরও কোনঠাসা মোদী-অমিত

শেয়ার করুন
  • 7
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বাংলার জনরব ডেস্ক : ২৩ অক্টোবর গভীর রাতে   সিবিআই প্রধান অলোক ভার্মাকে ছুটিতে পাঠানো নিয়ে জাতীয় রাজনীতি আবার উত্তাল হতে চলেছে । কলকাতা থেকে প্রকাশিত অন লাইন সংবাদ মাধ্যম আনন্দবাজারে প্রকাশিত খবর ঘিরে নতুন রহস্য দানা বেধেছে । এরফলে জাতীয় স্তরে শাসক বিজেপি দল যে সিবিআই প্রধানকে ছুটিতে পাঠানোর ঘটনায় আরও কোণঠাসা হতে চলেছে তা নিয়ে রাজনৈতিক মহলে কোনো দ্বিমত নেই।

রাজ্যের বহুল প্রচারিত অন লাইন সংবাদপত্র আনন্দবাজার সিবিআইয়ের একটি সূত্রকে সামনে রেখে খবর করেছে যে, অলোক ভার্মাকে ছুটিতে পাঠানোর দিন চারেক আগে বিজেপি সভাপতি অমিত শাহের ছেলে জয় শাহের বিরুদ্ধে ওঠা দুর্নীতির অভিযোগ নিয়ে তিনি ফাইল খুলেছিলেন । এরপরেই আসরে নেমে কংগ্রেস অভিযোগ করেছে ,ভার্মাকে তড়িঘড়ি ছুটিতে পাঠানোর এটাও কি কারণ? জয় শাহের দুর্নীতির তদন্তে কেউটে বেরিয়ে আসতে পারে আশঙ্কা করেই কি সিবিআই প্রধানকে নিষ্ক্রিয় করে দিয়ে ক্ষমতা দেওয়া হল শাসক শিবিরের ঘনিষ্ঠ অফিসারের হাতে?

জয় শাহের বিরুদ্ধে অভিযোগ, ২০১৪-’১৫ সালে তাঁর সংস্থা শাহ টেম্পল এন্টারপ্রাইজ প্রাইভেট লিমিটেডের লাভের পরিমাণ ছিল ১৮,৭২৮ টাকা। পরের বছর তা বেড়ে হয় ৮০.৫ কোটি। বিষয়টি গড়ায় আদালতে। মানহানির মামলাও হয়।

বিরোধীদের অভিযোগ উড়িয়ে অমিত শাহ অবশ্য দাবি করেন, তাঁর ছেলে নিয়ম মেনেই ব্যবসা করেন। সরকারের সঙ্গে তাঁর কোনও ব্যবসায়িক লেনদেন নেই। বা সরকারের কাছ থেকে তিনি এক ছটাক জমিও নেননি। তার পরেও অবশ্য জয় শাহকে লক্ষ্য করে বিরোধীদের আক্রমণ থামেনি।

এদিকে প্রশ্ন উঠেছে, জয় শাহ-র বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ বা কোনো আদালত সিবিআইকে তদন্ত করতে বলেনি তাহলে কীভাবে সিবিআই তা তদন্ত করবে । কংগ্রেস অবশ্য দাবি করেছে , জয়ের দুর্নীতি সম্পর্কে ১০ জন অভিযোগকারীর একটি আবেদন সিবিআই প্রধানের কাছে এসেছিল। প্রাথমিকভাবে অভিযোগের সত্যতা রয়েছে কি না, তা খতিয়ে দেখা শুরু করেছিলেন ভার্মা। তাতেই বিজেপির সভাপতি অমিত শাহ ভয় পেয়ে যান ।  তদন্ত যাতে শুরু না হয়, তা নিশ্চিত করতে ভার্মাকে ছুটিতে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেয় শাসক শিবির। কংগ্রেস নেতা অভিষেক সিঙ্ঘভির দাবি, ‘‘আমাদের কাছে খবর আছে রাফাল, ব্যপমের মতো অমিত শাহের ছেলের ফাইল নিয়েও নড়াচড়া শুরু হয়েছিল।’’ যদি আনন্দবাজার অন-লাইন সংবাদ মাধ্যমের খবরে দাবি করা হয়েছে, সিবিআইয়ের একটি সূত্র নাকি  দাবি করেছে,  আদালত কিংবা সরকারের সংশ্লিষ্ট দপ্তরের অনুমতির বাইরে নিজের থেকে তদন্ত শুরুর এক্তিয়ার সিবিআই-র রয়েছে ।

যদিও দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং এই প্রসঙ্গে প্রতিক্রিয়া দিতে জয় শাহ নিয়ে কোনো মন্তব্য করেননি। কংগ্রেসের এই দাবিকে অস্বীকার বা স্বীকার কোনোটাই না করে রাজনাথ সিংহের প্রতিক্রিয়া ‘‘সারবত্তাহীন অভিযোগ। এমন অভিযোগ আগেও উঠেছে।’’ অন্যদিকে বিজেপি মুখপাত্র সুধাংশু ত্রিবেদীও জয় শাহকে নিয়ে সিবিআই সূত্র এবং কংগ্রেসের অভিযোগ নিয়ে কোনো প্রতিক্রিয়া দেননি । বরং তিনি বলেছেন,‘‘কংগ্রেস যে ভাবে ভার্মার হয়ে কথা বলছে, সেটা দেখে মনে হচ্ছে ভার্মাকে তারা দলের অ্যাকটিভিস্ট বানাতে চাইছে। সিবিআই প্রধানকে এ ভাবে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে ব্যবহার করাটা ঠিক নয়।’’

সিবিআই আধিকারিককে রাতের অন্ধকারে ছুটিতে পাঠিয়ে মোদীর সিদ্ধান্ত যে বুমেরাং হতে চলেছে তা নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই । এনিয়ে বিরোধী দল কংগ্রেস তো বটেই অন্য বিজেপি বিরোধী দলগুলি মাঠে নেমে আন্দোলন শুরু করলে আগামী লোকসভা নির্বাচনের আগে মোদী-শাহদের চিন্তার ভাঁজ যে আরও প্রগাঢ় হবে তা নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই।

 


শেয়ার করুন
  • 7
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment