দেশ 

১২ বছর কিংবা তার কম বয়সী মেয়েদের ধর্ষণ করলেই মৃত্যুদন্ড, সিদ্ধান্ত কেন্দ্রীয় মন্ত্রীসভায়

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিনিধি, নয়াদিল্লিঃ কাঠুয়ায় ৮ বছরের নাবালিকাকে ধর্ষণ ও খুনের ঘটনার পর দেশজুড়ে প্রতিবাদের আগুন জ্বলেছিল। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মানেকা গান্ধী সেই সময়েই প্রোটেকশন অফ চিলড্রেন ফ্রম সেক্সুয়্যাল অফেন্স অ্যাক্ট-এ (পকসো আইনে) বদল এনে ১২ বছর কিংবা তার কম বয়সী মেয়েদের ধর্ষণের ঘটনায় অপরাধীদের মৃত্যুদন্ডের সাজার দাবি তুলেছিলেন। দেশজোড়া সাঁড়াশি চাপে শেষপর্যন্ত এই সিদ্ধান্তে সায় দিল কেন্দ্রীয় মন্ত্রীসভা।  শনিবার কেন্দ্রীয় মন্ত্রী সভার তরফে স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, শিশু ধর্ষণের শাস্তি স্বাপেক্ষে যে আইনাবলী রয়েছে, তার সঙ্গেই যুক্ত হবে এই নয়া প্রস্তাবনা। যদিও দীর্ঘদিন ধরেই এই ধরণের দাবি উঠছিল দেশজুড়ে।

প্রসঙ্গত, এতদিন পর্যন্ত এই আইনে দোষীদের শাস্তি ছিল সাত বছর থেকে যাবজ্জীবন পর্যন্ত কারাদন্ড। এবার সংশোধনী আইন অনুসারে বারো বছর কিংবা তার কম বয়সী মেয়েদের ধর্ষণের ঘটনায় অপরাধীদের  মৃত্যুদন্ড বা ফাঁসির সাজা শোনানো হবে। গণধর্ষণের ক্ষেত্রেও একই ধরণের প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

কাঠুয়া কান্ডের পর দেশজুড়ে প্রতিবাদের ঝড় উঠেছিল। সেই সঙ্গে উন্নাও ধর্ষণকান্ডে অভিযুক্ত ছিলেন বিজেপি বিধায়ক। এর ফলে স্বাভাবিকভাবেই চাপে ছিল বিজেপি। সেই চাপের ফলেই কেন্দ্র এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। তবে কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্ত কতটা সফল হয়, তা সময়ই বলবে।


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment