কলকাতা 

‘সোমেন মিত্রই ধর্মনিরপেক্ষ নেতা‘ তাঁর নেতৃত্বের প্রতি আস্থা জানাতে প্রদেশ কংগ্রেস দপ্তরে রাজ্যের প্রথম সারির সংখ্যালঘু নেতাদের ভিড়

শেয়ার করুন
  • 244
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বুলবুল চৌধুরি : বাংলার জনরব নিউজ পোর্টাল প্রথম থেকেই বলে আসছিল যে, প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতির পদে সোমেন মিত্র বসলেই রাজ্য কংগ্রেসের মড়া গাঙে বান আসবে । তিনি প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি হয়েছেন ২১ সেপ্টেম্বর । মাত্র একমাস আগে । তার মধ্যেই বদলে গেছে প্রদেশ কংগ্রেস অফিসের চেহারা । প্রদেশ কংগ্রেস দপ্তরকে আর কেউ ভূতুড়ে বাড়ি বলে ব্যঙ্গ করতে পারবে না। সোমেন মিত্রের প্রদেশ কংগ্রেস দপ্তরে এখন উপছে পড়া ভিড় ।

বাংলার জনরব দাবি করেছিল, রাজ্যের এই মূহূর্তে ধর্মনিরপেক্ষ রাজনৈতিক নেতা হিসেবে সবচেয়ে বিশ্বাসযোগ্য মুখ সোমেন মিত্র । প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার একমাসের মধ্যে তিনি সেই বিশ্বাসযোগ্যতা প্রমাণ করেছেন । গত সপ্তাহ থেকে শুরু হয়েছিল রাজ্যের প্রথম সারির সংখ্যালঘু নেতাদের প্রদেশ কংগ্রেস দপ্তরে আনাগোনা । মঙ্গলবার ২৩ অক্টোবর রাজ্যের সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মধ্যে একটি বড় অরাজনৈতিক সংগঠনের নেতৃত্ব এবং বিভিন্ন সংখ্যালঘু সংগঠনের নেতারা সৌজন্য সাক্ষাৎকারে মিলিত হন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্রের সঙ্গে ।

বিভিন্ন সূত্র থেকে পাওয়া খবরে জানা গেছে , সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের এই সব নেতারা জননেতা সোমেন মিত্রের কাছে একান্তে স্বীকার করেছেন, দেশে সাম্প্রদায়িক শক্তির বিরুদ্ধে লড়াই করতে পারে একমাত্র কংগ্রেস । কংগ্রেস শক্তিশালী না হলে বিজেপি-র আগ্রাসন রোধ করা সম্ভব হবে না। রাজ্যের মুসলিমদের কংগ্রেসের  পাশে থাকতে অনুরোধ করেন প্রদেশ সভাপতি । তিনি সংখ্যালঘু নেতাদের অনুরোধ করেন, সাম্প্রদায়িক শক্তির আগ্রাসনের বিরুদ্ধে তাঁরা যেন কংগ্রেস পাশে থাকেন । একইসঙ্গে তিনি বলেন, কংগ্রেস দল ধর্মনিরপেক্ষ আদর্শকে সামনে রেখে তারা সংখ্যালঘুদের পাশে থাকবে । সংখ্যালঘুদের সমস্যাগুলির সমাধানের জন্য রাজনৈতিকভাবে তাঁরা চেষ্টা চালাবেন । রাজ্যের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষার জন্যও কংগ্রেস এই রাজ্যে কাজ করে যাবে । জানা গেছে , সংখ্যালঘু নেতারা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর কাজকর্মে অসন্তোষ ব্যক্ত করেছেন ।

এই আলোচনায় উপস্থিত ছিলেন কংগ্রেস নেতা ও প্রাক্তন সাংসদ সরদার আমজাদ আলী তিনি এই প্রতিবেদককে বলেন , সোমেন মিত্র প্রদেশ কংগ্রেসের দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই প্রদেশ দপ্তরের জনজোয়ার এসেছে । আমরা এটা কল্পনা করতে পারিনি , সেটা সম্ভব হয়েছে । এই রাজ্যে সোমেনের হাত ধরে কংগ্রেসের উত্থান শুধু সময়ের অপেক্ষা মাত্র । রাজ্যে দুই প্রধান ও জনপ্রিয় মুসলিম সংগঠনের নেতাদের সঙ্গে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতির বৈঠক সম্পর্কে বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ সরদার আমজাদ আলীর প্রতিক্রিয়া “ সোমেন মিত্রই যে এই রাজ্যের একমাত্র ধর্মনিরপেক্ষ নেতা তা এই বৈঠক থেকে প্রমাণ পাওয়া গেছে । তিনি বলেন এই তো শুরু দেখতে থাকুন । আরও সংখ্যালঘু নেতা সোমেনকেই ধর্মনিরপেক্ষ নেতা হিসেবেই সিলমোহর দেবেন । এ কথা ঠিক সোমেন মিত্রই একমাত্র রাজনীতিবিদ যিনি কথা এবং কাজের মধ্যে তেমন কোনো তফাৎ রাখেন না ।

বিশেষ সূত্রে জানা গেছে , রাজ্যের বেশ কয়েকটি মুসলিম সংগঠনের পক্ষ থেকে সোমেন মিত্রের সঙ্গে দেখা করার জন্য সময় চাওয়া হয়েছে ।

 

 


শেয়ার করুন
  • 244
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment