কলকাতা 

‘ দলের নিচু তলার কর্মীদের মনোবল নাকি ভেঙে দিচ্ছেন মুকুল , দলীয় বৈঠকে কেন্দ্রীয় নেতাদের সামনেই মুকুলকে দুষলেন দিলীপ

শেয়ার করুন
  • 6
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

জামিতুল ইসলাম : একদা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডান হাত হিসেবে পরিচিত মুকুল রায় বিজেপিতে আগমন গেরুয়া শিবিরের একাংশ যে ভালভাবে নেন নি, সে কথা প্রায় সকল ঘনিষ্ঠরাই জানেন। কিন্তু এবার একেবারে জনসমক্ষে তীব্র বাদানুবাদে জড়িয়ে পড়লেন বঙ্গ বিজেপির এই দুই শীর্ষ নেতা। ফলে দলের অন্দরেই যে তাদের বনিবনা হচ্ছে না, তাও স্পষ্ট হয়ে গেল।
তবে দলের অন্দরের এই বিবাদ আর কেবল রাজ্য স্তরে আটকে রইল না। খোদ কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের সামনেই ফুটে উঠল মত পার্থক্য। গতকাল কেন্দ্রের তরফে বাংলার পর্যবেক্ষক হিসেবে কৈলাস বিজয়বর্গীয় পাশাপাশি নিযুক্ত করা হয় আরএসএস নেতা অরবিন্দ মেননকে। তাদের উপস্থিতিতে হওয়া এক বৈঠকেই চরমে ওঠে দিলীপ-মুকুল কাজিয়া।
অন্যান্য নেতাদের বিজেপিতে আনার জন্য শ্লেষ থেকে শুরু করে; দলের তৃণমূল স্তরের কর্মীদের মনোবল ভেঙে দেওয়ার মতো একের পর এক গুরুতর তোপ মুকুলের বিরুদ্ধে দাগেন দিলীপ। বিজেপি রাজ্য সভাপতির অভিযোগ, মুকুল বিজেপির নিচু তলার কর্মী ও সংগঠনকে ‘ডি-মরালাইজ’ করছেন (মনোবল ভেঙে দিচ্ছেন)। একই সঙ্গে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের কাছে গোপন রিপোর্ট পাঠানো নিয়েও মুকুলকে একহাত নেন দিলীপবাবু।
কিন্তু কী এমন হল যে প্রকাশ্যে দ্বন্দ্ব জড়িয়ে পড়লেন বঙ্গ বিজেপির এই দুই শীর্ষ নেতা? সূত্রের খবর, পঞ্চায়েত স্তরে বুথ কমিটি গঠন নিয়ে দু’জনের মধ্যে শুরু হয় বাদানুবাদ। একদিকে দিলীপবাবুর দাবি ছিল, অর্ধেকের বেশি বুথ কমিটি তৈরি হয়ে গেছে। অন্যদিকে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের সামনেই মুকুলবাবু বলেন, মোটেও তা হয়নি। কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয়র সঙ্গে মুকুল রায়ের সমীকরণ যে ভাল, তা এতদিনে প্রায় সকলেই জেনে গিয়েছেন। সব মিলিয়ে দিলীপের ক্ষোভ আরও বেশি ফেটে পড়ে গাফিলতির কথা শুনে।
পরে অবশ্য বিষয়টিকে ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করেন মুকুলবাবু। বৈঠকে হওয়া মৌখিক বচসা সম্পর্কে তাঁর ব্যাখ্যা, “বৈঠকে তো অনেক কথাই হয়। আমি ও দিলীপবাবু নিজের নিজের বক্তব্য রেখেছি। সে সব নিয়ে মন্তব্য করব না। তবে একে কথা কাটাকাটি বলা যায় না।” অন্যদিকে এই ঘটনার পর দিলীপবাবুর প্রতিক্রিয়া মেলেনি। তবে মুকুলকে একসময় ‘চাটনি’ বলা দিলীপের সঙ্গে যে তৃণমূল ত্যাগী নেতার সম্পর্কে বিরাট ফাটল তৈরি হয়েছে, তা দিনের আলোর মতোই স্পষ্ট।


শেয়ার করুন
  • 6
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment