কলকাতা 

পথ কুকুরদের সেবায় “অবোলা “ এক ব্যতিক্রমী দৃষ্টান্তমূলক কাজ করে চলেছে

শেয়ার করুন
  • 34
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিনিধি : দমদমের রাস্তায় ঘুরলেই চোখে পড়ে একজন ভদ্রলোককে, যিনি সারাদিন ধরে,এমনকি গভীর রাত পর্যন্ত একটি হলুদ রঙের মোটর সাইকেলে করে , গ্রীষ্ম, বর্ষা, শীত, হরতাল সব উপেক্ষা করে রাস্তার পথ কুকুরদের হয় খেতে দিচ্ছেন বাটিতে বাটিতে করে, নয় অসুস্থ কুকুরদের সেবা করে চলেছেন আপনমনে ।
পথ কুকুরদের খেতে দেওয়াকে কেন্দ্র করে ১০ বছর ধরে কত লোকের কত তৈরি করা প্রতিবন্ধকতা সরিয়ে স্ব-উপার্জন দিয়ে মনের জোরে এই কাজ চালিয়ে যাচ্ছিলেন চন্দ্রশেখরবাবু । কতবার তো সেজন্য তাঁকে যেতে হলো আদালতে , লড়তে হয়েছিল প্রতিদিন চারপাশ থেকে উঠে আসা কটূক্তি , অপমান, বিরোধিতার সঙ্গে ,তবুও হাল ছাড়েননি বা ভয় পেয়ে পিছিয়েও যান নি দমদম মতিঝিল এর বাসিন্দা চন্দ্রশেখর দে।
এরপর তাঁর পাশে এসে দাঁড়ান ড: মানসরঞ্জন মজুমদার , অপর্ণা মজুমদার, সুজাতা দে ও স্বাতী দে-র মত কয়েকজন পশুপ্রেমী মানুষ । তাদের সঙ্গে নিয়ে চন্দ্রশেখর দে ও অপর্ণা মজুমদারের উদ্যোগে ২০১৭ সালের ৯ জুন তৈরি হয় পঞ্জিকৃত সংস্থা (Registration No. IV 190302964/2017) ‘অবোলা ‘ যা আয়কর দফতরের তালিকাভুক্ত (PAN No. AAATO6132H).

চন্দ্রশেখর বাবুর কথায়- – এই কাজ করতে যার অবদান অনস্বীকার্য , তিনি হলেন অপর্ণা দেবী। বর্তমানে ৩৫০ থেকে ৪০০টি পথ কুকুরের খাওয়ানোর কজের সাথে সাথে অ্যান্টি রাবিস ইঞ্জেকশন দেওয়া করানো, কৃমিনাশকতা এবং এবিসি কর্মসূচির কাজ —-সব কিছুই চলছে কোমর বেঁধে সংস্থার সদস্য ও পরিচিত কিছু সারমেয়প্রেমীর নিয়মিত দেয় দানে এবং সংস্থার কিছু সদস্যদের শ্রমদানে চলে অবলা । খাবার তৈরি করা এবং বিতরণ করা এর মধ্যে একটি।

আর এই ‘অবোলা’ কে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার শক্তি যুগিয়েছে দ: দমদম পৌরসভার চেয়ারম্যান পাচু রায় , এক্স চেয়ারম্যান অঞ্জনা রক্ষিত , চেয়ারম্যান ইন কাউন্সিল অভিজিৎ মিত্র (বাপি মিত্র), কাউন্সিলর কেয়া দাস, সঞ্জয় দাস এবং ডা: গৌতম সরখেল দের মত উচ্চমানসিকতার মানুষদের সমর্থন।


শেয়ার করুন
  • 34
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Comment